2019-12-08


জনপ্রিয় অনলাইন : বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধের প্রধান সেনাপতি বঙ্গবীর আতাউল গণি ওসমানীর ১০১তম জন্মদিন আজ। ১৯১৮ সালের ১ সেপ্টেম্বর সুনামগঞ্জে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। ওসমানীর আদি পুরুষের বাড়ি সিলেটের ওসমানীনগর উপজেলার দয়ামীরে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঠ শেষ করে ওসমানী তৎকালীন সেনাবাহিনীতে যোগ দেন। ১৯৩৯ সালে তিনি রয়্যাল আর্মড ফোর্সে ক্যাডেট হিসেবে যোগ দেন। দেরাদুনে ব্রিটিশ-ভারতীয় মিলিটারি একাডেমিতে প্রশিক্ষণ শেষে তিনি ১৯৪০ সালে ব্রিটিশ সেনাবাহিনীতে যোগ দেন কমিশনড অফিসার হিসেবে। ১৯৪২ সালে মেজর পদে উন্নীত হন।
১৯৪২ সালে ওসমানী ছিলেন ব্রিটিশ সরকারের সর্বকনিষ্ঠ মেজর। ১৯৫৬ সালে তিনি কর্নেল পদমর্যাদা লাভ করেন এবং সেনাবাহিনীর হেডকোয়ার্টারের জেনারেল স্টাফ অ্যান্ড মিলিটারি অপারেশনের ডেপুটি ডিরেক্টরের দায়িত্ব পান। পাকিস্তান সেনাবাহিনী থেকে ১৯৬৭ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারি অবসর গ্রহণ করেন।
১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ শুরু হলে ওসমানী সীমান্ত পেরিয়ে ভারতে প্রবেশ করেন। একাত্তরের ১১ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দীন আহমদ স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রে ভাষণ দেন। ওই ভাষণে তিনি বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর অবকাঠামো গঠনের কথা উল্লেখ করে এম এ জি ওসমানীকে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর প্রধান সেনাপতি হিসেবে ঘোষণা দেন।
১৯৭১ সালের ১৭ এপ্রিল গঠিত হয় মুজিবনগর সরকার, ওসমানীকে করা হয় মুক্তিবাহিনীর প্রধান সেনাপতি।
ক্যানসারে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসার্থে লন্ডন থাকাকালীন ১৯৮৪ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারি এম এ জি ওসমানী মৃত্যুবরণ করেন। তাকে পূর্ণ সামরিক মর্যাদায় সিলেটে সমাহিত করা হয়।


জনপ্রিয় অনলাইন : নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন নিয়ে ভারতকে কড়া বার্তা দিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। বৃহস্পতিবার দেশটির পররাষ্ট্র দফতর থেকে এ বার্তা দেয়া হয়।পররাষ্ট্র দফতরের মুখপাত্র বলেন, নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল ঘিরে কী কী ঘটছে, সেদিকে নজর রেখেছি আমরা। ধর্মীয় স্বাধীনতা এবং সবার সমানাধিকারই আমাদের দুই গণতন্ত্রের মৌলিক নীতি। ভারতের কাছে মার্কিন সরকারের আর্জি, সংবিধান এবং গণতান্ত্রিক মূল্যবোধের কথা মাথায় রেখে তারা যেন দেশের ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের অধিকার রক্ষা করে।

প্রতিবেশী দেশ পাকিস্তান, আফগানিস্তান ও বাংলাদেশ থেকে আসা অমুসলিম অনুপ্রবেশকারীদের ভারতের নাগরিকত্ব দিতে গত সোমবার লোকসভায় নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল (সিএবি) পাস করা হয়। পরে বুধবার রাজ্যসভাতেও তা পাস হয়ে যায়। বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে তাতে সই করেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ।কলকাতার প্রভাবশালী গণমাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শুরু থেকেই এই বিলের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়ে আসছে মার্কিন কংগ্রেসের একটি অংশ।
জাতীয় নাগরিকপঞ্জির (এনআরসি) পর দেশের সংখ্যালঘুকে নিশানা করতে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ভাবে মোদি সরকার নাগরিক সংশোধনী বিল এনেছে বলে দাবি তাদের। তা নিয়ে সপ্তাহের শুরুতেই নরেন্দ্র মোদি-অমিত শাহদের বিরুদ্ধে সরব হয় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আন্তর্জাতিক ধর্মীয় স্বাধীনতা সংক্রান্ত কমিশন (ইউএসসিআইআরএফ)।
তারা জানায়, নাগরিকত্ব দেওয়ার ক্ষেত্রে ধর্মীয় মানদণ্ড বেঁধে দেওয়ার সিদ্ধান্ত অত্যন্ত বিপজ্জনক। সংসদের দুই কক্ষে বিলটি পাস হলে অমিত শাহসহ দেশের শীর্ষস্থানীয় নেতাদের ওপর নিষেধাজ্ঞা চাপানো উচিত বলে, মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের কাছে সুপারিশও করে তারা।


আফাজ জনিঃ তরুনদের সংগঠন ভয়েস অব বার্সেলোনা; সময়ের পরিক্রমায় সংগঠনের পরিধি আরোও উন্মুক্ত করতে ভয়েস অব বার্সেলোনার  শান্তাকলমা শাখা কমিটি ঘোষনা করা হয়।
সভাপতি সামছুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন এবং মুরাদ আহমেদ মুন্নাকে সাংগঠনিক সম্পাদক করে তিন সদস্য বিশিষ্ট কমিটির নাম ঘোষনা করেন নেতৃবৃন্দ।

গত ৮ই ডিসেম্বর রোজ রবিবার সন্ধায় শান্তাকলমার স্থানীয় একটি রেষ্ট্রুরেন্টে অনুষ্ঠিত হয় এ সভা। ভয়েস অব বার্সেলোনার সভাপতি ফয়সল আহমদের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক এ আর লিটুর পরিচালনায় এ সময় অন্যানের মধ্যে ক্লাবের উপদেষ্টা সুমন আহমদ,  উপদেষ্টা কাজী আমির হোসেন আমু, সিনিয়র সহ সভাপতি জুয়েল আহমদ, মামুন রহমান, শফিক উদ্দিন, ময়েজ উদ্দিন, মোহন আহমদ, আজমল আলী, জসিম উদ্দিন, স্থানীয় নেতৃবৃন্দ সহ ভয়েস অব বার্সেলোনার সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। নবগঠিত কমিটিকে অভিনন্দন জানানোর পাশাপাশি পূর্ণাঙ্গ কমিটি পরবর্তি তিন মাসের মধ্যে গঠন করার তাগিদও প্রদান করেন ক্লাবের সিনিয়র নেতৃবৃন্দ।
উল্লেখ্য, ২০১৫ সালে গঠন হওয়া ভয়েস অব বার্সেলোনা ইতিমধ্যে তাদের কর্মকান্ডে বার্সেলোনা তথা ইউরোপে বেশ পরিচিত।

ফয়ছল আহমেদ,বার্সেলোনা : স্পেনের পর্যটন নগরী বার্সেলোনার মাদারীপুর জেলা সমিতির নতুন কমিটি গঠিত হয়েছে।
গত ১০ই ডিসেম্বর রোজ মঙ্গলবার বার্সেলোনার স্থানীয় একটি রেষ্ট্রুরেন্টে আয়োজিত সমিতির আহ্বায়ক কমিটির সভায় ২০১৯-২০২১ সালের জন্য কমিটি গঠন করা হয়।
উপস্থিত আহবায়কদের প্রচেষ্ঠায় সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশে এ সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সর্বসম্মতিক্রমে শামীম হাওলাদার কে পূনরায় সভাপতি, তৌহিদুজ্জামান সহজকে সাধারণ সম্পাদক এবং রানা খানকে সাংগঠনিক সম্পাদক করে কমিটি ঘোষনা করা হয়।
এ সময়  আহ্বায়কদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন নুরুল ইসলাম, ফয়সল আহমেদ, তৌহিদুজ্জামান সহজ, শামীম হাওলাদার, আতাউর রহমান শাহীন, এনায়েত ঢালী, আবু জাফর মাসুদ, সোহেল আহমদ, রানা খান প্রমূখ।


সভায় নেতৃবৃন্দ নবগঠিত কমিটিকে শুভেচ্ছা জানানোর পাশাপাশি  শিগগিরই নতুন কমিটিকে অভিষেক অনুষ্ঠানের  মাধ্যমে পূর্নাজ্ঞ কমিটি ঘোষনা করার তাগিদ প্রদান করেন।


কবির আল মাহমুদ,মাদ্রিদ : স্পেন সরকারের নথিভুক্ত ঢাকা জেলা এসোসিয়েশন ইন স্পেনের ২০২০-২১ সালের নতুন কমিটি গঠন করা হয়েছে। ৫১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটির সভাপতি হিসেবে পুন:নির্বাচিত হয়েছেন মোঃ শাহ আলম, সাধারণ সম্পাদক পদে পূণরায় এস এম. মাসুদুর রহমান, সিনিয়র সহ সভাপতি পদে রুবেল সামাদ, যুগ্ম সম্পাদক পদে মোঃ রনি রঞ্জু এবং সাংগঠনিক সম্পাদক পদে আবু বাক্কারকে নির্বাচিত করা হয়।

গত ৮ই ডিসেম্বর স্পেনের রাজধানী মাদ্রিদের বাংলাদেশ এসোসিয়েশন ইন স্পেন’র হলে এক সাধারন সভায় এ কমিটি গঠন করা হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের প্রধান উপদেষ্টা হাজী আজিজুল হক খালেক। পরিচালনা করেন অন্যতম উপদেষ্টা এস এম আহমেদ মনির। এ সময়ে উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ইফতেখার আহমেদ লিটন মোল্লা, মাহবুব, ইনসাফ সুমন ভূঁইয়া, সরফরাজ নেওয়াজ বাবু, নুরুল আমীন ও মো: নুরুল হক। সংগঠনকে গতিশীল ও আদর্শ সংগঠন করার পরামর্শ দিয়ে বক্তব্য রাখেন, রুবেল সামাদ, আবু বক্কর, আরজু মিয়া, আব্দুল মন্নান, আজহার মুন্না, আশরাফুল আলম, রনি রঞ্জু ভূঁইয়া, নাদিম সালেহ, মাজহারুল ইসলাম, রাজিবুল করিম তালুকদার,মোঃ শাকিল,রুবেল মিয়া,মোঃ হোসেন আলী, নাদিম হোসেন প্রমুখ। উপস্থিত উপদেষ্টামন্ডলী ও সদস্যদের দীর্ঘ আলোচনার পর সকলের সর্বসম্মতিত্রুমে আগামি ২০২০-২১ সালের পূণাঙ্গ কমিটি গঠন করা হয়।
সভায় প্রধান উপদেষ্টা হাজী আজিজুল হক খালেক নতুন কমিটি গঠনে সহায়তার জন্য উপস্থিত সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, দেশ ও প্রবাসে ঢাকা জেলাবাসীর কল্যাণে আমরা এক ও অভিন্ন।ঢাকা জেলাবাসীর স্বার্থে সংকীর্ণমণতার উর্ধে পারস্পারিক ভ্রাতৃত্ববন্ধন সৃষ্টি আহবান জানান এবং নতুন প্রজন্মের কাছে ঢাকার ঐতিহ্যকে তুলে ধরার অঙ্গিকার ব্যক্ত করেন।
পুন:নির্বাচিত সভাপতির বক্তব্যে মোঃ শাহ আলম তাকে পূণরায় দায়িত্বের জন্য সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, নতুন কমিটির সকলেই অত্যন্ত আন্তরিকভাবে সংগঠনের আগামী দিনে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য কাজ করে যাবে। আমাদের একটি বলিষ্ঠ টিম তৈরী হয়েছে। আমরা একে অন্যের বিপদ–আপদে সংগঠনের প্রয়োজনে যার যা দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করার চেষ্টা করবো। তিনি সংগঠনের কল্যাণে সহমর্মিতার মানসিকতা নিয়ে সকলকে এগিয়ে আসার আহবান জানান।
নতুন কমিটির পূণরায় নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক এস এম.মাসুদুর রহমান তার বক্তব্যে প্রবাসের বুকে দেশের এবং ঢাকার সুনামকে ধরে রাখতে সকলের সহযোগিতা কামনা করে বলেন, স্পেনে অবস্থানরত ঢাকা জেলার সকলের সাথে সুসম্পর্ক গড়ে তোলা ও পারস্পারিক সম্পর্ক দৃঢ় করতে এ সংগঠন কাজ করে যাচ্ছে।


ফয়জুল হক : গত ১৭ই নভেম্বর রোজ রবিবার বর্তমান প্রেক্ষাপটে উলামায়ে কেরাম ও মুসলমানদের দায়িত্ব ও করনীয় বিষয়ক ইসলামি সম্মেলন আয়োজন করে সিরতে মুস্তাক্বীম বার্সেলোনা। বার্সেলোনার দরুল আমাল মসজিদে তিনটি অধিবেশনে চলা সম্মেলনে শুরুতে পবিত্র কালাম থেকে তেলাওয়াত করেন হাফিজ মাওলানা ইমদাদুল হক্ব মাসউদ। সংগঠনের সভাপতি মাওলানা আব্দুল আহাদের সভাপতিত্বে কেন্দ্রীয় আহলে শুরা হাফিজ মাওলানা আব্দুল কাদির আল মাহদির পরিচালনায় শুরুতে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন শায়খ মাওলানা মুতিউর রাহমান। সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বৃটেনের বর্ষীয়ান আলেমে দ্বীন শায়খ মাওলানা আসগর হোসাইন (লন্ডন) বলেন,তাক্বওয়ার মাধ্যমে মানুষ আল্লাহর নৈকট্য লাভ করে ও এই তাক্বওয়ার মাধ্যমে মানুষের ইহজগতের সকল সমস্যার সামাধানও হয়। যেটার প্রমান কোরআন হাদিসে বিদ্যমান। 
আর উলামায়ে কেরাম হচ্ছেন তাক্বওয়ার বিশেষ বৈশিষ্ট্যের অধিকারী। কাজেই তাক্বওয়া অর্জন করতে হলে আল্লাহর হুকুম মানার পাশাপাশি আল্লাহ ওয়ালা উলামাদের সানিধ্য একান্ত জরুরী। সম্মেলনে বিশেষ অতিথির হিসেবে আলোচনা পেশ করেন,রাহমানিয়া তালীমুল কোরআনের প্রিন্সিপাল হাফিজ মাওলানা সালেহ আহমদ (বার্মিংহাম),তাক্বওয়া মসজিদ ও ইসলামিক সেন্টারের চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার মাওলানা বদরুল হক্ব (বার্মিংহাম) ও মাশক্ব ও তেলাওয়াত ইক্বরা বাংলা টিভির পরিচালক ক্বারি মাওলানা মুদ্দাসির আনওয়ার (বার্মিংহাম)। বিশেষ অতিথির আলোচনায় আলোচকরা বলেন, আমরা আজ গীবত,শেকায়ত,অন্যায়,অনাচার,অন্যের উপর জুলুম ইত্যাদি ভিবিন্ন পাপাচারে লিপ্ত।কাজেই সমাজে শান্তি ভূলন্ঠিত হচ্ছে। তিনারা মানুষকে কোরআন হাদিসের আলোকে সমাজ বিনির্মানের আহবান করেন। যার মাধ্যমে সমাজের প্রত্যেক সেক্টরে আসল শান্তি আসবে ও আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জিত হবে। যেটা প্রত্যেক মুসলমানের দায়িত্ব ও কর্তব্য। উক্ত সম্মেলনে আরও আলোচনা পেশ করেন,সিরাতে মুস্তাক্বীমের কেন্দ্রীয় আহলে শুরা মাওলানা ইলিয়াছ আহমদ, মাওলানা আলিম উদ্দিন,মাওলানা আব্দুল মালিক,মাওলানা আজমুল ইসলাম সেলিম,হাফিজ মাওলানা মাসউদ আহমদ,মাওলানা জাহেদ আহমদ।
এ ছাড়া আরও উপস্তিত ছিলেন দারুল আমাল মসজিদ কমিটির জিম্মাদ্বার হাবিবুর রাহমান রাশেদ,আহলে শুরা মাসরুর আহমদ, মাওলানা বদরুল হক্ব, বার্সেলোনা সেন্টার দায়িত্বশীল, বিশিষ্ট কমিউনিটি নেতা সাদ উদ্দিন, মাওলানা সিব্বির আহমদ, বিশিষ্ট কমিউনিটি নেতা মুজিবুর রাহমান তুতা, বিশিষ্ট সংবাদিক লায়েবুর রাহমান লায়েক কমিউনিটি নেতা ফয়সল আহমদ প্রমুখ। উল্লেখ্য উক্ত সম্মেলনে কোরআন তেলাওয়াত, হামদ, নাত, ইসলামি সংগীত,ইসলাহি বয়ান,বায়’আত সহ ভিবিন্ন কর্মসূচী পরিবেশিত হয়। পরিশেষে প্রধান অতিথি শায়খ মাওলানা আসগর হুসাইন সাহেবের দু’আর মাধ্যমে সম্মেলনের সমাপ্তি করা হয়।
০০৩১৬৭৪০৪৬৪


কবির আল মাহমুদ,মাদ্রিদ :  স্পেনের রাষ্ট্রীয় ভাষা স্প্যানিশ হলেও বেশ কয়েকটি স্বীকৃত আঞ্চলিক ভাষা রয়েছে। তবে আঞ্চলিক ভাষার মধ্যে স্প্যানিশ বেশি প্রসিদ্ধ ও আদি ভাষা। এবার সেই স্প্যানিশ ভাষায় পবিত্র কোরআনে কারিমের অনুবাদের উদ্যোগ নিলেন বাংলাদেশ মসজিদ পরিচালনা কমিটির সাবেক সভাপতি জামাল উদ্দিন মনির। আর তার এই উদ্যোগকে বাস্তবায়নের জন্য এগিয়ে এসেছে ইসলামিক কালচারাল সেন্টার, মাদ্রিদ ও বায়তুল মোকাররম বাংলাদেশ মসজিদ পরিচালনা কমিটি। পবিত্র কোরআনে কারিম এর প্রকৃত বাণী অমুসলিম স্প্যানিশদের কাছে পৌঁছে দিতে এবং স্প্যানিশ ভাষায় বোঝার সুবিধার্থে তারা এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

আল কোরআন একাডেমী লন্ডনের মাধ্যমে স্প্যানিশ ভাষায় কোরআনের অনুবাদটি করবে। আল কোরআন একাডেমী দীর্ঘ দিন ধরে লন্ডনসহ বিভিন্ন দেশে পবিত্র কোরআন বিতরণের কাজ করে যাচ্ছে। বাংলা, ইংরেজি, উর্দু এবং অন্যান্য ভাষায় তরজমাসহ এ কোরআন বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বিতরণ করা হচ্ছে।
সোমবার (০৯/১২/২০১৯) এ উপলক্ষ্যে দেশটির রাজধানী মাদ্রিদের বাংলাদেশ এসোসিয়েশন ইন স্পেনর হলে এক আলোচনা সভা, নৈশভোজ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।
বায়তুল মোকাররম বাংলাদেশ মসজিদ পরিচালনা কমিটির সভাপতি খোরশেদ আলম মজুমদার এর সভাপতিত্বে আয়োজিত সভায় দৈনন্দিন জীবনে কুরআনুল করিমের গুরুত্ব তুলে ধরে মূল বক্তব্য দেন বায়তুল মোকাররম বাংলাদেশ মসজিদের খতিব শায়েখ হাসান বিন মোহাম্মদ উল্লাহ।
আল হূদা জামে মসজিদের খতিব মোহাম্মদ নুরুল সঞ্চালনায় সভায় আমন্ত্রিত অতিথিদের মধ্যে বক্তব্য দেন, বাংলাদেশ এসোসিয়েশন ইন স্পেনের সভাপতি কাজী এনায়েতুল করিম তারেক, সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান সুন্দর, বায়তুল মোকাররম বাংলাদেশ মসজিদ পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক হাজী আজিজুল হক খালেক, কমিউনিটি নেতা নূর হোসেন পাটোয়ারী, আবুল খায়ের, গ্রেটার ঢাকা এসোসিয়েশন ইন স্পেনের সভাপতি এম এইচ সোহেল ভূঁইয়া, মানবাধিকার সংগঠন ভালিয়েন্ত বাংলার সভাপতি মোঃ ফজলে এলাহী, ঢাকা জেলা এসোসিয়েশন ইন স্পেনের সাধারণ সম্পাদক এস এম মাসুদুর রহমান প্রমুখ।

সভাপতির বক্তব্যে খোরশেদ আলম মজুমদার বলেন, ইসলাম ধর্মকে সঠিকভাবে চেনা ও কোরআন সম্পর্কে যথার্থ জ্ঞানার্জনের ক্ষেত্রে ভিনদেশিদের ভাষা আমাদের ভাষা বিশাল এক প্রতিবন্ধক হিসেবে কাজ করছে। আমারা তা দূর করার চেষ্টা করছি মাত্র।
সভায় বক্তারা স্প্যানিশ ভাষায় পবিত্র কোরআনে কারিমের অনুবাদের এই মহতি উদ্যোগের প্রশংসা করেন এবং এব্যাপারে তাদের সার্বিক সহযোগিতা ও একাত্বতার কথা জানান। অনুষ্ঠানে লেখক, কবি, সাংবাদিকসহ কমিউনিটির বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গরা উপস্থিত ছিলেন। পরে নৈশভোজ ও দুআর মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি হয়।
১৪৯২ সালের ১ এপ্রিল। খ্রিষ্টানদের বিশ্বাসঘাতকতায় বলি হয় গ্রানাডার হাজার হাজার মুসলিম নারী-পুরুষ। নিরাপত্তার জন্য মুসলমানরা আশ্রয় নেয় মসজিদে। কিন্তু খ্রিষ্টানরা মসজিদে তালা লাগিয়ে আগুন ধরিয়ে দেয়। মুহূর্তেই পুড়ে ছাই হয়ে যায় মুসলমানরা। চিরতরে হারিয়ে যায় তাদের আটশত বছর স্পেন শাসনের গৌরবময় স্মৃতি। স্পেন থেকে মুছে যায় ইসলামের শেষ চিহ্ন টুকুও। এভাবে ফের স্পেন চলে যায় অমুসলিমদের হাতে।
অথচ, স্পেনে মুসলিম যুগকে প্রায়ই জ্ঞানচর্চার স্বর্ণযুগ বলা হয়। যেখানে গ্রন্থাগার, বিদ্যালয় ও হাম্মামখানা প্রতিষ্ঠিত হয়েছিলো, আর সেই সাথে বিকাশ লাভ করেছিলো সাহিত্য, কবিতা এবং স্থাপত্যকলা। মুসলিম এবং অমুসলিম উভয়ই এতে অবদান রেখেছিলো ব্যাপকভাবে।এখনও সেখানে অমুসলিমদের শাসন অব্যাহত। তবে দাওয়াত ও তবলিগের ফলে স্পেনের মানুষ ইসলামের সুশীতল ছায়ায় ক্রমেই আশ্রয় নিচ্ছে। দিন দিন তাদের সংখ্যা বৃদ্ধিই পাচ্ছে।

এক রিপোর্টে বলা হয়েছে, বর্তমানে স্পেনের সাড়ে চার কোটি জনসংখ্যার ৪.৫ ভাগ মুসলিম। ২০২৭ সালে স্পেনে মুসলিম জনসংখ্যা ৭ লাখে দাঁড়াবে, যা হবে জনসংখ্যার প্রায় ১৪ ভাগ। মুসলমানদের সংখ্যা উত্তরোত্তর বৃদ্ধির ফলে সেখানে নির্মিত হচ্ছে অধিক হারে মসজিদ-মাদ্রাসা। সরকার থেকেও পাচ্ছে সুযোগসুবিধা আর নিরাপত্তা। মুসলমানদের সংখ্যা এভাবে বৃদ্ধি পেলে একসময় হয়তো স্পেন আবার হয়ে উঠবে মুসলিম প্রধান দেশ।


নিউ ইয়র্ক থেকে সরওয়ার হোসেন : সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে সাধারণ সম্পাদক হিসেবে বিয়ানীবাজারের কৃতি সন্তান ও সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট নাসির উদ্দিন খাঁন সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হওয়ায় সোমবার সন্ধ্যায় নিউ ইয়র্কের ওজনপার্কের এভিনিউ হলে এক আড়ম্বরপূর্ণ আনন্দ উৎসব অনুষ্টিত হয়। প্রখর ঠান্ডা উপেক্ষা করে অনুষ্ঠানে আসা নেতাকর্মীগণ একে অপরকে মিষ্টি মুখ করিয়ে পরষ্পরের সাথে আনন্দ ভাগাভাগি করেন এবং একই সাথে সিলেট জেলা ও বিয়ানীবাজার উপজেলায় দূর্ণীতিমুক্ত, পরিচ্ছন্ন, হিংসা-হানাহানীমুক্ত সৃষ্টিশীল রাজনৈতিক পরিবেশ বাস্তবায়নে নির্বাচিত নেতৃবৃন্দের প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানান। অনুষ্ঠানে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও কমিউনিটি নেতৃবৃন্দেরও উপস্থিতি ঘটে।
বিশিষ্ট কমিউনিটিনেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা মোজাহিদুল ইসলামের সভাপতিত্বে এবং নিউ ইয়র্কস্থ বিয়ানীবাজার সোসাইটির সাবেক সভাপতি মোস্তফা কামালের পরিচালনায় অনুষ্টিত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সোসাইটির সভাপতি কামাল আহমদ, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিয়ানীবাজার উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ সভাপতি ময়নুল ইসলাম, নাজিম উদ্দিন, সাবেক যুব ও ক্রিড়া বিষয়ক সম্পাদক নজরুল ইসলাম, সমাজসেবী মোস্তফা উদ্দিন, প্রবীন আওয়ামীলীগ নেতা হাজী মৌলা উদ্দিন, অনুষ্টানের অন্যতম উদ্যোক্তা বীর মুক্তিযোদ্ধা আজিজুর রহমান সাবু, মহি উদ্দিন, ময়না উদ্দিন, আলাল উদ্দিন, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগনেতা সামসুল আবেদীন, নজরুল ইসলাম চৌধুরী প্রমূখ। এছাড়াও বক্তব্য রাখেন বিয়ানীবাজার উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হাছিব, সাবেক ছাত্রনেতা ফারুকুল হক, যুবনেতা জিএস ফারুকুল হক, আব্দুল আলিম, সাব্বির উদ্দিন, দেলোয়ার হোসেন, ছরওয়ার হোসেন, শাহাজান মুন্না, আব্দুশ শুকুর প্রমূখ। অনুষ্টানে সঙ্গীত পরিবেশন করেন শিল্পী আব্দুল আলিম।
বক্তাগণ, সিলেট জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে একজন পরিচ্ছন্ন রাজনীতির মূর্ত প্রতিক এ্যাডভোকেট নাছির উদ্দিন খানকে নির্বাচনের জন্য জাতির জনক বঙ্গবন্ধুকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনাকে শ্রদ্ধাভরে অভিনন্দন জ্ঞাপন করেন।
বক্তাগণ বঙ্গবন্ধুর আদর্শের কান্ডারী হিসেবে আপন কর্মকান্ডের মহীমায় বঙ্গবন্ধুর কন্যার আস্থার প্রতি যথাযত মূল্যায়ন নিশ্চিতের জন্য এ্যাডভোকেট নাসির উদ্দিন খাঁনকে আহ্বান জানান। বক্তাগণ যে কোন দূর্যোগ দূর্বিপাকে বরাবরের মতো বঙ্গবন্ধু কন্যার পাশে থাকার দৃঢ় অঙ্গীকার ব্যাক্ত করেন। একই সাথে একটি সুখি সুন্দর প্রগতিশীল বাংলাদেশ প্রতিষ্টায় বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ ও বর্তমান সরকারকে দৃঢ় হস্তে দূর্ণীতিবিরোধী অভিযান পরিচালনা অব্যাহত রাখতে আকুল আহ্বান জানান।

Contact Form

Name

Email *

Message *

Powered by Blogger.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget