বিয়ানীবাজার পৌর নির্বাচন: মনোনয়ন পত্র দাখিল করলেন ১১ জন “মেয়র” প্রার্থী

সুফিয়ান আহমদ, বিয়ানীবাজার প্রতিনিধিঃ আগামী ২৫ শে এপ্রিল মঙ্গলবার বিয়ানীবাজার পৌরসভার বহুল প্রত্যাশীত নির্বাচনে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্ধিতা করার জন্য মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন প্রার্থীরা। আজ ছিলো মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন।
এ উপলক্ষ্যে পৌরশহরসহ আশপাশ এলাকায় অনেকটা উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে। মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন হওয়ায় সকাল থেকেই উপজেলা নির্বাচন কমিশন কার্যালয়ে একে একে আসতে থাকেন প্রার্থীরা। এসময় মেয়র প্রার্থীদের সাথে বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মীও ছিলেন।  আবার অনেক মেয়র প্রার্থী নীরবে হাতেগোনা কয়েকজনকে সাথে নিয়ে মনোনয়নপত্র দাখিল করেন।

উপজেলা রিটার্নীং অফিসারের কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, মেয়র পদে আওয়ামীলীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টি, জাসদ, জমিয়ত, আওয়ামীলীগ বিদ্রোহী, সতন্ত্রসহ মোট ১১ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। তারা হলেন, আওয়ামীলীগ মনোনীত নৌকা প্রতিকের প্রার্থী ও পৌর আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আব্দুস শুক্কুর, বিএনপি মনোনীত ধানের শীষ প্রতিকের প্রার্থী ও পৌর বিএনপির সভাপতি আবু নাসের পিন্টু, জাসদ(ইনু) মনোনীত মশাল প্রতিকের প্রার্থী ও উপজেলা জাসদের সাধারণ সম্পাদক সমশের আলম, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম মনোনীত খেজুর গাছ প্রতিকের প্রার্থী মাওলানা শামীম আহমদ।

এছাড়াও সতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন, বর্তমান পৌর প্রশাসক তফজ্জুল হোসেন, সাবেক চেয়ারম্যান মাসুক আহমদ, আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ জাকির হোসেন ও উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান আবুল কাশেম পল্লব, প্রবাসী কমিউনিটি নেতা, ব্যবসায়ী বদরুল হক, জামায়াত সমর্থিত প্রার্থী কাজী মোঃ জমির হোসেন ও পৌর আওয়ামীলীগ নেতা আমান উদ্দিন।


উল্লেখ্য, বিয়ানীবাজার সদর ইউনিয়নকে বিগত আওয়ামীলীগ সরকারের শাসনামলের শেষ দিকে ২০০১ সালে ইউনিয়নকে পৌরসভায় রুপান্তরিত করা হয়। পৌরসভায় রুপান্তরিত করার পর তৎকালীন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে দায়িত্ব দেয়া হলে  এর বিরুদ্ধে হাইকোর্টে রিট পিটিশন দায়ের করেন সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান তফজ্জুল হোসেন। রিট পিটিশনের মাধ্যমে তিনি প্রশাসক হিসেবে নিয়োগ পান। এরপর একের পর এক সীমান্ত সংক্রান্ত মামলা হতে থাকে হাইকোর্টে। দীর্ঘ হতে থাকে প্রশাসকের শাসনকাল ।
বিগত ৪ বৎসর পূর্বে বিয়ানীবাজার পৌরসভার নির্বাচন আদায় সংগ্রাম পরিষদ নামে বিভিন্ন গ্রামের মুরুব্বীয়ানরা এই মামলা গুলো মোকাবেলা করতে থাকেন। অবশেষে সব ধরণের মামলা ও রিট পিটিশন খারিজ করে মহামান্য আদালত বিয়ানীবাজার পৌরসভার নির্বাচন দ্রুত সময়ে সম্পন্ন করার জন্য নির্বাচন কমিশনকে আদেশ দেন। এরপরই নির্বাচন কমিশন বিয়ানীবাজার পৌরসভার বহুল প্রত্যাশীত নির্বাচনের দিনক্ষণ ঘোষণা করেন। ঘোষিত তফশীল অনুযায়ী জানা যায়, নির্বাচনে অংশগ্রহণকারী প্রার্থীরা ২৭ মার্চ পর্যন্ত মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করতে পারবেন।
এই দিনই আবার মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন। মনোনয়নপত্র বাছাই করা হবে ২৯ মার্চ আর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ৫ এপ্রিল এবং নির্বাচন অনুষ্টিত হবে ২৫ এপ্রিল। নির্বাচনকালীন রির্টানিং অফিসারের দায়িত্ব পালন করবেন সিলেট জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ মনির হোসেন। সহকারী রির্টানিং কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন বিয়ানীবাজার উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা কামাল উদ্দিন।

Post a Comment

Contact Form

Name

Email *

Message *

Powered by Blogger.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget