2018-01-07

কবির আল মাহমুদ,মাদ্রিদ: বিয়ানীবাজার উপজেলার অালীনগর ইউনিয়ন অডিটরিয়ামে গত শনিবার সকাল ১১টায় দারুস সালাম ফাউন্ডেশনের বৃত্তি বিতরণ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।
এতে সভাপতিত্ব করেন দারুস সালাম ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান মোহাম্মাদ আপ্তার উদ্দিন। ফাউন্ডেশনের সদ্য সচিব জায়েদ আহমদ এর সঞ্চালনায় অয়োজিত বৃত্তি বিতরণ অনুষ্টানে প্রধান অতিথি ছিলেন প্রবাসী আলীনগর ইউনিয়ন সমিতি (ইউকে) এর সভাপতি মঞ্জুরুস সামাদ চৌধুরী মামুন। প্রধান বক্তা ছিলেন ১নং আলীনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মামুনুর রশিদ মামুন।
মোয়াজ মোহাম্মদ আবেদীন এর কোরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে শুরু হওয়া অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন আজাদ চৌধুরী একাডেমীর প্রতিষ্টাতা এ.কে আজাদ চৌধুরী, আলীনগর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও ইউপি সদস্য এম. মনিরুজ্জামান মনির, আজাদ চৌধুরী, সিলেট মহানগর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুব চৌধুরী, আজাদ চৌধুরী একাডেমীর প্রধান শিক্ষক খায়রুল বাশার চৌধুরী আহবান, ইউপি সদস্য ও দারুস সালাম ফাউন্ডেশনের উপদেষ্টা মামুন আহমদ, বিশিষ্ট সমাজ সেবক আহমেদুর রহমান খান হিনুু, আলীনগর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি ও ফাউন্ডেশনের উপদেষ্টা আব্দুল কাদির,আলীনগর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক ও উপদেষ্টা এনামুল হক এসাম, সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন।
অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন , দারুস সালাম ফাউন্ডেশনের সদস্য আশরাফ উজ জামান আকাশ। দারুস সালাম ফাউন্ডেশনের বৃত্তি বিতরণ ও দোয়া মাহফিলে উপস্থিত ছিলেন, শেওলা ইউনিয়ন পরিষদের সচিব আবুল কাশেম দুলাল, ফুলমলিক সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বিলাল আহমদ, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সদস্য জাহাঙ্গির আলম চৌধুরী জাবেদ, জাতীয় তরুণ সংঘ বিয়ানীবাজার উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান, গোলাপগঞ্জ সাংবাদিক কল্যাণ সমিতির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার মোঃ বদরুল আলম, গোলাপগঞ্জ অনলাইন প্রেসক্লাবের ক্রিয়া বিষয়ক সম্পাদক মোঃ রুবেল আহমদ, উত্তর ভাগ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কাওসার আহমদ, মাস্টার নজরুল ইসলাম সহ আরো অনেকে। উক্ত বৃত্তি বিতরণ অনুষ্টান শেষে প্রবাসী আলীনগর ইউনিয়ন সমিতি (ইউকে) সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আব্বাসউজ জামান এর পিতা মরহুম নুর উজ জামান এর সপ্তম মৃত্যু বার্ষীকিতে মরহুমের আত্মার মাগফেরাত ও সকলের কল্যাণ কামনা করে দোয়া পরিচালনা করেন মৌলানা ওবায়দুল্লাহ জহির। অনুষ্ঠানে আলীনগর ইউনিয়নে একটি কারিগরি কলেজ প্রতিষ্ঠার ঘোষণা এবং সমাজ সেবা ও শিক্ষার উন্নয়নে অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে মন্জুরুস সামাদ চৌধুরী মামুনকে দারুস-সালাম ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে সংবর্ধনাও একটি সম্মাননা ক্রেস্ট উপহার দেয়া হয়।

জনপ্রিয় অনলাইন : সৌদি আরবের পশ্চিমাঞ্চলীয় জিজান প্রদেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে সড়ক দুর্ঘটনায় ১০ বাংলাদেশি নিহতের খবর প্রচারিত হলেও এখন তা ৭ জন বলে নিশ্চিত করেছে দেশটির বাংলাদেশ দূতাবাস। দূতাবাসের জেদ্দা কনস্যুলেটের কনসাল জেনারেল এফ এম বোরহানউদ্দিন রবিবার বিকালে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

শনিবার সকালের ওই দুর্ঘটনায় এ পর্যন্ত (বাংলাদেশ সময় বিকাল ৫টা ২০ মিনিট) ৭ জন বাংলাদেশি নিহত হয়েছেন। এছাড়াও ১৩ জন আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। তবে আহতদের মধ্যে ৪ জনের অবস্থা গুরুতর। ওই দুর্ঘটনায় মোট ২০ জন বাংলাদেশি হতাহত হন।
তিনি বলেন, ঘটনাস্থল জেদ্দা থেকে অনেক দূরে এবং প্রত্যন্ত এলাকায় হওয়ায় সঠিক তথ্য পেতে আমাদেরও খুব অসুবিধা হচ্ছে। অন্যান্য মাধ্যমে এবং গণমাধ্যমের খবর শুনে আমরাও দুপুর পর্যন্ত ১০ জন নিহত হওয়ার কথা বলেছি। দূতাবাস থেকে এ বিষয়ে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিও দেওয়া হয়েছে। কিন্তু, পরে আমরা নিশ্চিত হতে পেরেছি ওই দুর্ঘটনায় এখন পর্যন্ত ৭ জন মারা গেছেন। আর বাকি ১৩ জন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এদের মধ্যে ৪ জনের অবস্থা গুরুতর।
তিনি আরও জানান, ঘটনাস্থল জেদ্দা থেকে সাড়ে ৮০০ কিলোমিটার দূরে। জায়গাটি দুর্গম। আমাদের বিভিন্ন মাধ্যমে সংবাদ সংগ্রহ করতে হচ্ছে। তাই তথ্যে ঝামেলা হয়েছে। রিয়াদ থেকে দিনে মাত্র একটি ফ্লাইট জিজান এলাকায় যায়। আমাদের প্রতিনিধিরা ওই ফ্লাইটে ঘটনাস্থলের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছে। পুরো তথ্য পেতে সময় লাগবে।
নিহতদের মরদেহ দেশে পাঠানো হবে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, নিহতদের পরিবার চাইলে তাদের মরদেহ দেশে পাঠানো হবে। তবে এ বিষয়ে কিছু প্রক্রিয়া রয়েছে যেমন সৌদি আরবের শ্রম মন্ত্রণালয়ের অনুমতি লাগবে, মরদেহগুলোর ময়নাতদন্ত করতে হবে। এ প্রতিবেদন হাতে পেতে হবে। এসব প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে কয়েকদিন দেরি হতে পারে।
নিহতরা ক্ষতিপূরণ পাওয়ার অধিকার রাখেন কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, যদি মৃত ব্যক্তিরা এ দুর্ঘটনার জন্য দায়ী না হয়ে থাকেন এবং তারা যদি আইনগতভাবে দেশটিতে অবস্থান করে থাকেন তবে তারা ক্ষতিপূরণ পেতে পারেন। তবে দুর্ঘটনাটি কার কারণে ঘটেছে সেটি জানতে আমাদের ট্রাফিক রিপোর্টের জন্য অপেক্ষা করতে হবে।

উল্লেখ্য, গতকাল শনিবার (৬ জানুয়ারি) সকাল ৮টায় জিজান প্রদেশের ওই ওলাকায় একটি ট্রাকে করে ২০ বাংলাদেশি কাজে যাচ্ছিলেন। পথে পেছন থেকে একটি গাড়ি তাদের ধাক্বা দিলে এ দুর্ঘটনা ঘটে। দুর্গম এলাকা হওয়ায় তথ্যটি গণমাধ্যমে প্রচারিত হতে অনেক দেরি হয়ে যায়। বাংলাদেশ দূতাবাসও খবরটি আজ রবিবার পেয়েছে।

জনপ্রিয় অনলাইন : প্রয়াত মন্ত্রী ছায়েদুল হক ও সংসদ সদস্য গোলাম মোস্তফা ব্যক্তি জীবনে সততা, নিষ্ঠা ও একাগ্রতার জন্য মানুষের হৃদয়ে জায়গা করে নিয়েছেন বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, রাজনীতিবিদরা সৎ, নিষ্ঠাবান হলে দেশের উন্নতি হয়। রবিবার সংসদ অধিবেশনে শোকপ্রস্তাবের ওপর বক্তব্য দেওয়ার সময় তিনি এই মন্তব্য করেন।

প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের পর সংসদে শোকপ্রস্তাব গৃহীত হয়। এরপর এক মিনিট নীরবতা পালন ও দোয়া মোনাজাত করা হয়। 
শোক প্রস্তাবের ওপর আলোচনায় মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী ছায়েদুল হককে স্মরণ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ছায়েদুল হকের মতো একজন সৎ ও নিষ্ঠাবান মন্ত্রী পেয়েছিলাম। তিনি দক্ষতা ও সততার সঙ্গে মন্ত্রণালয় চালিয়ে দেশের উন্নয়নে ব্যাপক অবদান রেখেছেন। দেশের মৎস্য সম্পদ উন্নয়নে তার ভূমিকা রয়েছে।
জনপ্রিয়তার কারণে ২০০১ সালের ষড়যন্ত্রের নির্বাচনেও ছায়েদুল হক সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ২০০১ সালে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সব ধরনের প্রচেষ্টা করেও নির্বাচনে তাকে হারাতে পারেনি। সংসদ সদস্য গোলাম মোস্তফাকে স্মরণ করে তিনি বলেন, গোলাম মোস্তাফা তৃণমূলের নেতা ছিলেন। তিনি স্কুলে শিক্ষাকতা করতেন। প্রত্যন্ত অঞ্চলে পড়ে থেকে সব সময় আওয়ামী লীগের জন্য কাজ করতেন।

শোক প্রস্তাবের ওপর আরও বক্তব্য রাখেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম, ডেপুটি স্পিকার অ্যাডভোকেট ফজলে রাব্বি মিয়া, আইনমন্ত্রী আনিসুল হক, আবদুল মতিন খসরু এমপি, কামাল আহমেদ মজুমদার এমপি, ফজিলাতুন্নেসা বাপ্পি এমপি, মীর শওকত আলী বাদশা এমপি ও এবি তাজুল ইসলাম এমপি প্রমুখ।

জনপ্রিয় অনলাইন : কাতালানের স্বাধীনতাকামী নেতা ওরিয়ল জুনকারাসের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে রাখার নির্দেশ দিয়েছে স্পেনের সুপ্রিম কোর্ট। দুই মাস ধরে গ্রেফতার এই নেতার বিরুদ্ধে কাতালানের স্বাধীনতা আন্দোলনে ভূমিকার বিষয় তদন্ত করা হচ্ছে। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স এ খবর জানিয়েছে।

শু্ক্রবার এক লিখিত নির্দেশনায় বিচারক বলেন, জুনকারাস আগের পথ থেকে সরে এসেছেন তার কোনও প্রমাণ পাওয়া যায়নি। তাকে ছেড়ে দেওয়া হলে আবারও একই ধরনের অপরাধের ঝুঁকি রয়েছে। বিদ্রোহ, রাষ্ট্রদ্রোহ ও জনগণের তহবিল তছরুপের অভিযোগে তাকে আটক রাখা হয়েছে। আদালতের এ সিদ্ধান্তের কারণে জুনকারাস আগামী ১৭ জানুয়ারি কাতালোনিয়া পার্লামেন্টের উদ্বোধনী পর্বে শপথ নিতে পারবেন না। এতে করে স্বাধীনতাকামী দলগুলোর দেশে জেলের বাইরে থাকা নতুন নেতা খুঁজতে জটিলতায় পড়তে হবে।
সুপ্রিম কোর্টের রায়ের পর পুজদেমন্ত টুইটারে বলেছেন, কাতালোনিয়া ও স্পেনের মধ্যকার দ্বন্দ্বটি অবশ্যই মীমাংসা করা দরকার। আমরা সব সময় শান্তি ও সংলাপকে পছন্দ করি।
স্বাধীনতার ঘোষণার পর ২১ ডিসেম্বর কাতালানে আবারও নির্বাচন হয়। নির্বাচনে একক দল হিসেবে বেশি আসন পেয়েছে সিটিজেনস পার্টি। দলটি কাতালোনিয়ার স্বাধীনতা নয়, বরং স্বায়ত্তশাসন নিয়ে স্পেনের সঙ্গে থাকার পক্ষে। নির্বাচনের এ অবস্থায় কোন দলকে সরকার গঠনের জন্য আহ্বান জানানো হবে তা এখনও পরিষ্কার নয়। নির্বাচনে ভোট পড়ে ৮০ শতাংশের বেশি। এরমধ্যে ২৫ শতাংশ ভোট পায় সিটিজেনস পার্টি। ১৩৫ সিটের পার্লামেন্টে তারা জিতেছে ৩৬টিতে।
অন্যদিকে, স্বাধীনতাপন্থী দল টুগেদার ফর কাতালোনিয়া, রিপাবলিকান লেফট অব কাতালোনিয়া ও পপুলার ইউনিটি মিলে ৭০টি আসনে জয়ী হয়েছে। এর মধ্যে ক্ষমতাচ্যুত প্রেসিডেন্ট কার্লোস পুজদেমনের দল টুগেদার ফর কাতালোনিয়া অন্য দুটি দলের চেয়ে সামান্য ব্যবধানে এগিয়ে রয়েছে। কাতালোনিয়ার স্বাধীনতাপন্থী দলগুলো সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেলেও এখনও জোট সরকার গঠনে একমত হতে পারেনি।
জুনকারাসের রাজনৈতিক দলের আইনপ্রণেতারা বলছেন, পুজদেমন্তের আবারও কাতালোনিয়ার প্রেসিডেন্ট হওয়ার অধিকার রয়েছে। কিন্তু তিনি যদি দেশে ফিরতে না পারেন তাহলে জুনকারাসকে সমর্থন করা উচিত।

বৃহস্পতিবার জুনকারাস আদালতে দাবি করেন, তিনি শান্তিপ্রিয় ও সংলাপে বিশ্বাসী মানুষ। তবে বিচারক শুক্রবারের রায়ে বলেন, সংলাপের প্রস্তাব রাষ্ট্রের সঙ্গে তার দ্বন্দ্বের অবসান বলে তারা বিশ্বাস করতে পারছেন না।

কবির আল মাহমুদ,মাদ্রিদ :: স্পেনের রাজধানী মাদ্রিদে মাদ্রিদ সিটি কর্পোরেশনহলে অনুষ্ঠিত হয়েছে শীতকালীন পিঠা উৎসব।
গত ৪ জানুয়ারি  বৃহিস্পতিবার সন্ধ্যায় এই পিঠা উৎসব আয়োজন করা হয়। মাদ্রিদ সিটি কর্পোরেশন এর সহযোগিতায় ও বাংলাদেশী মানবাধিকার সংগঠন অ্যাসোসিয়েশন দে ভালিয়েন্তে বাংলা আয়োজন করে বাংলার ঐতিহ্যবাহী আঞ্চলিক পিঠা উৎসব।
গত বছরের মতো এবারও ভালিয়েন্তে বাংলা কর্তৃক আয়োজিত অনুষ্ঠানটি উপস্থিত সকলকে কিছুটা সময়ের জন্য হলেও আপ্লুত করেছিল।
মাদ্রিদ সিটি কর্পোরেশন কর্মকর্তাবৃন্দ ছাড়া ও প্রবাসী বাংলাদেশিরা স্বতঃস্ফূর্তভাবে এই পিঠা উৎসবে অংশগ্রহণ করেন। মেলায় পিঠার স্টলে ছিল প্রায় ৩০/৩৫ ধরনের পিঠা।
এর মধ্যে উল্লেখ্যযোগ্য ভাপা পিঠা, ভেজিটেবল ঝাল পিঠা, ছাঁচ পিঠা, ছিটকা পিঠা, চিতই পিঠা, চুটকি পিঠা, চাপড়ি পিঠা, চাঁদ পাকন পিঠা, ছিট পিঠা, সুন্দরী পাকন, সরভাজা, পুলি পিঠা, পাতা পিঠা, পাটিসাপটা, পাকান পিঠা, দুধ চিতই, চই পিঠা, পানতোয়া ও পুডিং, নকশা পিঠা, বিবিখানা, ঝাল পিঠা, হাত সেমাই ও পায়েসসহ ছিল অনেক নাম না জানা পিঠা। পিঠা উৎসবের উদ্বোধন করেন কমিউনিটি নেতা ও বাংলাদেশ মসজিদের সভাপতি খোরশেদ আলম মুজমদার। উদ্বোধনী অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন অ্যাসোসিয়েশন দে ভালিয়েন্তে বাংলার সভাপতি মোহাম্মদ ফজলে এলাহী।
এ সময় উপস্থিত হয়ে পরিদর্শন ও বাংলার ঐতিহ্যবাহী আঞ্চলিক পিঠা উপভোগ করেন সেন্ট্রো কমউনিটারিও কাসিনো দে রেইনার ডিরেক্টরা বেগনিয়া
,রেড ইন্টার লাভাপিয়েছ এর প্রেসিডেন্ট পেপা টরেস,রেড ইন্টার লাভাপিয়েছ কর্মকর্তা মাইতে,মাদ্রিদ সিটি কর্পোরেশনের সেবা কর্মকতা ইসাবেল,ভালিয়েন্তে বাংলার আফরোজা রহমান,মনি ,ঝরনা,লুনা,শিউলী,মারুফা,নিগার,সেতু এবং মাদ্রিদে বসবাসরত বাংলাদেশি ব্যাবসায়ী ,সাংবাদিক , শিক্ষার্থী ও অভিভাবকেরা।

Contact Form

Name

Email *

Message *

Powered by Blogger.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget