বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল,জেদ্দা (ইংলিশ)-এর বার্ষিক বনভোজন অনুষ্ঠিত

বাহার উদ্দিন বকুল,জেদ্দা সৌদি আরব : অত্যন্ত আনন্দমূখর পরিবেশে বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল, জেদ্দা (ইংলিশ)-এর বার্ষিক বনভোজন অনুষ্ঠিত হয়েছে ২৭ জানুয়ারি, শুক্রবার।
জেদ্দা থেকে প্রায় ৯৫ কিলোমিটার দক্ষিণে আল-শোয়াইবা সমুদ্র সৈকতে অবস্থিত সুবিশাল আল কাত্তান ট্যুরিজম পিকনিক স্পটে অনুষ্ঠিত বনভোজনে  স্কুলের  ছাত্র-শিক্ষক-অভিবাবক মিলে প্রায় চার হার অতিথি অংশগ্রহণ করেন।
দিনব্যাপী অনুষ্ঠানমালায় ছিল ছাত্রছাত্রীদের খেলাধুলা, এবং নাচ-গানে ভরপুর সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা। ছিল আলোচনাপর্ব, পুরস্কার বিতরণী এবং র‌্যাফেল ড্র।
বনভোজনের মূল পর্ব মধ্যাহ্ণভোজনের আয়োজনটি ছিল ব্যতিক্রমধর্মী। বিদ্যালয়ের শিক্ষকগণের সহায়তায় পুরো আয়োজনটি সম্পন্ন হয় ছাত্রছাত্রীদের দ্বারা।
মধ্যাহ্ণভোজে ছিল পোলাও
, চিকেন রোস্ট এবং গরুর রেজালা। তিনটি বিশাল গরু জবাই হয় বনভোজন উপলক্ষ্যে।
প্রায় চার হাজার অতিথি আপ্যায়নে ছাত্রছাত্রীরা অসাধারণ পারঙ্গমতা দেখিয়েছে। গাছগাছালির ছায়াঘেরা মনোরম স্পটে মজাদার মধ্যাহ্ণভোজ শেষে তৃপ্তির ঢেঁকুর তুলেছেন অতিথিরা।
অতপর বিকেলের শীতল সমীরণে ঘুরে বেরিয়েছেন সৈকত জুড়ে। লোহিত সাগরের ঢেউ আছড়ে পড়েছে তাদের পায়ের কাছটিতে।

ওদিকে মধ্যাহ্ণভোজ পর্ব শেষ হতেই মঞ্চায়ন স্থলে শুরু হয় ছাত্রছাত্রীদের নানা পরিবেশনা। সর্বিনিন্ম  শিশু শ্রেণি থেকে সর্বোচ্চ দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রছাত্রীরা অংশগ্রহণ করে নাচ,গান,কবিতা  এবং অভিনয়ে।
জেদ্দা  প্রবাসী সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব মিজান-এর সঞ্চালনা ও পরিচালনায় নাচ-গানে মাতিয়ে রাখে অনুষ্ঠান।

উপাধ্যক্ষ  আবদুল  কাইয়ূম-এর  পরিচালনায় সংক্ষিপ্ত আলোচনায়   প্রধান অতিথি  হিসেবে  উপস্থিত  ছিলেন জেদ্দাস্থ  বাংলাদেশ  কনস্যুলেটের  ভারপ্রাপ্ত  কনসাল জেনারেল ড.নজরুল ইসলাম, বিশেষ  অতিথিগণের  মধ্যে  ছিলেন ,
কাউন্সিলর  আলতাফ  হোসেন, অধ্যক্ষ ড. আবদুল বাকি,  বিদ্যালয়  ব্যবস্থাপনা পরিষদ চেয়ারম্যান কাজি নেয়ামুল বশির, ভাইস চেয়ারম্যান  গিয়াস  উদ্দিন  মাহমুদ ,
সদস্য  ইয়াহিয়া চৌধুরী
, মোহাম্মদ ইলিয়াস, ডা. মাহবুব  উল্লাহ, আতিকুল  ইসলাম আলভী  এবং  মুসা  খান ।   সন্ধ্যায়  রেফেল  ড্র  এর  মাধ্যমে বিজয়ীদের  মাঝে  পুরস্কার  বিতরণ  করা  হয়।


 ড. নজরুল ইসলাম বলেন , অমন একটি সফল আয়োজনের জন্যে বিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক-অভিভাবক এবং পরিচালনা পরিষদকে ধন্যবাদ জানান।
স্কুল পরিচালনা পরিষদের পক্ষ থেকেও সকলের সহযোগিতার জন্যে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানানো হয়।


সবশেষে ছিল র‌্যাফেল ড্র ও পুরস্কার বিতরণী।
সৈকতের খোলা মঞ্চের পেছনে পশ্চিম দিগন্তে তখন সূর্য পাটে বসেছে।
ডুবছে সূর্য, শেষ হচ্ছে দিনব্যাপী বনভোজনের শেষ আয়োজন। তবে শেষ হয়েও যেন শেষ হচ্ছে না বনভোজন-আনন্দ রেশ।

Post a Comment

Contact Form

Name

Email *

Message *

Powered by Blogger.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget