Latest Post


জনপ্রিয় অনলাইন : স্বাধীনতার দাবিতে কাতালোনিয়ায় নতুন গণভোট অনিবার্য বলে মনে করেন অঞ্চলটির স্বাধীনতাপন্থী নেতা ওরিয়ল জাঙ্কুরাস। রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে স্পেনের সুপ্রিম কোর্টে কারাদণ্ড ঘোষণার পর ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে পাঠানো এক ইমেইল সাক্ষাৎকারে একথা জানিয়েছেন কাতালোনিয়ার আঞ্চলিক সরকারের সাবেক এই ডেপুটি নেতা। তিনি মনে করেন, কারাদণ্ড ও নির্বাসন স্বাধীনতা আন্দোলনকে আরও তীব্র করেছে।

২০১৭ সালে কাতালোনিয়ার স্বাধীনতার দাবিতে আন্দোলনের সময় নিজেদের ভূমিকার জন্য সোমবার অঞ্চলটির ৯ স্বাধীনতাকামী নেতাকে কারাদণ্ড দিয়েছে স্পেনের সুপ্রিম কোর্ট। আদেশে তাদের ৯ থেকে ১৩ বছর পর্যন্ত কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। আদালতের রায়ের পরই রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ শুরু করেছে কাতালানরা। কারাদণ্ডপ্রাপ্তদের মধ্যে রয়েছেন আঞ্চলিক সরকারের সাবেক ডেপুটি নেতা ওরিয়ল জাঙ্কুরাস। কারাগার থেকে প্রথমবারের মতো রয়টার্সের লিখিত প্রশ্নের জবাব দিয়েছেন তিনি।
২০১৭ সালে গণভোট আয়োজনের জন্য কোনও অনুশোচনা নেই জানিয়ে এই স্বাধীনতাপন্থী নেতা বলেন, আমি নিশ্চিত যে এই সমস্যার সমাধান হতে হবে ব্যালট বাক্সের মাধ্যমে... আমরা বিশ্বাস করি যে এখন হোক বা পরে কখনো হলেও গণভোট অনিবার্য কারণ নাহলে আমরা কীভাবে নাগরিকদের কণ্ঠস্বর শুনবো?
কারাদণ্ডের পর প্রথম ওই সাক্ষাৎকারে জাঙ্কুরাস জানান তিনিসহ অন্যরা স্ট্রাসবুর্গের ইউরোপীয়ান মানবাধিকার আদালতে কারাদণ্ডের বিরুদ্ধে আপিলের প্রস্তুতি নিচ্ছেন। কারাবন্দি হওয়ার পর স্বাধীনতার আন্দোলনে কী বার্তা দিতে চান জানতে চাইলে জাঙ্কুরাস বলেন, আমরা আন্দোলন চালিয়ে যাবো আর কখনোই তা ছেড়ে যাবো না কারণ আমরা কখনোই এটা (স্বাধীনতা) এখনই পেতে চাইনি। কারাদণ্ড আর নির্বাসন আমাদের আরও শক্তিশালী করেছে আর আমরা আরও বেশি আশ্বস্ত হয়েছি। তিনি বলেন, আমি নিশ্চিত এই কারাদণ্ড স্বাধীনতা আন্দোলনকে দুর্বল করবে না, বরং বিপরীতটাই ঘটবে।


জনপ্রিয় অনলাইন : স্পেনের স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চল কাতালোনিয়ার ৯ স্বাধীনতাকামী নেতাকে রাষ্ট্রদ্রোহেরঅভিযোগে কারাদণ্ড দেওয়ায় ক্ষোভে ফুঁসছে অঞ্চলটির বাসিন্দারা। সুপ্রিম কোর্টের ওই রায়ের বিরুদ্ধে সোমবার রাজপথে নেমেছে বিক্ষুব্ধ কাতালানরা। এদিন বার্সেলোনা বিমানবন্দর এলাকায় পুলিশের সঙ্গে বিক্ষোভকারীদের সংঘর্ষে আহত হয় অন্তত ৩৭ আন্দোলনকারী। কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে তুরস্কভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আনাদোলু এজেন্সি।

বিবিসি জানিয়েছে, কাতালোনিয়ার বিভিন্ন স্থান থেকে বিক্ষোভকারীরা বার্সেলোনা চত্বরে সমবেত হয়। এই চত্বর থেকেই ২০১৭ সালে স্বাধীনতার জন্য গণভোটের দাবি উঠেছিল।
সোমবারের বিক্ষোভে অংশগ্রহণকারীদের দাবি, কাতালান নেতাদের বিরুদ্ধে আদালত যে রায় দিয়েছে আদতে সেটি কোনও বিচার নয়। বরং স্বাধীনতাকামীদের প্রতি কর্তৃপক্ষের প্রতিশোধস্পৃহা থেকেই এ রায় দেওয়া হয়েছে। তবে স্পেনের প্রধানমন্ত্রী পেদ্রো সানচেজ বিক্ষোভকারীদের দাবি নাকচ করে দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড প্রমাণ হওয়ার কারণেই কাতালান নেতাদের সাজা দেওয়া হয়েছে। এর সঙ্গে প্রতিশোধস্পৃহার কোনও সম্পর্ক নেই।
নেতাদের বিরুদ্ধে রায়ের নিন্দা জানিয়ে আলোচনার মাধ্যমে সংকট সমাধানের আহ্বান জানিয়েছে ফুটবল ক্লাব বার্সেলোনা এবং কাতালান ফুটবল ফেডারেশন।
উল্লেখ্য, ২০১৭ সালে কাতালোনিয়ার স্বাধীনতার দাবিতে আন্দোলনের সময় নিজেদের ভূমিকার জন্য সোমবার অঞ্চলটির ৯ স্বাধীনতাকামী নেতাকে কারাদণ্ড দেয় স্পেনের সুপ্রিম কোর্ট। আদেশে তাদের ৯ থেকে ১৩ বছর পর্যন্ত কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। মামলায় জাতীয় সরকারের প্রতি আনুগত্য অস্বীকারের অপরাধ প্রমাণিত হওয়ায় অন্য তিন আসামিকে শুধু জরিমানা করা হয়েছে। তবে নিজেদের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করেছেন দণ্ডপ্রাপ্ত ১২ নেতা ও অধিকারকর্মী। আদালতের রায়ের পরই রাস্তায় নেমে আসে কাতালানরা।


জনপ্রিয় অনলাইন : রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে কাতালোনিয়ার স্বাধীনতাকামী ৯ নেতাকে কারাদণ্ড দিয়েছে স্পেনের সুপ্রিম কোর্ট। ২০১৭ সালে অঞ্চলটির স্বাধীনতার দাবিতে আন্দোলনের সময় ভূমিকার জন্য তাদের এ সাজা দেওয়া হয়েছে। আদেশে তাদের ৯ থেকে ১৩ বছর পর্যন্ত কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।
মামলায় জাতীয় সরকারের প্রতি আনুগত্য অস্বীকারের অপরাধ প্রমাণিত হওয়ায় অন্য তিন আসামিকে শুধু জরিমানা করা হয়েছে। তবে নিজেদের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করেছেন দণ্ডপ্রাপ্ত ১২ নেতা ও অধিকারকর্মী।
স্বাধীনতা প্রশ্নে গণভোটের পর গত বছরের অক্টোবরে স্পেন থেকে কাতালোনিয়ার স্বাধীনতা ঘোষণা করে পুজদেমনের নেতৃত্বাধীন স্বাধীনতাকামীরা। এরপর স্পেনের জাতীয় সরকার কাতালোনিয়া সরকার ভেঙে দিয়ে পুজদেমনকে বরখাস্ত করে। রাজনৈতিক আশ্রয় নিয়ে বিদেশে পালিয়ে যান পুজদেমন। তিনি এখন জার্মানিতে অবস্থান করছেন। সে সময় স্বাধীনতাকামীদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহসহ বিভিন্ন অভিযোগে মামলা দায়ের করে স্পেনের কেন্দ্রীয় সরকার। তারপরও স্বাধীনতার দাবিতে বিভিন্ন সময় বিক্ষোভ-আন্দোলন করে আসছে স্বাধীনতাকামীরা।
রাষ্ট্রদ্রোহের মামলায় কাতালোনিয়ার সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট ও স্বাধীনতাকামী নেতা ওরিওল জানকুয়েরাসের ২৫ বছরের কারাদণ্ড চেয়েছে রাষ্ট্রপক্ষ। শুনানি শেষে রাষ্ট্রদ্রোহ ও সরকারি তহবিলের অর্থ অপব্যবহারের অভিযোগে তাকে ১৩ বছরের কারাদণ্ড দেন আদালত।
অন্য ৮ আসামিকে সর্বোচ্চ ৯ বছরসহ বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দেয় স্পেনের সুপ্রিম কোর্ট। দেশটির জাতীয় সরকারের বিরুদ্ধে বিদ্রোহের অভিযোগে তাদের ওই সাজা দেওয়া হয়।
স্বাধীনতাকামীদের কারাদণ্ডাদেশের পর কাতালনের রাজধানী বার্সেলোনার রাস্তায় বিক্ষোভ করেছে স্বাধীনতাকামীরা। এ সময় তারা ‘রাজনৈতিক কারাবন্দিদের মুক্তি দিন’ ব্যানার প্রদর্শন করে সবাইকে রাস্তায় নামার আহ্বান জানায়।
এই ১২ কাতালান নেতার বেশিরভাগই বিগত সময়ে রাজ্য সরকার ও পার্লামেন্টের গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করেছেন। এদের মধ্যে প্রভাবশালী অধিকারকর্মী ও আইনজীবী রয়েছেন।
রায় ঘোষণার আগে গত ১২ জুন যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের জন্য ১২ আসামির প্রত্যককে তাদের বক্তব্য পেশ করার জন্য ১৫ মিনিট করে সময় দেন আদালত। সে সময় তারা মাদ্রিদের আদালতকে জানান, তাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ গঠন করা হয়েছে। সূত্র: বিবিসি।


জনপ্রিয় অনলাইন : দৈনন্দিন কর্মপরিকল্পনার সামান্য বাহিরে পরিবার-পরিজন, বন্ধু-বান্ধব নিয়ে আনন্দময় কিছুটা সময় কাটানোর জন্য বার্সেলোনার শরীয়তপুর জেলা সমিতি আয়োজন করে বার্ষিক বনভোজনের।গত ১৩ই অক্টোবর রোজ রবিবার সাপ্তাহিক ছুটি থাকায় দিনের শুরুতেই বার্সেলোনা শহর থেকে যাত্রাকরা বাস দুটি দুপুরের আগেই গন্তব্যস্থল পার্ক সামাতে পৌছামাত্রই শরীয়তপুরের বনভোজনটি এক পারিবারিক মিলন মেলায় পরিনত হয়।

বনভোজনে হরেক স্বাদের পিঠাপুলির আয়োজন না থাকলেও যাত্রাকালিন নাস্থা থেকে শুরু করে রকমারি খাবারের আয়োজনে উপস্থিতিরা ছিলেন বেশ তৃপ্ত।
আলাদা আলাদাভাবে ছোট এবং বড়দের মধ্যে মিউজিক্যাল রাউন্ড খেলা অনুষ্ঠিত হয়। বিজয়ীসহ বনভোজনে উপস্থিত সকলকে সংগঠনের পক্ষ থেকে বিশেষ পুরষ্কারে সম্মানিত করা হয়।
বনভোজনে সমিতির সভাপতি হাজী মোঃ সুলতান, সাধারণ সম্পাদক হাজী মোহাম্মদ রাসেল হাওলাদার ছাড়াও সহ সভাপতি জাকির হোসেন খান, সহ-সভাপতি খাদিজা আক্তার মনিকা,  সহ-সভাপতি মোঃ আশরাফ মোল্লা, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোক্তার হোসেন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সরোয়ার হোসেন হির, সাংগঠনিক সম্পাদক উজ্জ্বল হাসান, শাখাওয়াত হোসেন, মোঃ রিয়াদ হাওলাদার,  রুবেল খান, জাফর হোসেন  প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।
আমন্ত্রিত অতিথির মধ্যে বিজনেস ক্লাব স্পেনের সিঃ সহ সভাপতি শফিক খান,  সদস্য মোহাম্মদ সোহেল, নুরু ভূইয়া উপস্থিত ছিলেন।

সভাপতি হাজী মোঃ সুলতান এবং সাধারণ সম্পাদক হাজী মোহাম্মদ রাসেল হাওলাদার উপস্থিত সকল সদস্য এবং অতিথিদের আন্তরিক ধন্যবাদ জানানোর পাশাপাশি আগামী প্রজন্মকে সুন্দর একটি পরিবেশ তৈরি করে দিতে বার্সেলোনায় সকল প্রবাসী বাংলাদেশীদের একটি প্লাটফর্মে এসে একযোগে কাজ করার আহ্বান জানান।
সুত্র : বিদেশ নিউজ ।


জনপ্রিয় আনলাইন :‘অল ইউরোপ বাংলাদেশ প্রেসক্লাব’এর সভাপতি ফয়সাল আহাম্মেদ দ্বীপের পিতা মোঃ মোবারক হোসেন আর নেই (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্নাইলাইহি রাজিউন)।
আজ ১২ অক্টোবর শনিবার বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৫ টায় কুমিল্লা সদরের বামইলস্থ নিজ বাসভবনে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬৫ বছর। মরহুম মোবারক হোসেন দীর্ঘ দিন ধরে বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত ছিলেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, দুই পুত্র ও এক কন্যাসহ অসংখ্য আত্মীয়-স্বজন ও গুনগ্রাহী রেখে গেছেন। মরহুমের জানাজার নামাজ আগামীকাল রবিবার সকাল ১১টায় বামইল স্কুল এন্ড কলেজ মাঠে অনুষ্ঠিত হবে। এদিকে সাংবাদিক ফয়সাল আহমেদ দ্বীপের পিতার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ যৌথভাবে বিবৃতি দিয়েছেন আল ইউরোপ বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের নেতৃবৃন্দ। অল ইউরোপ বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের প্রধান উপদেষ্ঠা শরীফ আল মমিন, সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট মিরন নাজমুল, সহ-সভাপতি মাহবুব সুয়েদ, আখি সীমা কাউসার, সাধারন সম্পাদক জমির হোসেন যুগ্ম-সম্পাদক মোঃ ফারুক আহাম্মেদ মোল্লা,কবির আল মাহমদু, জামিল আহমেদ সাহেদ, সাংগঠনিক-সম্পাদক রনি মোহাম্মদ, প্রচার-সম্পাদক মোঃ রাসেল আহমেদ, আন্তর্জাতিক সম্পাদক জাহিদ কায়সার, কার্য্যকরী সদস্য এডভোকেট আনিসুজ্জামান প্রমুখ। শোকবার্তায় নেতৃবৃন্দ মরহুম মোবারক হোসেনবিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং শোকাহত পরিবারের সদস্য ও শুভানুধ্যায়ীদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

জনপ্রিয় ডেস্ক : লন্ডন বাংলা প্রেসক্লাবের কোষাধ্যক্ষ ও বাংলাদেশ প্রতিদিন এর ইউরোপ ব্যুরো প্রধান আ স ম মাসুমের সাথে স্পেন বাংলা প্রেসক্লাবের সদস্যদের সাথে মতবিনিময় অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত ৩০ সেপ্টেম্বর ও ১ অক্টোবর স্পেনের রাজধানী শহর মাদ্রিদ ও পর্যটন নগরী বার্সেলোনায় পৃথকভাবে এ মতবিনিময় অনুষ্ঠিত হয়।
মাদ্রিদে স্পেন বাংলা প্রেসক্লাবের উপদেষ্টা মিনহাজুল আলম মামুনের সভাপতিত্বে ও সদস্য কবির আল মাহমুদের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত এ মতবিনিময় সভায় স্বাগত বক্তব্য দেন স্পেন বাংলা প্রেসক্লাবের সভাপতি সাহাদুল সুহেদ। এসময় অতিথিদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন ইন স্পেনের সভাপতি কাজী এনায়েতুল করিম তারেক, প্রাক্তন সভাপতি আল মামুন, সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান সুন্দর, ডিজিকম কার্গো সার্ভিস ইউকে এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোস্তফা আহমেদ লাকি, আওয়ামী লীগ স্পেন শাখার আহ্বায়ক কমিটির সদস্য জাকির হোসেন, যুবদল স্পেন শাখার সভাপতি রমিজ উদ্দিন, বিক্রমপুর মুন্সিগঞ্জ সমিতির সাধরণ সম্পাদক রাসেল দেওয়ান, জকিগঞ্জ সমিতির সভাপতি সাদ উদ্দিন, মৌলভীবাজার অ্যাসোসিয়েশনের সিনিয়র সহ সভাপতি খায়রুজ্জামান জামান, ব্যবসায়ী জামিল চৌধুরী রানা, স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা বাবুল আহমদ প্রমূখ। 
পর্যটন নগরী বার্সেলোনায় স্পেন বাংলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আফাজ জনির সভাপতিত্বে ও প্রথম সদস্য মিরন নাজমুলের পরিচালনায় লন্ডন বাংলা প্রেসক্লাবের কোষাধ্যক্ষ আ স ম মাসুমের সম্মানে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় প্রেসক্লাবের সদস্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন সাংগঠনিক সম্পাদক লোকমান হোসেন, প্রচার সম্পাদক এম লায়েবুর রহমান, সদস্য মো. ছালাহ উদ্দিন আহমদ, জাফর হোসেন, ফয়সল আহমদ, কমিউনিটি সমন্বয়ক কামরুল মোহমেদ। এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বাংলা কাগজের উপদেষ্টা আব্দুল বাসেত কয়সর, জাহাঙ্গীর আলম, লুতফুর রহমান সুমন,মনিরুজ্জামান সুহেল প্রমূখ। 
লন্ডন বাংলা প্রেসক্লাবের কোষাধ্যক্ষ আ স ম মাসুম বলেন, প্রবাসে বাংলাদেশি কমিউনিটির উন্নয়নে বাংলা মিডিয়ার গুরুত্ব ও অবদান অপরিসীম। প্রবাসে সাংবাদিকতা পেশা চালিয়ে যাওয়া কষ্টকর হলেও সে পেশা উপভোগ্য হয়ে ওঠে যখন পক্ষপাতিত্বশূন্য, স্বচ্ছ, বিশ্বাসযোগ্য সংবাদ পরিবেশন করা হয়। তিনি এসময় লন্ডন বাংলা প্রেসক্লাবের নানা কার্যক্রম তুলে ধরেন।
মতবিনিময় শেষে স্পেন বাংলা প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে আ স ম মাসুমকে সম্মাননা স্মারক তুলে দেয়া হয়।

Contact Form

Name

Email *

Message *

Powered by Blogger.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget