জনপ্রিয় অনলাইন:  অ্যালেক্স ভিদালের গোলের পরই ক্যামেরা চলে গেল মেসি, সুয়ারেজের দিকে। দুজনের হাসি যেন থামছিলই না! হাসি আটকাতে পারছিলেন না বার্সেলোনার ডাগ আউটের কেউই। সে গোলেই যে শেষ গেল ম্যাচের ফল নিয়ে সব অনিশ্চয়তা। নিজেদের মাঠে অ্যাথলেটিক বিলবাওকে ৩-০ গোলে হারিয়ে দিয়েছে বার্সেলোনা।


ভিদালের গোল দিয়ে লেখা শুরু হলেও কাল বার্সা সবচেয়ে চওড়া হাসিটা হেসেছে ম্যাচের ১৮ মিনিটেই। অনেক প্রত্যাশা নিয়ে দলে টানা পাকো আলকাসার যখন বলটা পাঠালেন জালে। কোপা ডেল রেতে একটা গোল করলেও মৌসুমের অর্ধেক কেটে যাওয়ার পরও লিগে গোল পাচ্ছিলেন না এই স্ট্রাইকার। কাপে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের বিপক্ষে দ্বিতীয় লেগ থাকায় আজ লুইস সুয়ারেজকে বিশ্রাম দেওয়ায় সুযোগ মিলেছিল স্প্যানিশ স্ট্রাইকারের। আর তাতেই খরা কাটল, সেটাও দুর্দান্ত এক টিম-প্লেতে। বাম প্রান্ত দিয়ে আন্দ্রে গোমেজের পাস নেইমারের কাছে। বল নিয়ে বিলবাও ডিফেন্ডারদের বোকা বানিয়ে বল বাড়িয়ে দিলেন ফাঁকায় দাঁড়ানো আলকাসারের কাছে। কোনাকুনি শটে গোল!
ব্যবধানটা দ্বিগুণ হলো প্রথমার্ধেই। লিওনেল মেসির ফি কিকটা একদমই বুঝতে পারলেন না বিলবাও গোলকিপার ইরাইজজ। দুরূহ কোণ থেকে নেওয়া ফি কিকটাই জালে জড়িয়ে গেলে হাসিমুখেই প্রথমার্ধটা শেষ করে বার্সা।
দ্বিতীয়ার্ধেও দুর্দান্ত খেলেছে বার্সেলোনা। প্রতি আক্রমণে উঠে খুব একটা সুবিধা করতে পারেনি বিলবাও। ৬৪ মিনিটে মাদ্রিদের সঙ্গে ম্যাচের কথা মনে করেই মাঠ থেকে তুলে আনা হয় মেসিকে। মনে হচ্ছিল কোচ লুইস এনরিকে ২-০ গোলের জয়েই আজ সন্তুষ্ট থাকবেন। কিন্তু ৬৭ মিনিটেই চমক, বক্সের সামনে পায়ের দারুণ কাজ দেখিয়ে ব্যবধানটা ৩-০ করেছেন, রিয়াল মাদ্রিদের সঙ্গেও পয়েন্টের ব্যবধানটা কমিয়ে এনেছেন একে। তবে রিয়ালের হাতে এখনো বাকি দুই ম্যাচ।
Axact

Jonoprio

জনপ্রিয়২৪ একটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল। বিশ্বজুড়ে রেমিডেন্স যোদ্ধাদের প্রবাস জীবন নিয়ে আমাদের যাত্রা শুরু হয় ২০০৩ সালে। স্পেনে বাংলাভাষী প্রবাসীদের প্রথম অনলাইন নিউজ পোর্টাল।.

Post A Comment:

0 comments: