2017-06-11

লায়েবুর খাঁন : গত ১৭ রমজান ঐতিহাসিক বদর দিবস উপলক্ষে লতিফিয়া ফুলতলী জামে মসজিদ বার্সেলোনায়  এক আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিল  অনুষ্ঠিত হয়েছে
সভায় ঐতিহাসিক বদর দিবসের তাৎপর্য ও বদর দিবসের ইতিহাস শীর্ষক আলোচনা করেন  হযরত মাওলানা মোহাম্মদ আবুল হাসান এবং হযরত মাওলানা আব্দুল জলিল ।বক্তব্যে বলা হয়, ৬২৪ খ্রিস্টাব্দের হিজরি দ্বিতীয় বর্ষের ১৭ রমজান ৩১৩ জন সাহাবিকে সঙ্গে নিয়ে হযরত মহানবী (সা.) মদিনা শরিফের দক্ষিণ-পশ্চিমে ৮০ মাইল দূরে বদর নামক স্থানে কাফেরদের সঙ্গে এক রক্তক্ষয়ী যুদ্ধে অবতীর্ণ হন।
ইতিহাসে এ যুদ্ধকে বদর যুদ্ধ বলে অবহিত করা হয়। ঐতিহাসিক এ যুদ্ধের সেনাপতি ছিলেন বিশ্বনবী হজরত মুহাম্মদ (সা.)।
যুদ্ধে অবতীর্ণ হওয়ার আগে তিনি দোয়া করেন-হে আল্লাহ! ক্ষুদ্র এ (মুসলিম) দলটি যদি আজ শেষ হয়ে যায়, তবে কিয়ামত পর্যন্ত তোমার নাম নেওয়ার মতো কোনো মানুষ খুঁজে পাওয়া যাবে না।রাসুল (সা.)-এর এই দোয়া থেকেই স্পষ্ট হয়, বদর যুদ্ধের প্রেক্ষাপট কী ভয়াবহ ছিল! মহান আল্লাহ দয়া করে সেদিন ফেরেশতাদের মাধ্যমে মুমিনদের সাহায্য করেছিলেন।
যদিও এটি ক্ষুদ্র একটি যুদ্ধ ছিল, কিন্তু এর প্রভাবে বিশ্বের তৎকালীন রাজনৈতিক পরিস্থিতি পাল্টে যায়। বাতাসের গতি পরিবর্তন হয়ে যায়। যারা একদিন আগেও ইসলামের যাত্রাপথ রোধ করাকে সহজ মনে করেছিল, তারা বুঝতে পেরেছে যে পবিত্র ইসলামের এ অগ্রযাত্রাকে রোধ করা কেবল কঠিনই নয়, অসম্ভবও বটে। মহানবী (সা.)-এর সঙ্গে এই যুদ্ধে জনবল ছিল মাত্র ৩১৩ জন। এর মধ্যে ৭০ জন মুহাজির ও বাকিরা আনসার।
অন্যদিকে কাফের কুরাইশ বাহিনীর সংখ্যা ছিল এক হাজার। তন্মধ্যে ১০০ জন অশ্বারোহী, ৭০০ জন উষ্ট্রারোহী ও বাকিরা পদব্রজী ছিল। সত্যপথের অনুসারী অল্পসংখ্যক রোজাদার মুসলমান বিশাল অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত মিথ্যার অনুসারী কাফের মুশরিক বাহিনীর বিরুদ্ধে যুদ্ধে জয়লাভ করায় সত্য-মিথ্যার চিরপার্থক্য সূচিত হয়ে যায়। তাই এ দিবসকে সত্য-মিথ্যার পার্থক্যের দিন বলা হয়। আলোচনা সভা শেষে বদর যুদ্ধে শাহাদাতবরণকারী শহীদদের মাগফেরাত কামনা করে বিশেষ মুনাজাত ও দোয়া পরিচালনা করেন মাওলানা মোহাম্মদ আবুল হাসান

ফ্রান্স প্রতিনিধি : ফ্রান্সে বসবাসরত মানিক গঞ্জ সমিতি ফ্রান্সের উদ্যোগে ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।
 সোমবার বাংলাদেশ কমিউনিটি মসজিদ ও ইসলামিক সেন্টারে এ ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। সংগঠনের সভাপতি শাহিনুর ইসলামের সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক আব্দুল মালেক খানের পরিচালনায় মাহে রমজানের তাৎপর্য তুলে ধরে ইফতার পূর্ব আলোচনায় বক্তব্য রাখেন সংগঠনের উপদেষ্ঠা ও ফ্রান্স আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি  সোহরাব মৃধা, ফ্রান্স বিএনপির সাবেক সাধারন সম্পাদক এম এ তাহের, ড. আব্দুল মালেক, আব্দুল্লাহ আল মামুন, সিরাজুল ইসলাম মিয়া, সংগঠনের উপদেষ্ঠা নজরুল ইসলাম, সিনিয়র সহ সভাপতি আব্দুস সালাম মিয়া, সিনিয়র যুগ্ন সাধারন সম্পাদক রায়হান খান, সম্রাট জিল্লুর রহমান, রেদওয়ান জুয়েল, আলম, রাজু সহ আরো অনেকে । সব শেষে বাংলাদেশসহ বিশ্ব মুসলিম উম্মাহর শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করে মুনাজাত করা হয়।

তানভীর পারভেজ : স্বেচ্ছাসেবী  সংগঠন রেনেসাঁ-র উদ্যোগে আজ শনিবার এক আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। নগরীর আম্বরখানায় এক রেস্টুরেন্টে আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সিলেটের স্বেচ্ছাসেবী আন্দোলনের পুরোধা ব্যক্তিত্ব ডা. আরমান আহমদ শিপলু।
রেনেসা-র সভাপতি মিছবাউল হক চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক তানভীর পারভেজের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এডভোকেট মামুন রশীদ। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কানাইঘাট প্রেসক্লাবের সভাপতি এম.এ.হান্নান, লায়ন হুমায়ূন কবীর, শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ের লোক প্রশাসন বিভাগের শিক্ষক মোস্তফা কামাল, এডভোকেট শাহরিয়ার, কানাইঘাট স্টুডেন্ট এসোসিয়েশনের সভাপতি আসিফ আযহার, সহ সভাপতি এহসান ই এলাহী, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক ছাত্রনেতা এম. ছাব্বির আহমদ, উপ-অর্থ সম্পাদক তানভীর আহমেদ, ছাত্রনেতা ফারহান হোসাইন, শুদ্ধ সোশ্যাল অর্গানাইজেশনের সমন্বয়ক তানভীর ইসলাম, স্বপ্নচূড়ার সভাপতি মাহফুজুর রহমান রাসেল, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল লোকমান, সমাজকর্মী সাইদ আহসান সবুজ, শাবি শিক্ষার্থী আল-আমিন আহমেদ চৌধুরী, স্বেচ্ছাসেবক জাকের আহমদ ও আনওয়ার পাশা।
অনুষ্ঠানে রেনেসাঁ-র স্বেচ্ছাসেবকদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সহ সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম
, সাংগঠনিক সম্পাদক আখতার মাহফুজ, অর্থ ও ব্যবস্থাপনা সম্পাদক শামিম আহমদ, দপ্তর সম্পাদক  ইউসুফ সামিয়ান চৌধুরী, পরিবেশ সম্পাদক মোসাদ্দেক হুসেইন, ধর্ম সম্পাদক সাহেদুল আম্বিয়া, কার্যনির্বাহী সদস্য সিকৃবি শিক্ষার্থী সাইফুর রহমান, আবুল কাওছার জাবেদ, আবছার আলম, কামরুজ্জামান ও আব্দুল্লাহ আল মিজান।

দেলওয়ার হোসেন সেলিম :  ফ্রান্স বাংলা প্রেসক্লাবের উদ্যোগে ফ্রান্সে বসবাসরত বাংলাদেশী কমিউনিটির সন্মানে ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে শনিবার (১০জুন ২০১৭ তারিখ)।
প্যারিসের রয়েল ক্যাফেতে এ উপলক্ষ্যে ঘটেছিল প্রবাসীদের মিলন মেলা।  ফ্রান্স বাংলা প্রেসক্লাবের আহ্বায়ক বাংলা ভিশন -এর ইউরোপ প্রতিনিধি ফয়সাল আহমেদ দ্বীপের সভাপতিত্বে  ও সদস্য সচিব এস এ টিভির ফ্রান্স প্রতিনিধি আব্দুল মালেক হিমুর পরিচালনায় ইফতার পূর্বে উন্মুক্ত আলোচনায় বাংলাদেশী কমিউনিটির বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দের অংশগ্রহণে সমগ্র অনুষ্টান প্রানবন্ত হয়ে ওঠে।
এসময় আলোচনায় অংশ নেন কমিউনিটি নেতৃবৃন্দের পক্ষ থেকে নাজিম উদ্দীন আহমেদ
, কাজী এনায়েত উল্লাহ ইনু, ড. আব্দুল মালেক ফরাজী, এম এ কাশেম, আবুল কাশেম, মহসিন উদ্দীন লিটন চৌধুরী ,এভভোকেট কাজী আব্দুল্লাহ আল মামুন, মিজানুর রহমান চৌধুরী মিন্টু, এম এ তাহের, আব্দুল মান্নান আজাদ, আশরাফুল ইসলাম, শরীফ আল মোমিন, টি এম রেজা, ড. আবু সায়ীদ জামাল, বাংলাদেশ দুতাবাসের কর্মকর্তা আবুল হোসেন, শরীফ আহমেদ সৈকত, শামীমা আক্তার রুবী, রেদোয়ান জুয়েল, মিশেল সুমন, সুব্রত ভট্রাচার্য্য, ফয়সাল উদ্দীন, আব্দুল কাইউম সরকার প্রমুখ। ফ্রান্স বাংলা প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন মোহাম্মদ মাহবুব হোসাইন, দেবেস বড়ুয়া, অধ্যাপক অপু আলম, দেলওয়ার হোসেন সেলিম, কাজী হাবিবুর রহমান, ফরিদ আহমেদ রনি, আরিফুজ্জামান ইমন, সুনন্দ বড়ুয়া ও মিজানুর রহমান প্রমূখ। মোনাজাত পরিচালনা করেন মুহাম্মদ নুরুল ইসলাম। 

উক্ত অনুষ্ঠানে ফ্রান্স প্রবাসী বাংলাদেশীরা বিভিন্ন সমস্যা ও সম্ভাবনা, সুখ- দুঃখ  তুলে ধরে খোলামেলা আলোচনা করেন। অনুষ্ঠানে আলোকপাত করা হয়, ইউরোপের মাল্টিকালচারের দেশ ফ্রান্সে দিন দিন বাংলাদেশী কমিউনিটির সংখ্যা বাড়ছে। দেশটিতে ইতিমধ্যে বাংলাদেশের বহু মানুষ মেধা ও কঠোর পরিশ্রম করে বিভিন্ন ক্ষেত্রে প্রতিষ্টিত ও সুনাম অর্জন করতে সক্ষম হয়েছেন। এখানে রয়েছে আমাদের জন্যে উজ্জ্বল সম্ভাবনা। তাই সকল রাজনৈতিক ভেদাভেদ ভুলে গিয়ে ভবিষ্যৎ প্রজন্মের কল্যাণে বাংলাদেশী কমিউনিটির একটি সার্বজনীন সংগঠন এবং বাংলাদেশ হাউস প্রতিষ্ঠার বিষয়ে কমিউনিটির নেতৃবৃন্দ মূল্যবান মতামত ব্যাক্ত করেন। তারা এলক্ষে সকলকে উদার ও নিরপেক্ষ ভুমিকা পালনের আহবান জানান। সেই সাথে বাংলাদেশ দুতাবাসের মাননীয় রাষ্ট্র দুতের সম্পৃক্ততাও কামনা করেন। 


এর আগে ফ্রান্স বাংলা প্রেসক্লাবের এক সভায় র্সবসম্মতিক্রমে বর্তমান আহ্বায়ক কমিটির মেয়াদ তিন মাসের জন্য বর্ধিত করা হয়েছে। 

সাইফুল আমিন,মাদ্রিদ : রোজাদারের জন্য ইফতার এক অন্যরকম আনন্দের মুহূর্ত। সারাদিনের অনাহারি আর কর্মব্যস্ত শরীর,এ সময় ফুরফুরে হয়ে ওঠে। প্রাণবন্ত হয়ে ওঠে দেহ-মন। সবকিছু সামনে নিয়ে চলতে থাকে মুয়াজ্জিনের আজানের প্রতীক্ষা। কখন মিনারে ধ্বনিত হবে আল্লাহু আকবর। ফাঁকে ফাঁকে ঘড়ি দেখা আর মুখে মুখে দোয়া-দুরুদ পড়া।
স্পেনের মিডিয়া জগতের প্রতিনিধিত্বকারী সংঘটন স্পেন বাংলা প্রেসক্লাবের উদ্যেগে গত ১৪ জুন মাদ্রিদের মাতৃভুমি রেস্টুরেন্টে এক ইফতার মাহফিল এর আয়োজন করা হয়। 

উক্ত ইফতার মাহফিলে উপস্থিত  ছিলেন,স্পেন বাংলা প্রেসক্লাব এর সভাপতি সাহাদুল সুহাদ,স্পেন বাংলা প্রেসক্লাব এর উপদেষ্টা মিনহাজুল আলম মামুন,স্পেন বাংলা প্রেসক্লাব এর সহ সভাপতি জাহিদুল আলম মাসুদ,যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক সেলিম আলম,স্পেন বাংলা প্রেসক্লাব এর ক্রীড়া সম্পাদক জাফরুল ইসলাম,সদস্য কবির আল মাহমুদ,সদস্য সাইফুল আমিন।
এছাড়া কমিনিউটি ব্যক্তিদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন,বাংলাদেশ এসোসিয়েশন এর সভাপতি জামাল উদ্দিন মনির,বাংলাদেশ মসজিদ কমিটির সভাপতি খুরসেদ আলম মজুমদার,
বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও আওয়ামীলীগ নেতা দুলাল সাফা,বাংলাদেশ এসোসিয়েশন এর সহ সভাপতি এনায়েতুল করিম তারেক,গ্রেটার সিলেট এসোসিয়েশন এর সাধারন সম্পাদক ইসলাম উদ্দিন পংকি,গ্রেটার সিলেট এসোসিয়েশন এর সহ সভাপতি আব্বাস উদ্দিন,
স্পেন আওয়ামীলীগ এর সহ সভাপতি আমান উল্লাহ বাদল,স্পেন বিএনপির সহ সভাপতি সোহেল আহমেদ সামসু,সাংবাদিক জামাল উদ্দিন শাহ,হবিগঞ্জ এসোসিয়েশন এর সভাপতি ও স্পেন বিএনপির সহ সভাপতি সাইফুল আলম,বাংলাদেশ এসোসিয়েশন এর প্রচার সম্পাদক ও স্পেন বিএনপির যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক সায়েদ মিয়া,আওয়ামীলীগ নেতা সায়েম সরকার,
হবিগঞ্জ এসোসিয়েশন এর সাংগঠনিক সম্পাদক জাকির হুসাইন চৌধুরী,ইদ্রিস মিয়া,কামাল হুসাইন,খিজির মিয়া,সাইফুল আলম সুহাগ,মস্তুফা মিয়া,খবির উদ্দিন,সহ অগনিত ধর্মপ্রান মুসলমান বৃন্দ
সভায় বক্তারা বলেন,সাংবাদিক হচ্ছে জাতী ও সমাজের বিবেক,
তারা তাদের শ্রম ও মেধা দিয়ে দেশ ও জাতীর কথা বলে,স্পেন বাংলা প্রেসক্লাব তাদের সুন্দর নিখুঁত এবং সঠিক নিউজ প্রচার করায় মাদ্রিদ কমিনিউটি তথা সমগ্র প্রবাসীদের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা ও ধন্যবাদ জানান।
পড়ে বিশেষ মোনাজাত এর মাধ্যমে ইফতার মাহফিল এর সমাপ্তি করা হয়।

Contact Form

Name

Email *

Message *

Powered by Blogger.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget