2019-03-10


জনপ্রিয় অনলাইন : আজ ১৭ মার্চ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৯তম জন্মবার্ষিকী ও শততম জন্মদিন। জাতি যথাযোগ্য মর্যাদা ও উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে রাষ্ট্রীয়ভাবে দিবসটি উদযাপন করবে। দিনটিকে জাতীয় শিশু-কিশোর দিবস হিসেবে পালন করা হবে। দিনটিকে সরকারি ছুটির দিন হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দিবসটি উপলক্ষে পৃথক বাণী দিয়েছেন।
এ উপলক্ষে বঙ্গবন্ধুর জন্মস্থান টুঙ্গিপাড়াতেও প্রতিবারের মতো কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রবিবার দশটায় টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিতে শ্রদ্ধার্ঘ্য অর্পণসহ আলোচনাসভা ও মিলাদ মাহফিলে অংশ নেবেন। এছাড়াও সেখানে সরকারিভাবে পালিত নানা কর্মসূচিতে অংশ নেবেন প্রধানমন্ত্রী।

যথাযোগ্য মর্যাদায় দিবসটি পালনের লক্ষ্যে আওয়ামী লীগ এবং এর সহযোগী সংগঠনগুলো বিস্তারিত কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে সকাল ৬টা ৩০ মিনিটে বঙ্গবন্ধু ভবন ও দেশব্যাপী দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন। সকাল ৭টায় বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধার্ঘ্য অর্পণ এবং পরের দিন ১৮ মার্চ বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হবে আলোচনা সভা। এতে সভাপতিত্ব করবেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা।
এদিকে বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন পালনে রাষ্ট্রীয়ভাবে ব্যাপক কর্মসূচি হাতে নেওয়া হয়েছে। দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কেক কাটা, চিত্রাঙ্কন ও বঙ্গবন্ধুর কর্মময় জীবনের ওপর আলোকপাত করে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে। উপজেলা ও জেলা প্রশাসনসহ সরকারি, আধা সরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানে অনুরূপ কর্মসূচি হাতে নেওয়া হয়েছে।
স্বাধীন বাংলাদেশের মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু  তাঁর জীবদ্দশায় জন্মদিন উপভোগের খুব একটা সুযোগ পাননি। কারণ, সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্ন বয়ে বেড়ানো সর্বকালের সেরা এই বাঙালির বেশিরভাগ জন্মদিন কেটেছিল কারাগারে। পাকিস্তানবিরোধী আন্দোলনে নেতৃত্ব দিতে গিয়ে বঙ্গবন্ধুকে প্রায় ১৩ বছরের মতো কারাগারে কাটাতে হয়। তিনি মোট ৪ হাজার ৬৮২ দিন জেলে কাটিয়েছেন। বিভিন্ন দফায় কারাগারে থাকাকাল তাঁর ৮টি জন্মদিন কারাগারেই কেটেছে।
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯২০ সালের এই দিনে তদানীন্তন ভারত উপমহাদেশের পূর্ববঙ্গ প্রদেশের অন্তর্ভুক্ত ফরিদপুর জেলার গোপালগঞ্জ মহকুমার টুঙ্গিপাড়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর বাবার নাম শেখ লুৎফর রহমান এবং মাতার নাম সায়েরা খাতুন। পরিবারের চার কন্যা এবং দুই পুত্রের সংসারে শেখ মুজিবুর রহমান ছিলেন তাঁদের তৃতীয় সন্তান। সেদিনের টুঙ্গিপাড়ার অজপাড়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করা ‘খোকা’ নামের সেই শিশুটি পরবর্তীতে হয়ে উঠেন নির্যাতিত-নিপীড়িত বাঙালি জাতির মুক্তির দিশারী। গভীর রাজনৈতিক প্রজ্ঞা, আত্মত্যাগ ও জনগণের প্রতি অসাধারণ মমত্ববোধের কারণেই পরিণত বয়সে হয়ে ওঠেন বাঙালি জাতির অবিসংবাদিত নেতা বঙ্গবন্ধু। কিশোর বয়সেই তিনি সক্রিয় রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়েন। গোপালগঞ্জের মিশন স্কুলে অষ্টম শ্রেণিতে অধ্যয়নকালে তৎকালীন ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলনে যোগদানের কারণে শেখ মুজিবুর রহমান প্রথমবারের মতো গ্রেফতার হয়ে কারাবরণ করেন। এরপর থেকে শুরু হয় বঙ্গবন্ধুর আজীবন সংগ্রামী জীবনের অভিযাত্রা। বঙ্গবন্ধু তাঁর সহকর্মীদের নিয়ে ১৯৪৮ সালে ছাত্রলীগ এবং পরবর্তীতে ১৯৪৯ সালে আওয়ামী লীগ গঠন করেন। ১৯৪৭-এ দেশ বিভাগ ও স্বাধীনতা আন্দোলন, ’৫২-এর ভাষা আন্দোলন, ’৫৪-এর যুক্তফ্রন্ট নির্বাচন, ’৬২-এর শিক্ষা আন্দোলন, ’৬৬-এর ছয় দফা আন্দোলন, ’৬৯-এর গণঅভ্যুত্থান পেরিয়ে ’৭০ সালের ঐতিহাসিক নির্বাচনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাঙালি জাতির অবিসংবাদিত নেতা হিসেবে পরিণত হন। বাংলাদেশের মুক্তি সংগ্রামের প্রতিটি অধ্যায়ে বঙ্গবন্ধুর নাম চির ভাস্বর হয়ে আছে। ১৯৭১ সালের ২৬ মার্চের প্রথম প্রহরে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর হাতে গ্রেফতার হওয়ার পূর্বে তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে বাংলাদেশের স্বাধীনতা ঘোষণা করেন। এর আগে ৭ মার্চ তৎকালীন রেসকোর্স মাঠে এক ঐতিহাসিক ভাষণের মধ্যে দিয়ে স্বাধীনতার ডাক দেন বাঙালি জাতির প্রিয় নেতা বঙ্গবন্ধু। বঙ্গবন্ধু নির্দেশনায় দীর্ঘ ৯ মাস সংগ্রামের পর বাংলাদেশ স্বাধীন হয়। পাকিস্তানের কারাগার থেকে মুক্তি পেয়ে দেশে ফিরে হাল ধরেন তিনি। শুরু করেন অর্থনৈতিক মুক্তির জন্য নতুন সংগ্রাম। যুদ্ধ বিধ্বস্ত বাংলাদেশ তাঁর নেতৃত্বে যখন মাথা তুলে দাঁড়াতে শুরু করল, ঠিক সেই সময় দেশের ইতিহাসে নেমে এলো এক অমানিশার অন্ধকার। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের কালোরাত্রিতে বিশ্বাসঘাতকদের তপ্ত বুলেটে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সপরিবারে নিহত হন।


জনপ্রিয় অনলাইন : নিউ জিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের দুটি মসজিদে হামলার কয়েক ঘণ্টা পর লন্ডনেও এক মুসলিমের ওপর হামলার ঘটনা ঘটেছে।পূর্ব লন্ডনের একটি মসজিদের বাইরে হাতুড়ি ও ব্যাটেন নিয়ে এক মুসলিমের ওপর চড়াও হন অজ্ঞাত কয়েক ব্যক্তি। শনিবার বিট্রেনের দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্ট জানিয়েছে, পূর্ব লন্ডনের একটি মসজিদের পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় চিৎকার করে ইসলামবিরোধী কথাবার্তা বলছিল তিন ব্যক্তি। তারা শুক্রবারের জুমার নামাজে অংশ নেয়া মুসল্লিদের সন্ত্রাসী বলে চিৎকার করছিল।
এ সময় কয়েকজন ওই গাড়িটি ধাওয়া করলে তারা এক ব্যক্তির ওপর হাতুড়ি নিয়ে হামলা চালায়। এতে ২৭ বছরের এক যুবক মাথায় আঘাত পেয়েছেন।

লন্ডনের মেট্রোপলিটন পুলিশের মুখপাত্র জানিয়েছেন, পুলিশ সদস্যরা সেখানে পৌঁছানোর আগেই হামলাকারীরা গাড়ি নিয়ে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। এর আগে দু'পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, ওই হামলাকারীরা শ্বেতাঙ্গ এবং তাদের বয়স ২০ থেকে ৩০ -এর মধ্যে। পুলিশ জানিয়েছে, এ বিষয়ে তদন্ত চলছে। তবে কি কারণে ওই হামলা চালানো হয়েছে তা  নিশ্চিত নয়। নিউ জিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের আল নুর মসজিদে স্থানীয় সময় বেলা দেড়টার দিকে জুমার নামাজের সময় স্বয়ংক্রিয় রাইফেল নিয়ে হামলা চালান টারান্ট নামে অস্ট্রেলিয়ার এক যুবক। এতে অল্পের জন্য বেঁচে যান বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সদস্যরা। কাছাকাছি লিনউড মসজিদে দ্বিতীয় দফায় হামলা চালানো হয়।
দুই মসজিদে হামলায় নিহত হয় ৪৯ জন। এর মধ্যে আল নুর মসজিদে ৪১ জন ও লিনউড মসজিদে সাতজন নিহত হন। আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি হন ৪০ জন। নিহতদের মধ্যে তিন বাংলাদেশিও রয়েছেন।
নিউ জিল্যান্ডে ওই হামলার পর শুক্রবার ব্রিটেনে মসজিদগুলোর বাইরে সতর্ক অবস্থান নেয় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। পুরো দেশজুড়ে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়।


জনপ্রিয় অনলাইন : ইউরো ২০২০’র জন্য অন্যদের মতো প্রস্তুতি শুরু করতে যাচ্ছে স্পেন। মাল্টা ও নরওয়ের বিপক্ষে দুটি বাছাইপর্বের ম্যাচের জন্য দল ঘোষণা করেছে লা রোজারা। ওই দুটি ম্যাচে লুইস এনরিকের ঘোষিত দলে ডাক পেয়েছেন অপ্রতাশিত আট ফুটবলার।
আসন্ন দুটি বাছাইপর্বের ম্যাচে দলে নেওয়া হয়নি রিয়াল মাদ্রিদের তারকা ফুটবলার ইস্কোকে। তবে গুরুত্বপূর্ণ এ টুর্নামেন্টের আগে অন্যদের যাচাই-বাছাই করে দেখতেই অনেক নতুন মুখকে দলে ডেকেছেন স্প্যানিশ কোচ।

সার্জিও গোমেজ, বের্নাত, ফ্যাবিয়ান, পেরেজো, জেসাস নাভাস, মুনিয়াইন, ক্যানালেস ও জাইমে মাতার মতো তরুণ ফুটবলাররা পুরো মৌসুমে আলো ছড়িয়েছেন। ক্লাবের পর আন্তর্জাতিক ম্যাচে তাদের পরখ করতেই স্পেন স্কোয়াডে নিয়েছেন কোচ এনরিক নেশনস লিগের চূড়ান্ত পর্যায়ে খেলবে স্পেন। মূলপর্বে ইংল্যান্ড, নেদারল্যান্ডস, পর্তুগাল ও সুইজারল্যান্ডের মতো শক্তিশালী দলের বিপক্ষে খেলবে ২০১০ বিশ্বকাপজয়ী স্পেন। এর আগে দলের তরুণদের সক্ষমতা যাচাইয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বার্সেলোনার প্রাক্তন কোচ এনরিক।
অন্যদিকে দানি সেবায়োস ও মার্কো অ্যাসেনসিওর মতো খেলোয়াড়রা রিয়াল মাদ্রিদ স্কোয়াডে নিয়মিত ডাক না পেলেও স্পেন দলে রয়েছেন। এছাড়া আগের স্কোয়াড থেকে অপরিবর্তিত রয়েছেন স্পেনের তিন গোলরক্ষক।

Contact Form

Name

Email *

Message *

Powered by Blogger.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget