2017-01-29

জনপ্রিয় অনলাইন:  অ্যালেক্স ভিদালের গোলের পরই ক্যামেরা চলে গেল মেসি, সুয়ারেজের দিকে। দুজনের হাসি যেন থামছিলই না! হাসি আটকাতে পারছিলেন না বার্সেলোনার ডাগ আউটের কেউই। সে গোলেই যে শেষ গেল ম্যাচের ফল নিয়ে সব অনিশ্চয়তা। নিজেদের মাঠে অ্যাথলেটিক বিলবাওকে ৩-০ গোলে হারিয়ে দিয়েছে বার্সেলোনা।


ভিদালের গোল দিয়ে লেখা শুরু হলেও কাল বার্সা সবচেয়ে চওড়া হাসিটা হেসেছে ম্যাচের ১৮ মিনিটেই। অনেক প্রত্যাশা নিয়ে দলে টানা পাকো আলকাসার যখন বলটা পাঠালেন জালে। কোপা ডেল রেতে একটা গোল করলেও মৌসুমের অর্ধেক কেটে যাওয়ার পরও লিগে গোল পাচ্ছিলেন না এই স্ট্রাইকার। কাপে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের বিপক্ষে দ্বিতীয় লেগ থাকায় আজ লুইস সুয়ারেজকে বিশ্রাম দেওয়ায় সুযোগ মিলেছিল স্প্যানিশ স্ট্রাইকারের। আর তাতেই খরা কাটল, সেটাও দুর্দান্ত এক টিম-প্লেতে। বাম প্রান্ত দিয়ে আন্দ্রে গোমেজের পাস নেইমারের কাছে। বল নিয়ে বিলবাও ডিফেন্ডারদের বোকা বানিয়ে বল বাড়িয়ে দিলেন ফাঁকায় দাঁড়ানো আলকাসারের কাছে। কোনাকুনি শটে গোল!
ব্যবধানটা দ্বিগুণ হলো প্রথমার্ধেই। লিওনেল মেসির ফি কিকটা একদমই বুঝতে পারলেন না বিলবাও গোলকিপার ইরাইজজ। দুরূহ কোণ থেকে নেওয়া ফি কিকটাই জালে জড়িয়ে গেলে হাসিমুখেই প্রথমার্ধটা শেষ করে বার্সা।
দ্বিতীয়ার্ধেও দুর্দান্ত খেলেছে বার্সেলোনা। প্রতি আক্রমণে উঠে খুব একটা সুবিধা করতে পারেনি বিলবাও। ৬৪ মিনিটে মাদ্রিদের সঙ্গে ম্যাচের কথা মনে করেই মাঠ থেকে তুলে আনা হয় মেসিকে। মনে হচ্ছিল কোচ লুইস এনরিকে ২-০ গোলের জয়েই আজ সন্তুষ্ট থাকবেন। কিন্তু ৬৭ মিনিটেই চমক, বক্সের সামনে পায়ের দারুণ কাজ দেখিয়ে ব্যবধানটা ৩-০ করেছেন, রিয়াল মাদ্রিদের সঙ্গেও পয়েন্টের ব্যবধানটা কমিয়ে এনেছেন একে। তবে রিয়ালের হাতে এখনো বাকি দুই ম্যাচ।

রনি মোহাম্মদ,পর্তুগাল: সম্প্রতি ঢাকায় তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির ডাকা আধাবেলা হরতাল চলাকালে বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল এটিএন নিউজের নিজস্ব প্রতিবেদক এহসান বিন দিদার ও ক্যামেরাম্যান আবদুল আলীম পুলিশি নির্যাতনের শিকার হন, সাংবাদিক ইকবাল সোবহান চৌধুরীর বিরুদ্ধে ফেনীর বির্তকিত এমপি নিজাম হাজারীর মিথ্যা মামলাা এবং দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিনের সাভার প্রতিনিধি নাজমুল হুদাকে মিথ্যা মামলায় গ্রেফতার ও রিমান্ডের নামে নির্যাতনের প্রতিবাদে ২রা ফেব্রুয়ারী নন রেসিডেন্ট বাংলাদেশী সাংবাদিক সমিতি ইতালী, ৩০ জানুয়ারি প্যারিসের মানবাধিকার চত্বর রিপাবলিকে ফ্রান্সের বাংলা মিডিয়ার সংবাদকর্মীদের মানববন্ধন ও পর্তুগাল সাংবাদিক ফোরামের নিন্দা ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

২রা ফেব্রুয়ারী সন্ধ্যায় ইতালির রোমের এনআরবিজাই আয়োজনে তরপিনাতারস্থ স্পাইস অব ইন্ডিয়া রেস্টুরেন্টের হম রুমে  প্রতিবাদ সভার আয়োজন করে। সংগঠনের সভাপতি আল আমিনের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক এমডি রিয়াজ হোসেনের পরিচালনায় প্রধান অতিথি ছিলেন অল ইউরোপীয়ান প্রেস ক্লাবের সভাপতি মনিরুজ্জামান মনির, বিশেষ অতিথি ছিলেন সাংবাদিক দৈনিক প্রবাসীর সম্পাদক খান রিপন। এ সময় বক্তব্য  রাখেন এনআরবিজাইয়ের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবির, সদস্য নুরুল আলম জনি, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ। 

সভায় প্রধান অতিথি মনিরুজ্জামান মনির বলেন বিগত দিনেও যে সকল সাংবাদিক বিভিন্ন ভাবে নির্যাতনের শিকার হয়েছেন তার একটির সুষ্ঠু বিচার হয়নি। এসব ন্যাক্কার জনক হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান।  সাগর রুনী সহ সকল নিহত সাংবাদিকদের হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবী করেন। এনআরবিজাইয়ের সভাপতি আল আমিন বলেন এটিএন নিউজের সাংবাদিকদের উপর হামলাকারী সেই সব পুলিশ সদস্যর আইনের আওতায় এনে বিচার করা হোক। সেই সাথে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা, বিশিষ্ট সাংবাদিক ইকবাল সোবহান চৌধুরী, সাভারের সাংবাদিক নাজমুল হুদার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের জোর দাবী জানান।


১লা ফেব্রুয়ারী পর্তুগালে লিসবনের ফুড গার্ডেন রেস্টুরেন্টে বাংলা পিটি পাঠক ফোরামের আয়োজনে পুলিশি দারা সাংবাদিক নির্যাতনের প্রতিবাদে এক প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে উপস্থিত ছিলেন সৈয়দ মাহবুব, রনি মোহাম্মদ, নজরুল ইসলাম সুমন, নাঈম হাসান পাবেল, মোশারফ হোসেন, শেখ মিনহাজ, মোঃ রুবেল, সুমন আহমেদ প্রমুখ। 

সুফিয়ান আহমদ : বিয়ানীবাজার উপজেলা বিএনপিতে শুরু হয়েছে বহিষ্কার-বহিষ্কার খেলা। এই বহিষ্কার খেলায় একপক্ষে রয়েছেন উপজেলা বিএনপির সভাপতি নজমুল হোসেন পুতুল ও আরেক পক্ষে রয়েছেন উপজেলা বিএনপির সিনিয়র সহ সভাপতি নজরুল হোসেন । তাদের এই বহিষ্কার খেলায় ক্ষুদ্ধ হয়ে উঠেছেন নেতাকর্মীরা। বিশেষ করে জেলা পরিষদের নির্বাচনে সদস্য পদে জয়ী হওয়ার পর আকস্মিকভাবে দলের সিনিয়র সহ সভাপতি  নজরুল হোসেনকে বহিষ্কারের ফলে ক্ষুদ্ধ তাঁর বিপুল পরিমাণ কর্মী সমর্থক। হতাশ তৃণমুল নেতাকর্মীরাও। তারা দলের উপজেলা পর্যায়ের শীর্ষ এই নেতাদের এমন বহিষ্কার খেলায় শুধু হতাশ আর ক্ষুদ্ধ নয়, ব্যক্ত করেছেন তীব্র প্রতিক্রিয়াও। তারা নেতাদের এমন খেলা থেকে বের হয়ে এসে দলকে ঐক্যবদ্ধ করার ও তাগিদ দিয়েছেন।

জানা যায়, সদ্য সমাপ্ত জেলা পরিষদ নির্বাচনে ১২ নং ওয়ার্ডে সদস্য পদে নির্বাচিত হন উপজেলা বিএনপির কাউন্সিলে সমান সংখ্যক ভোট পেয়ে পরবর্তীতে লটারীর মাধ্যমে পরাজিত হওয়া দলের প্রভাবশালী নেতা ও সিনিয়র সহ সভাপতি নজরুল হোসেন। তিনি নির্বাচিত হওয়ার পর নিজ গ্রামের সন্তান হওয়ায় শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ তাকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান। ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানানোর এই দৃশ্য পরবর্তীতে ফেইসবুকে দিলে তা দেখে নড়ে চড়ে বসেন উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি নজমুল হোসেন পুতুল। এরপর তিনি আহবান করেন জরুরী সভার। গতকাল বুধবার বিয়ানীবাজার উপজেলা বিএনপি’র জরুরী সভায় সিনিয়র সহ সভাপতি নজরুল ইসলামকে দলের পদ থেকে বহিস্কার করা হয়। জরুরী সভা শেষে মেইলের মাধ্যমে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বহিস্কারের বিষয়টি গণমাধ্যমকে অবহিত করেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিক আহমদ।
তারা বিজ্ঞপ্তিতে বলেন,  সম্প্রতি জেলা পরিষদ নির্বাচনে দলীয় সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে নির্বাচন করা এবং শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জাননোসহ সংগঠনের আদর্শের পরিপন্থি কাজে লিপ্ত থাকায় তাঁকে বহিস্কার করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। উক্ত সভায় নজরুল হোসেনকে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অপরাধে বিয়ানীবাজার উপজেলা বিএনপি’র সহ সভাপতি পদ থেকে অব্যাহতি প্রদানের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

এদিকে নজরুল হোসেনকে বহিষ্কারের ২৪ ঘন্টার মাথায় বহিষ্কার করা হয়েছে দলের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে।  বৃহস্পতিবার সকালে বিয়ানীবাজার উপজেলা বিএনপির অস্থায়ী কার্যালয়ে এক জরুরী সভায় সিনিয়র সহ-সভাপতি নজরুল হোসেনের সভাপতিত্বে এবং সহ সাধারণ সম্পাদক ছরওয়ার হোসেন’র পরিচালনায় সভায় উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি নজমুল হোসেন পুতুল ও সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিক আহমদকে বহিস্কারেরর সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। বিয়ানীবাজার বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি নজরুল হোসেন প্রেরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বহিস্কারের বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়। 
সভায় বক্তারা বলেন, বিয়ানীবাজার উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক সংগঠনের আদর্শের পরিপন্থি কাজে লিপ্ত থাকার বিষয়টি প্রমাণিত হওয়ায় তাদের বহিস্কার করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এবং বহিষ্কারের বিষয়টি দলের চেয়ারপার্সনকেও অবহিত করা হয়েছে। তারা দুইজন দলের নীতি নৈতিকতার বিরুদ্ধে গিয়ে অবৈধ আওয়ামীলীগ সরকারের নেতা-কর্মীদের সাথে তাদের সম্পর্ক বজায় রেখে যাচ্ছেন । এসমকি সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক দায়িত্ব গ্রহণের পর বিয়ানীবাজারে সরকার বিরোধী কোন আন্দোলনে তাদের মাঠে দেখা যায়নি।
অপরদিকে, উপজেলা বিএনপি’র শীর্ষ পদধারী এই নেতাদের এমন কাজকারবারে ক্ষুদ্ধ ও হতাশ দলের তৃণমুলসহ উপজেলা পর্যায়ের সকল নেতাকর্মী। তারা নেতাদের এহেন কারবারে ব্যক্ত করেছেন ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়াও।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দলের উপজেলা পর্যায়ের দু’নেতা বলেন, বর্তমান অবৈধ সরকারের দমনপীড়নে দল আজ কঠিন সময় পার করছে। এই সময়ে ঐক্যবদ্ধ াকা আমাদের জন্য জরুরী। কিন্তু আমাদের নেতারা যেভাবে নিজেদের মধ্যে রেশারেশী আরম্ভ করেছেন, তাতে বিয়ানীবাজারে বিএনপি’র কি হাল হয় আল্লাহই জানে। তারা দলের শীর্ষ এই নেতাদের বহিষ্কার-বহিষ্কার খেলা থেকে বের হয়ে দলকে ঐক্যবদ্ধ ও শক্তিশালী করে তোলার জন্য আহবান জানান।
এবিষয়ে যোগাযোগ করা হলে উপজেলা বিএনপি’র সহ সভাপতি নজরুল হোসেন জানান, আমি দলের পরিপন্থি কোন কাজ কখনো করি নাই। দলকে ভালোবেসে শহীদ জিয়াউর রহমানের আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে ও দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার হাঁতকে শক্তিশালী করার জন্য বিগত সময়ে যেভাবে কাজ করেছি, এখনো সেভাবেই কাজ করছি। তিনি বলেন, আমি আমার গ্রামের বৃহৎ একটি সংগঠনের দায়িত্বশীল হিসেবে এবং নিজের গ্রামের সন্তান হিসেবে শিক্ষামন্ত্রী যদি আমাকে শুভেচ্ছা জানিয়েও থাকেন তাহলে তো এটা দোষের কিছু নয়। আমাদের দেশের রাজনৈতিক ইতিহাসে আওয়ামীলীগ-বিএনপি’র এরকম ইতিহাস অনেক আছে। কিন্তু নজমুল হোসেন পুতুল সেটা নিয়ে নোংরা রাজনীতি করে গোলাপানিতে মাছ শিকারের যে আশা করছেন, তাঁর সেই আশা কখনো পূরণ হবে না। বিয়ানীবাজার উপজেলা ও তৃণমুল বিএনপি’র নেতাকর্মীরা তাঁর সেই আশা কখনো পূরণ হতে দেবে না। তাছাড়া আমাকে বহিষ্কার করার মত এখতিয়ার তাঁর নেই।

এরপর বিয়ানীবাজার উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি নজমুল হোসেন পুতুলের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমি শুনেছি আমাকে ও দলের সাধারণ সম্পাদককে না কি কে বা কারা বহিষ্কার করেছে। তাদের এই বহিষ্কারে আমার কোন মাথা ব্যাথ্যা নেই। তিনি বলেন, দলের কে কাকে বহিষ্কার করতে পারবে তা দলের গঠনতন্ত্রেই বলা আছে, সুতরাং কারো বহিষ্কারে আমার কোন কিছু আসে যায় না।  আমি দলকে সংগঠিত করার জন্য কাজ করছি, কাজ করে যাবো। কারো হুংকারে আমি ভীত নই। তিনি বলেন, আমি দায়িত্ব পাওয়ার পর বিয়ানীবাজারে বিএনপি যেভাবে শক্তিশালী অবস্থানে এসেছে তা বিগত অনেক সময়ের চেয়ে এখন ভালো। যার স্বাক্ষী উপজেলার সর্বস্থরের নেতাকর্মী।

সুফিয়ান আহমদ, বিয়ানীবাজার প্রতিনিধিঃ সিলেট জেলা বিএনপির সভাপতি আবুল কাহের চৌধুরী শামিম বলেছেন, বিএনপি একটি আদর্শিক ও আন্দোলনমুখী রাজনৈতিক দল।
দলটি বরাবর গণতান্ত্রিক আন্দোলনের মাধ্যমে দেশের আপামর জনতার বিভিন্ন দাবী-দাওয়া আদায়ে আন্দোলন সংগ্রাম করে আসছে। বর্তমান অবৈধ সরকার ক্ষমতায় আসার পরেও দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্টায় আন্দোলন সংগ্রাম করছে দলটি। কিন্তু আমাদের গণতান্ত্রিক সেই আন্দোলন সংগ্রাম ভালোভাবে গ্রহণ করতে পারছে না বর্তমান এই অবৈধ সরকার। তারা আমাদের দলের চেয়ারপার্সন দেশের আবাল বৃদ্ধা বণিতার হৃদয়ের স্পন্দন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া, তারুণ্যের অহংকার দলের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট তারেক রহমানসহ দলের সকল নেতাকর্মীদের উপর মিথ্যা মামলা দিয়ে তাদের উদ্দেশ্যমূলকভাবে হয়রানী করছে। তাদের মিথ্যা সেই মামলায় দিনের পর দিন জেলের অন্ধকার প্রকোষ্টে দিনযাপন করছেন আমাদের দলের নেতাকর্মীরা। যা দেশের জনগণ কোনভাবেই মেনে নিতে পারে না। তাই আমাদের সকলের উচিত, সব ভেদাভেদ ভুলে দেশের এই ক্রান্তিলগ্নে ঐক্যবদ্ধ হয়ে এই অবৈধ সরকারকে হটিয়ে দেশে গণতন্ত্রকে পুনরুদ্ধার করে, গণতান্ত্রিক অধিকার প্রতিষ্টা করা।
বৃহস্পতিবার বিকেলে বিয়ানীবাজার পৌরশহরের একটি অভিজাত রেষ্টুরেন্টে দলের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট তারেক রহমানের বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারীর  প্রতিবাদে বিয়ানীবাজার উপজেলা যুবদল আয়োজিত যুব সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।
উপজেলা যুবদলের সভাপতি হাজী জসিম উদ্দিনের সভাপতিত্বে আবুল কাহের শামীম আরো বলেন, দলকে শক্তিশালী করে তুলতে হলে আগে সংগঠিত করতে হবে তৃণমুলকে। তৃণমুল সংগঠিত হলে, দল হবে শক্তিশালী। তৃণমুল দুর্বল থাকলে কোন আন্দোলন সংগ্রামে দল সফল হবে না। তাই আমাদের সবার উচিত, তৃণমুলকে সংগঠিত করে দলকে শক্তিশালী করে তোলা।

উপজেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক দৌলা হোসেন সুবাসের সঞ্চালনায় আয়োজিত যুব সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, জেলা যুবদলের সভাপতি আব্দুল মান্নান, কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক দলের সদস্য ও সিলেট জেলা পরিষদের সদস্য এডভোকেট মুজিবুর রহমান, উপজেলা বিএনপি’র সাবেক আহবায়ক শাহীনুর বারী চৌধুরী, উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি নজমুল হোসেন পুতুল, সহ সভাপতি আতাউর রহমান, সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিক আহমদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সরোয়ার হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক নজরুল হোসেন খাঁন, পৌর বিএনপি’র সভাপতি আবু নাসের পিন্টু, উপজেলা বিএনপি’নেতা অহিদ আহমদ তালুকদার, গোলাপগঞ্জ উপজেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক আমিন উদ্দিন, বিয়ানীবাজার উপজেলা যুবদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রিপন আহমদ, সাংগঠনিক সম্পাদক জুবের আহমদ, জেলা ছাত্রদলের গণশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক কাজী মাহবুব, উপজেলা ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক মিছবাহ উদ্দিন, পৌর ছাত্রদলের আহবায়ক ফয়েজ আহমদ ও কলেজ ছাত্রদলের সভাপতি এম.আলম হোসেন চৌধুরী।

বিশেষ প্রতিনিধি : আগামী ৬ই ফেব্রুয়ারি সোমবার জামালপুরের ইসলামপুর উপজেলায় মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাই কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হবেজানা যায়,যাচাই বাছাই কার্যক্রমকে কেন্দ্র করে এক রনের অসাধু ব্যক্তি ব্যক্তিগত স্বার্থ আদায়ের উদ্দেশ্যে বা ব্যক্তিগত আক্রোশের দরুন বা কারোর সাথে পূর্ব শত্রুতার জেড় ধরে প্রতিশোধ পরায়ণ হয়ে প্র্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের নামে মুক্তিযোদ্ধা যাচাই বাছাই কমিটিতে মিথ্যা অভিযোগ দাখিল করেছে। প্রমাণ সরূপ  ইসলামপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয় থেকে ২৬/১/২০১৭ তারিখে স্মারক নং ০৫৪৫৩৯২৯০০০১৪০০৫১৭৭৩ একটি চিঠি মৃত মুক্তিযোদ্ধা আবুল কাসেম এর নামে ইস্যু করা হয়। চিঠি অনুযায়ী দেখা যায় পিতার নাম, গ্রাম ও ডাকঘর বিহীন ইসলামপুর উপজেলার এ কে এম জহিরুল ইসলাম চৌধুরী অভিযোগ করেছেন যে মৃত আবুল কাসেম একজন মুক্তিযোদ্ধা নন।   
অথচ আবুল কাসেম ইসলামপুরের একজন সুপরিচিত বীর মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে পরিচিত।তিনি দীর্ঘদিন বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, ইসলামপুর উপজেলা কমান্ড কাউন্সিলের নির্বাচিত সাংগঠনিক ও দপ্তর কমান্ডারের দায়িত্ব পালন করেছেন। পূর্বে ইসলামপুর উপজেলা কমান্ড কাউন্সিলে দুইটি গ্রুপ বিদ্যমান ছিল, একটি গ্রুপের নেতৃত্ব দিতেন আবুল কাসেম, এই কারণে অপর গ্রুপ তার কার্যক্রম হিংসাত্মক চোখে দেখত ।মূলত এই সকল কারনে কতিপয় মুক্তিযোদ্ধা তাকে নাজেহল ও হয়রানির করার চেষ্টায় সব সময় লিপ্ত থাকত, এমনকি এরা তার নামে মিথ্যা মামলা দিতেও কার্পণ্য করে নাই। পূর্বের শত্রুতার জের ধরেই এ কে এম জহিরুল ইসলাম চৌধুরী আবুল কাসেম এর অবর্তমানে তার নামে মিথ্যা অভিযোগ দাখিল করেছে।                
আবুল কাসেম মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে যেসব সনদ পেয়েছেন এবং তার নাম যেখানে লিপিবদ্ধ আছে, সেগুলোর বিবরণ :   
১। বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর বাংলাদেশ সরকারের দেশরক্ষা বিভাগ হতে ১১নং সেক্টর প্রধান মোহাম্মদ হামিদুল্লাহ খান এবং মুক্তিযুদ্ধের সর্বাধিনায়ক আতাল গনী ওসমানীর যৌথ স্বাক্ষরিত সনদ, যার ক্রমিক নং ২৬৩৯৫।    
২। ১৯৯৬-২০০১ সালে প্রকাশিত মুক্তিবার্তামুক্তিযোদ্ধার তালিকা অনুযায়ী তার নাম ছিল ০১১৩০৬০১২৩ নম্বরে।          
৩। বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ,কেন্দ্রীয়মান্ড কাউন্সিল কার্যালয়ের চেয়ারম্যান জাকির খান চৌধুরী বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর এডজুটেণ্ট জেনারেল যৌথ স্বাক্ষরে ১৬//১৯৮৪ তারিখে    মুক্তি/ সুপা/ জামালপুর/৫০০৩/৮৪ নং স্মারকে সনদ প্রদান করেন।            
৪। বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ,কেন্দ্রীয়মান্ড কাউন্সিল কার্যালয়ের মহাসচিব (প্রশাসন) মোঃ সালাহ উদ্দিন ভাইস চেয়ারম্যান (প্রশাসন) কবির আহমেদ খান যৌথ স্বাক্ষরে ১১/০৩/২০০১ তারিখে মুক্তি/ সুপা/৬৩২৮/০০১ নং স্মারকে সনদ প্রদান করেন। এই সনদে তাকে একজন যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা হিসাবে সনদ প্রদান করেন।                
৫। বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ,কেন্দ্রীয়মান্ড কাউন্সিল কার্যালয়ের চেয়ারম্যান আবদুল আহাদ চৌধুরী ও বাংলাদেশ সরকারের মাননীয়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যৌথ স্বাক্ষরে ১৮ই জুন ২০০১ তারিখে ৪৪৫৪১ ক্রমিক নং সনদ প্রদান করেন।          
৬। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের ২৩শে মে ২০০৫ তারিখে প্রকাশিত প্রজ্ঞাপন (৪ই সেপ্টেম্বর ২০০৩) নং মুবিম/প্র:৩/মুক্তিযোদ্ধা/গেজেট/২০০৩ /৪৭৯ নং গেজেটে নির্ভুল ও চূড়ান্ত মুক্তিযোদ্ধা তালিকার জামালপুর জেলার ২৩২১ নং এ তার নাম রয়েছে।   
ফ্রান্স প্রবাসী আবুল কাসেমের ছেলে মোঃ কামরুজ্জামান জানান, আমার পিতাকে জীবদ্দশায় মিথ্যা মামলা মোকদ্দমা দিয়ে আমাদের জমিজমা গ্রাস করার জন্য কতিপয় মুক্তিযোদ্ধা বেশ হয়রানী করেছে, এদের মধ্যে একটি চক্র স্বাধীনতা বিরোধীদের সাথে একত্বতা প্রকাশ করে আমাদের হয়রানী অব্যাহত রেখেছে। আমার পিতার বিরুদ্ধে যে মিথ্যা অভিযোগ দাখিল করেছে, আমি তার দৃষ্টান্তমুলক বিচার চাই, এই মিথ্যা অভিযোগকারীর দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি হলে বাংলাদেশে কেউ এইভাবে বাংলাদেশের স্বর্ণ সন্তান মুক্তিযোদ্ধাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ দাখিল করতে সাহস পাবে না। একই সাথে তিনি মুক্তিযোদ্ধার নামে যাচাই বাছাই কমিটি বা অন্য কোথাও মিথ্যা অভিযোগ করলে তার নিশ্চিত শাস্তির বিধান রেখে আইন করার দাবী জানান।         

তিনি আরও বলেন,বাংলাদেশের অনেক মুক্তিযোদ্ধার কাগজপত্র হারিয়ে যেতে পারে, অনেকে সনদ নাও সংগ্রহ করে থাকতে পারে, অনেকের বয়স্ক হয়ে যাওয়ায় স্মৃতি শক্তি লোপ পেতে পারে, আবার অনেকে মারা গেছেন তার উত্তরাধিকারী নাও থাকতে পারে, কেউ শত্রুতার জন্য প্রতিশোধ পরায়ণ হয়ে মিথ্যা অভিযোগ দাখিল করতে পারে, এই সবগুলো বিষয় যাচাই বাছাই কমিটিকে গুরুত্বের সহিত দেখতে হবে।  

বাহার উদ্দিন বকুল,জেদ্দা,সৌদি আরব: সাশ্রয়ী মূল্যে পর্যাপ্ত শ্রমশক্তির বাজার বাংলাদেশ  শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে সৌদি আরবের জেদ্দায়। 
১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ইং, বুধবারক্রাউন প্লাজা হোটেলের হলরুমে অনুষ্ঠিত সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন, সৌদি আরবে নিযুক্ত বাংলাদেশের  রাষ্ট্রদূত  গোলাম মসিহ। সম্মানিত অতিথি হিসেবে ছিলেন, সৌদি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রটোকল প্রধান সামি আবদুল্লাহ। সেমিনারে অংশগ্রহণের জন্যে বাংলাদেশ থেকে আগত অতিথিগণের মধ্যে ছিলেন
যুগ্ম-সচিব  এম. বদরুল আরিফিন এবং বায়রা সভাপতিবেনজীর আহমেদ। জেদ্দাস্থ বাংলাদেশ কনস্যুলেটের ভারপ্রাপ্ত কনসাল জেনারেল ড. নজরুল ইসলাম সহ দূতাবাস
এবং জেদ্দা কনস্যুলেটের কর্মকর্তা
  ব্রিন্দ্ব সহ সৌদি আরবে জনশক্তি আমদানীকারক বিভিন্ন কোম্পানীর কর্মকর্তাগণ সেমিনারে অংশগ্রহণ করেন।
 
অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন জেদ্দাস্থ কনস্যুলেটের শ্রম-কাউন্সিলর আমিনুল ইসলাম । বাংলাদেশের পরিচিতি এবং বর্তমান অর্থনৈতিক অগ্রগতিসহ শ্রম-শক্তির বিষয় তুলে ধরা হয়।
আলোচকগণ বলেন
, বাংলাদেশে বর্তমানে যথেষ্ট দক্ষ শ্রম-শক্তি রয়েছে এবং অন্যান্য দেশের তুলনায় সস্তায় এবং সহজে মিলে এই শ্রম-শক্তি।
 
সৌদি আরবের উন্নয়নে বাংলাদেশি শ্রম-শক্তির অবদানের কথা উল্লেখ করে আলোচকগণ বলেন, বাংলাদেশে বর্তমানে পর্যাপ্ত পরিমানে প্রকৌশলী, ডাক্তার,
নার্স, আইটি বিশেষজ্ঞ, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকসহ দক্ষ টেকনিশিয়ার রয়েছেযারা সৌদি আরবের শ্রম-বাজারের চাহিদা পূরণ করতে পারে।
 
সৌদি আলোচকগণ মহিলা গৃহকর্মীর প্রচুর চাহিদার কথা উল্লেখ করে, তাদেরকে যথাযথ প্রশিক্ষণের মাধ্যমে প্রেরণের দাবী জানান। 
জবাবে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে বলা হয়, ইতিমধ্যে মহিলা গৃহকর্মীগণের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। তবে মহিলা গৃহকর্মীগনের সুরক্ষার প্রতি তারা জোর দেন।
 
সৌদি আরকে বাংলাদেশের উন্নয়নের সহযোগী বন্ধু রাষ্ট্র উল্লেখ করে আলোচকগণ বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পবিত্র মক্কা ও মদিনা রক্ষায় আবশ্যক হলে সামরিক সহায়তার জন্যে প্রস্তাব রেখেছেন। আবশ্যক হলে সৌদি আরবের যে কোন সহায়তা বাংলাদেশ পাশে থাকতে সব সময় প্রস্তুত বলে জানান তারা। রাষ্ট্রদূত গোলাম মসিহ সেমিনারে অংশগ্রহণের জন্যে সৌদি কর্মকর্তাবৃন্দ এবং বিভিন্ন কোম্পানীর প্রতিনিধিগণকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান এবং সেমিরারের সফলতা কমনা করেন। সেমিনারে বাংলাদেশি ইনভেষ্টরগণ এবং মিডিয়া প্রতিনিধিগণ উপস্থিত ছিলেন।

বাহার উদ্দিন বকুল,জেদ্দা,সৌদিআরব : গত ২৬ শে জানুয়ারী  রামপাল বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ বন্ধের দাবিতে ডাকা হরতালের খবর সংগ্রহ করতে গিয়ে শাহবাগে পুলিশের নির্যাতনের শিকার হয় এটিএন
নিউজের রিপোর্টার কাজী এহসান ও ক্যামরাপার্সন আব্দুল আলীম।
এই ঘটনায় 
জড়িতদের শাস্তির দাবি জানিয়ে রবিবার ২৯শে জানুয়ারী রাতে জেদ্দার একটি হোটেলে এক প্রতিবাদ সভার আয়োজন করে রিপোর্টাস এসোসিয়েশন অব ইলেকট্রনিক মিডিয়া, সৌদিআরব পশ্চিমাঞ্চল।
 
উক্ত প্রতিবাদ সভায় সভাপতিত্ব করেন,রিপোর্টাস এসোসিয়েশন অব ইলেকট্রনিক মিডিয়া, সৌদিআরব পশ্চিমাঞ্চল এর সভাপতি এম ওয়াই আলাউদ্দিন।
 
আর টিভি জেদ্দা প্রতিনিধি হানিস সরকার উজ্জ্বল এর পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক বাংলাভিশন প্রতিনিধি সোহেল রানা,এস এ টিভি জেদ্দা প্রতিনিধি বাহার উদ্দিন বকুল, এটিএন বাংলার প্রতিনিধি সাজেদুল ইসলাম,
গাজী টিভির প্রতিনিধি সেলিম আহমেদ,এনটিভির মক্কা প্রতিনিধি কামাল পারভেজ অভি,মোহনা টেলিভিশনের প্রতিনিধি মোহাম্মদ ফিরোজ,মাই টিভির প্রতিনিধি মোবারক হোসেন,সময় টিভির প্রতিনিধি আল-মামুন শিপন ও এশিয়ান টিভির প্রতিনিধি কাউছার আহমেদ প্রমুখ। সভায় সাংবাদিকের  উপর হামলা  ও নির্যাতনের  ক্ষোভ  প্রকাশ  করা  হয় এবং জড়িতদের  বিরুদ্ধে  আইনী  ব্যবস্থা গ্রহণের  জোর  দাবী  জানানো  হয়।
 
সাংবাদিকদের  পেশাগত  দায়িত্ব  পালনকালে  সব  রকম  হয়রানি  বন্ধসহ আইন-শৃঙ্খলা  বাহিনীর  সহায়তার  দাবী  জনান  আলোচকগণ।

বিশেষ প্রতিনিধি বেলজিয়াম থেকে: বেলজিয়ামের ব্রাসেলসে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত শাহাদাত হোসেন প্রবাসীদের প্রতি সেবা প্রদানে দূতাবাস যথাসাধ্য চেষ্টা করবে, পাশাপাশি বিভিন্ন ক্ষেত্রে তিনি প্রবাসীদের কাছ থেকেও সহযোগিতার প্রত্যাশা ব্যক্ত করেছেন।
তিনি বাংলাদেশ দূতাবাসে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ বেলজিয়াম শাখার সভাপতি বজলুর রশিদ বুলু ও সাধারন সম্পাদক মনির হোসেন পলিনের নেত্রীত্বে এক প্রতিনিধি দল তার সাথে সাক্ষাত করতে গেলে তিনি এ কথা বলেন। পরিচিতি পর্বের শুরুতে উপস্থিত আওয়ামীলীগ সভাপতি বজলুর রশিদ বুলু ও সাধারন সম্পাদক মনিরি হোসেন পলিন নিজেদের ব্যক্তিগত পরিচয় ও রাষ্ট্রদূতের প্রতি শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন। এসময় বেলজিয়াম আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে তাকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানানো হয়। তখন উপস্থিত সবাই তাদের বক্তব্যে বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিরাজমান সমস্যার বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করেন এবং তাদের মূল্যবান পরামর্শ দেয়ার পাশাপাশি রাষ্ট্রদূতের ইউরোপীয়ন পার্লামেন্ট ও কমিশনে নতুন কর্মজীবনের সাফল্য ও সুস্বাস্থ্য কামনা করেন। এসময় রাষ্ট্রদূত তাঁর বক্তব্য পেশ করেন। তিনি তার সংক্ষিপ্ত জীবনবৃত্তান্ত বর্ণনা করেন। তিনি বলেন প্রবাসীদেরকে বিভিন্ন ক্ষেত্রে কী ভাবে উৎসাহিত করা যেত পারে দূতাবাস তা নিয়ে ভাবনা-চিন্তা করবে। জনাব শাহদাত হোসেন বলেন বাংলাদেশ-বেলজিয়াম তথা ইউরোপীয়ান ইউনিয়ন ও পার্লামেন্টের সাথে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক জোরদার করা হবে তার অন্যতম প্রধান কাজ। তিনি বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করার জন্য কাজ করে যাবার বিষয়ে অঙ্গীকার ব্যক্তকরেন। অনুষ্ঠানের শেষ ভাগে অতিথিদেরকে হালকা আপ্যায়ন করা হয়।

ফ্রান্স প্রতিনিধি : বাংলাদেশের থ্রিজি প্রযুক্তির ফুল এইচডি স্যাটেলাইট চ্যানেল এস এ টেলিভিশনের ৪র্থ বর্ষপূর্তি ও তৃতীয় বর্ষে পদার্পন উপলক্ষে ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসের আনন্দ অনুষ্ঠান হয়েছে ।
গত ২২ শে জানুয়ারী রবিবার প্যারিসের প্যারিজিয়ান হলে অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন এসএ টিভির ফ্রান্স প্রতিনিধি আব্দুল মালেক হিমু। পরে এস এ টিভির অগ্রযাত্রাকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান বাংলাদেশ ইয়ত ক্লাবের সভাপতি ও কমিউনিটি ব্যাক্তিত্ব শরিফ আল মোমিন, সাধারণ সম্পাদক টিএম রেজা, বাংলাদেশ বিজনেস ফোরামের সাধারণ সম্পাদক সুব্রত ভট্টাচার্য শুভ, ওয়াল্ড বড়ুয়া এসোসিয়েশনের তাপস বড়ূয়া রিপন, ঢাকা বিভাগ এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মিজান সরকার, স্বরলিপি শিল্পি গোষ্ঠির সভাপতি এমদাদুল হক স্বপন, ফ্রান্স আওয়ামীলীগের যুগ্ন সাধারন সম্পাদক কামাল মিয়া, ফ্রান্স জাতীয় পাটির সাধারন সম্পাদক হাবীব খান ইসমাঈল, প্রবাসে বাংলার সম্পাদক অধ্যাপক অপু আলম, এটিএন বাংলার ফ্রান্স প্রতিনিধি সিনিয়র সাংবাদিক দেবেশ বড়ুয়া, সংস্কৃতিকর্মী ও চিত্র শিল্পি মোহিত আহমদ, সিলেট বিভাগ এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম, ফ্রান্স আওয়ামীলীগের প্রচার সম্পাদক আমিন খান হাজারী, বিশ্বনাথ এসোসিশেনের মনয়ার হোসেন, বিয়ানীবাজার জনকল্যাণ ট্রাষ্টের সাধারণ সম্পাদক আলী হোসেন, ব্যবসায়ী মঈন খান, স্বরলিপি শিল্পি গোষ্ঠির সাধারন সম্পাদক মোহাম্মদ আলী, বাসু গোস্বামী, সুনন্দন বড়ুয়া,আব্দুস সামাদ, সালাউদ্দিন পারভেজ, খালেদ সাইমন, আকাশ সহ ফ্রান্সের বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক এবং বাংলা প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিক বৃন্দ। এ সময় অতিথিরা প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশন এবং যথাসময়ে প্রবাসী-বাংলাদেশীদের খবর পরিবেশন করার মধ্যদিয়ে এস এ টেলিভিশন দর্শকের মন জয় করতে সক্ষম হয়েছে। এটা টেলিভিশনের জন্য বিশাল সফলতা। তাঁরা এসএ টিভির উত্তরোত্তর সমৃদ্ধি, সাফল্য করেন। সব শেষে কেক কেটে ও আপ্যায়নের মধ্যে দিয়ে অনুষ্ঠান সমাপ্তি ঘোষনা করা হয় ।

ফ্রান্স প্রতিনিধি : বিয়ানীবাজার জনকল্যাণ ট্রাষ্ট ফ্রান্সের সভাপতি সরোয়ার হোসেন টিপুর দেশ গমন উপলক্ষে প্যারিসের গার দু নর্দে এক বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয়েছে । 

গত ২২ শে জানুয়ারী রোববার সংগঠনের সভাপতি উপদেষ্টা গিয়াস উদ্দিনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আলি হোসেনের পরিচালনায় সভায় বক্তব্য রাখেন সংগঠনের উপদেষ্টা হানিফ মিয়া, এম এ হক হোইচম্যান, ইকবাল হোসেন দুধু মিয়া, ঢাকা বিভাগ এসোসিয়েশনের সাধারন সম্পাদক মিজান সরকার, বিশ্বনাথ সমিতির সহ সভাপতি মনওয়ার হোসেন, ট্রাষ্টের সহ সভাপতি আলী আহমদ, সহ সাধারণ সম্পাদক ছাদিকুর রহমান, মাছুম আহমদ, শিক্ষা সম্পাদক হোসেন আহমদ, সাংগঠনিক সম্পাদক আলীম উদ্দিন সুমন, কোষাধক্ষ্য হাসান আহমদ, সহ প্রচার সম্পাদক জাকারিয়া আহমদ, সদস্য নাজিম উদ্দিন, নবাগত সদস্য রফিকুল হক রাসেল, জসিম উদ্দিন, শিব্বির আহমদ, কামরুল ইসলাম, মিজান উদ্দিন জামাল, সালেহ আহমদ প্রমুখ। সভা শেষে সংবর্ধিত ব্যাক্তি কে সংগঠনের পক্ষ থেকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান ।

মিরন নাজমুল : স্পেনপ্রবাসী বাংলাদেশি শামীম শিকদারের বিরুদ্ধে র‌্যাবের দায়ের করা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে প্রতিবাদ সভা করেছে বার্সেলোনার প্রবাসী বাংলাদেশিরা।গত ২৩ জানুয়ারি সন্ধ্যায় প্রবাসী বাংলাদেশিদের সংগঠন কমিউনিদাদ দে বাংলাদেশ এন কাতালুনিয়ার পক্ষ থেকে এ প্রতিবাদ সভার আয়োজন করা হয়।
প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন- সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি নূরুল ইসলাম ভূইয়া, সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হোসাইন মিরন, কাতালুনিয়া আওয়ামী লীগের সভাপতি নূরে জামাল খোকন, আয়েবার সহ-সভাপতি ও শরীয়তপুর জেলা সংগঠনের সভাপতি মোহাম্মদ সুলতান হোসাইন, সহ-সভাপতি জাকির খান, বন্ধুসুলভ মহিলা সংগঠনের সভাপতি শিউলি আক্তার, সাধারণ সম্পাদক খাদিজা আক্তার মনিকা, সাংগঠনিক সম্পাদক দিলরুবা আফরোজ ঢাকা সমিতির সাংগঠনিক সম্পাদক মনিরুজ্জামান সোহেলসহ বার্সেলোনার বিভিন্ন সামাজিক, সাংগঠনিক ও রাজনৈতিক সংগঠনের বিভিন্ন নেতৃবৃন্দ।
সভায় বক্তারা দাবি করেন, বার্সেলোনা প্রবাসী শামীম শিকদারের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলাটি হয়রানিমূলক। তার বিরুদ্ধে করা মামলাটি খারিজ করে তাকে প্রবাসে ফিরে আসতে সহযোগিতার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি জানান বক্তারা।
এছাড়া সভায় দেশে গিয়ে প্রবাসী বাংলাদেশিদে যেন কোনো ধরনের হয়রানির শিকার হতে না হয় সে জন্য বাংলাদেশ সরকারকে কার্যকরি পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানানো হয়।
পরে স্পেনের বাংলাদেশ দূতাবাস বরাবর প্রবাসীদের স্বাক্ষরিত একটি স্মারকলিপি পেশ করার কর্মসূচিও ঘোষণা করা হয়।
উল্লেখ্য, ছুটিতে দেশে অবস্থানকালে গত বৃহস্পতিবার, শরীয়তপুর সদরে একটি অটোরিকশাকে ধাক্কার ঘটনাকে কেন্দ্র করে সাদা পোশাকের র‌্যাবের তিনজন সদস্যদের সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয় শামীম শিকদারের।
পরে ওইদিন রাত ১০টার দিকে র‌্যাব সদস্যরা তাকে ধরে নিয়ে যায়। র‌্যাব প্রথমে ধরে নেয়ার ব্যাপারটি অস্বীকার করলেও পরে তারা প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে।
তারা প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানায়, তাকে ইয়াবা ও জাল টাকাসহ আটক করা হয়েছে।
এ দিকে তার পরিবারের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়, তিনি নিজের পরিবারের সঙ্গে ছুটি কাটাতে দেশে এসেছেন। জাল টাকা বা মাদকদ্রব্য বহন করার সঙ্গে তার কোনো সম্পৃক্ততা নেই।
তারা অভিযোগ করেন, সাদা পোশাকধারী র‌্যাব সদস্যদের সঙ্গে কথা কাটাকাটির জের ধরেই তাকে মামলায় জড়িয়ে আটক করা হয়েছে।

বাহার উদ্দিন বকুল,জেদ্দা সৌদি আরব : অত্যন্ত আনন্দমূখর পরিবেশে বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল, জেদ্দা (ইংলিশ)-এর বার্ষিক বনভোজন অনুষ্ঠিত হয়েছে ২৭ জানুয়ারি, শুক্রবার।
জেদ্দা থেকে প্রায় ৯৫ কিলোমিটার দক্ষিণে আল-শোয়াইবা সমুদ্র সৈকতে অবস্থিত সুবিশাল আল কাত্তান ট্যুরিজম পিকনিক স্পটে অনুষ্ঠিত বনভোজনে  স্কুলের  ছাত্র-শিক্ষক-অভিবাবক মিলে প্রায় চার হার অতিথি অংশগ্রহণ করেন।
দিনব্যাপী অনুষ্ঠানমালায় ছিল ছাত্রছাত্রীদের খেলাধুলা, এবং নাচ-গানে ভরপুর সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা। ছিল আলোচনাপর্ব, পুরস্কার বিতরণী এবং র‌্যাফেল ড্র।
বনভোজনের মূল পর্ব মধ্যাহ্ণভোজনের আয়োজনটি ছিল ব্যতিক্রমধর্মী। বিদ্যালয়ের শিক্ষকগণের সহায়তায় পুরো আয়োজনটি সম্পন্ন হয় ছাত্রছাত্রীদের দ্বারা।
মধ্যাহ্ণভোজে ছিল পোলাও
, চিকেন রোস্ট এবং গরুর রেজালা। তিনটি বিশাল গরু জবাই হয় বনভোজন উপলক্ষ্যে।
প্রায় চার হাজার অতিথি আপ্যায়নে ছাত্রছাত্রীরা অসাধারণ পারঙ্গমতা দেখিয়েছে। গাছগাছালির ছায়াঘেরা মনোরম স্পটে মজাদার মধ্যাহ্ণভোজ শেষে তৃপ্তির ঢেঁকুর তুলেছেন অতিথিরা।
অতপর বিকেলের শীতল সমীরণে ঘুরে বেরিয়েছেন সৈকত জুড়ে। লোহিত সাগরের ঢেউ আছড়ে পড়েছে তাদের পায়ের কাছটিতে।

ওদিকে মধ্যাহ্ণভোজ পর্ব শেষ হতেই মঞ্চায়ন স্থলে শুরু হয় ছাত্রছাত্রীদের নানা পরিবেশনা। সর্বিনিন্ম  শিশু শ্রেণি থেকে সর্বোচ্চ দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রছাত্রীরা অংশগ্রহণ করে নাচ,গান,কবিতা  এবং অভিনয়ে।
জেদ্দা  প্রবাসী সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব মিজান-এর সঞ্চালনা ও পরিচালনায় নাচ-গানে মাতিয়ে রাখে অনুষ্ঠান।

উপাধ্যক্ষ  আবদুল  কাইয়ূম-এর  পরিচালনায় সংক্ষিপ্ত আলোচনায়   প্রধান অতিথি  হিসেবে  উপস্থিত  ছিলেন জেদ্দাস্থ  বাংলাদেশ  কনস্যুলেটের  ভারপ্রাপ্ত  কনসাল জেনারেল ড.নজরুল ইসলাম, বিশেষ  অতিথিগণের  মধ্যে  ছিলেন ,
কাউন্সিলর  আলতাফ  হোসেন, অধ্যক্ষ ড. আবদুল বাকি,  বিদ্যালয়  ব্যবস্থাপনা পরিষদ চেয়ারম্যান কাজি নেয়ামুল বশির, ভাইস চেয়ারম্যান  গিয়াস  উদ্দিন  মাহমুদ ,
সদস্য  ইয়াহিয়া চৌধুরী
, মোহাম্মদ ইলিয়াস, ডা. মাহবুব  উল্লাহ, আতিকুল  ইসলাম আলভী  এবং  মুসা  খান ।   সন্ধ্যায়  রেফেল  ড্র  এর  মাধ্যমে বিজয়ীদের  মাঝে  পুরস্কার  বিতরণ  করা  হয়।


 ড. নজরুল ইসলাম বলেন , অমন একটি সফল আয়োজনের জন্যে বিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক-অভিভাবক এবং পরিচালনা পরিষদকে ধন্যবাদ জানান।
স্কুল পরিচালনা পরিষদের পক্ষ থেকেও সকলের সহযোগিতার জন্যে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানানো হয়।


সবশেষে ছিল র‌্যাফেল ড্র ও পুরস্কার বিতরণী।
সৈকতের খোলা মঞ্চের পেছনে পশ্চিম দিগন্তে তখন সূর্য পাটে বসেছে।
ডুবছে সূর্য, শেষ হচ্ছে দিনব্যাপী বনভোজনের শেষ আয়োজন। তবে শেষ হয়েও যেন শেষ হচ্ছে না বনভোজন-আনন্দ রেশ।

Contact Form

Name

Email *

Message *

Powered by Blogger.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget