2017

সেলিম আলম,মাদ্রিদ : পারষ্পরিক সম্পর্ক বৃদ্ধি ও প্রবাসের ক্লান্তি দূর করার লক্ষে বৃহত্তর নোয়াখালী সমিতি মাদ্রিদের উদ্যোগে নববর্ষ কে স্বাগত জানিয়ে এক আলোচনা ও প্রীতিভোজ অনুষ্টিত হয়েছে।
 গত ২৪ ডিসেম্বর রাতে স্থানীয় রেষ্টুরেন্টে সংঘঠনের সভাপতি মাসুদ রানার সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক আবু সায়েম মজুদার ও দিদার আহমেদ এর পরিচালনায় অনুষ্টিত সভায় মাদ্রিদে অবস্থানরত বৃহত্তর নোয়াখালীর শিশু মহিলা সহ কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ উপস্তিত ছিলেন ।
অনুষ্টানে বক্তব্য রাখেন সবেক সভাপতি মানিক মিয়া, পুটন আনোয়ার,বিশিষ্ট ব্যবসায়ী জালাল মমিয়া, রতন, ডালিম ব্যপারী রাজু, আবুল কাসেম মুকুল,কামাল, জসিম, হাফিজ জহির উদ্দিন,সুহাগ, বাহার উল্লাহ হারুন, নুরুননবী ,মিঠু, সায়েদ, আব্দুল আওয়াল, রাজু, শিপন, সুমন, ইমন,পারভেজ, ইবনে মাহবুব রনি, মোহন সহ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ।
 
তারা বলেন পুরাতন বছরের সকল গ্লানী ও ভেদাভেদ ভুলে নতুন বছরে সকলে সম্মিলত ভাবে কমিউনিটির সেভায় কাজ করে কমিটির দেয়া প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন করতে তার বদ্ধ পরিকর ।

কবির আল মাহমুদ ,মাদ্রিদ  : বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধে প্রবাসীদের ভূমিকা অবিস্মরণীয় উল্লেখ করে এ বিষয়ে আরও গবেষণাকর্ম এবং তা মুক্তিযুদ্ধের দলিলপত্রে আরও বিশেষভাবে সংরক্ষণের আহ্বান জানিয়েছে স্পেনের মাদ্রিদস্থ কুমিল্লা সমিতি।
গত (২০ডিসেম্বর ) বুধবার স্পেনের রাজধানী মাদ্রিদের বাংলা টাউন রেস্টুরেন্টে বাংলাদেশের মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে এক আলোচনা সভা অনুষ্টিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন কুমিল্লা সমিতির সভাপতি আনিসুর রহমান রুবেল। তরুণ সংগঠক সাইফুল আলম মাসুমের চঞ্চনায় আয়োজিত সভায় শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন সমিতির সাধারন সম্পাদক কাজী মিলন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সমিতির উপদেষ্টা মুরাদ মজুমদার।
সভায় বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধে প্রবাসীদের ভূমিকার উপর মূল আলোচনা করেন কুমিল্লা সমিতি মাদ্রিদ এর উপদেষ্টা আহমেদ শফি। বক্তব্য দেন আবুল হাশেম মেম্বার, সেলিম রেজা, মশিউর রহমান, ফোরকান আলম, মাহবুবুল আলম,জহির উদ্দিন, আব্দুল আলিম, কাজি আবুল বাশার,ব্যাবসায়ী নাহিদ আনোয়ারুল ,কাজি হারুনুর রশিদ, এফ এম ফারুক পাভেল বশির আহমেদ, আনোয়ার চৌধুরী, আবুল কাশেমস প্রমুখ। আলোচনা সভায় বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধে প্রবাসীদের ভূমিকা এবং বাঙ্গালীর মুক্তির সংগ্রাম কিভাবে মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে চূড়ান্ত বিজয় লাভ করেছে তার বিভিন্ন দিক আলোচিত হয়। বঙ্গবন্ধু কী পরিস্থিতিতে স্বাধীনতার ঘোষণা দেন, তা আলোকপাত করা হয়। ৫২ থেকে মহান মুক্তিযুদ্ধে নিহত সকল শহীদ এবং মহান মুক্তিযুদ্ধে নির্যাতিতা মা-বোন ও শিশুদের প্রতি শ্রদ্ধা ও কৃতজ্ঞতা জানানো হয় এবং তাদের বিদ্ৰোহী আত্মার শান্তি কামনা করে মোনাজাত করা হয়।

আওয়ামীলীগকে পুনরায় ক্ষমতায় নিতে নেতাকর্মীদের ঐক্যের কোনো বিকল্প নেই 
কবির আল মাহমুদ,মাদ্রিদ : স্পেন আওয়ামী লীগকে ইউরোপের অন্যতম শক্তিশালী সংগঠন হিসেবে নিজেদের অবস্থান আরও সুদৃঢ় করতে দলের নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে এক যুগে কাজ করার আহবান জানিয়েছেন নব নির্বাচিত স্পেন আওয়ামীলীগের সভাপতি আক্তার হোসেন আতা ও সাধারন সম্পাদক রিজভি আলম।
গত (২৭ ডিসেম্বর) বুধবার রাতে স্পেনের রাজধানী মাদ্রিদে নব গঠিত স্পেন আওয়ামীলীগের স্থায়ী কার্যালয়ে নব গঠিত কমিটি কর্তৃক আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ আহ্বান জানান নব গঠিত কমিটির নেতৃবৃন্দ।লিখিত বক্তব্যে আক্তার হোসেন আতা বলেন, আগামী দিনের কার্যক্রম, দেশ-বিদেশে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উন্নয়ন ও সফলতার প্রচার,পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন এবং আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে করণীয়সহ দলীয় কর্মকাণ্ড গতিশীল করতে নেতাকর্মীদের ঐক্যের কোনো বিকল্প নেই। সংবাদ সম্মেলনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু, জাতীয় চার নেতা, ১৫ আগস্টে নিহত সকল শহীদ, ৫২ থেকে মহান মুক্তিযুদ্ধে নিহত সকল শহীদ এবং মহান মুক্তিযুদ্ধে নির্যাতিতা মা-বোন ও শিশুদের প্রতি শ্রদ্ধা ও কৃতজ্ঞতা জানানো হয়। সদ্য সাবেক কমিটির নেতৃবৃন্দ বারবার সম্মেলন করতে ব্যর্থ হওয়ায় সর্ব ইউরোপীয়ান আওয়ামীলীগের সভাপতি শ্রী অনিল দাশের নির্দেশে সাধারন সম্পাদক এম এ গনি ও সাংগঠনিক সম্পাদক বিদ্যুৎ বড়ূয়া কর্তৃক নবীন -প্রবীনের সমন্বয়ে একটি সুন্দর কমিটি উপহার দেয়ার জন্য সর্ব ইউরোপীয়ান আওয়ামীলীগের সকল নেতাকর্মীকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান সংগঠনের সভাপতি আক্তার হোসেন আতা। সংবাদ সম্মেলনে আক্তার হোসেন আতা আরো বলেন ,দেশকে পেছনের দিকে ফিরে নেয়ার জন্য এখনো দেশের বিরুদ্ধে গভীর ষড়যন্ত্র হচ্ছে। দেশবিরোধী বিএনপি-জামায়াত নিশ্চিত জানে, বাংলাদেশের জনগণের ভোটে তারা কখনো ক্ষমতায় আসতে পারবে না। তাই একমাত্র ষড়যন্ত্রই তাদের লক্ষ্য এবং ভরসা। কিন্তু দেশের জনগণ এখন কোন পরিবর্তন চান না। এখনো দেশের প্রায় ৭৫ ভাগ জনগণ শেখ হাসিনার প্রতি পূর্ণ সমর্থন রয়েছে। সাংবাদিদের এক প্রশ্নের জবাবে আতা বলেন ,পদ-পদবী, দলের সুযোগ-সুবিধা নয়, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু আদর্শ বুকে ধারণ করে দেশের সেবায় নিজেকে উৎসর্গ করাই আমার লক্ষ্য এবং জাতির জনক বঙ্গবন্ধু কন্যা, জননেত্রী শেখ হাসিনাকে চতুর্থবারের মতো প্রধানমন্ত্রী করে উন্নয়নের দিক থেকে বাংলাদেশের চেহারা বদলিয়ে দিতে চাই ।সংবাদ সম্মেলনে টেলিকনফারেন্সর মাধ্যমে সর্ব ইউরোপীয়ান আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বিদ্যুৎ বড়ূয়া উপস্থিত সাংবাদিকদের কমিটির বৈধতা নিচ্চিত করেন। সংবাদ সম্মেলনে নব নির্বাচিত সাধারন সম্পাদক রিজভি আলম দলের সাংগঠনিক কর্মকাণ্ডের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন এবং দলকে গতিশীল করার লক্ষ্যে মান-অভিমান ভুলে সকলকে স্পেন আওয়ামী লীগের পতাকাতলে ঐক্যবদ্ধ হবার আহবান জানান। সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন নব গঠিত কমিটির সহ সভাপতি বোরহান উদ্দিন ,শামীম আহমেদ ,যুগ্ম সম্পাদক মোঃ ফয়সাল ইসলাম ,,সবুজ আলম ,সাংগঠনিক সম্পাদক ইফতেখার আলম ,সায়েম সরকার ,এনাম আলী খান ও দপ্তর সম্পাদক তাপস দেব নাথসহ নব গঠিত স্পেন আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ।

কবির আল মাহমুদ,মাদ্রিদ : স্পেনের রাজধানী মাদ্রিদে বাংলাদেশ স্পোর্টস অ্যাসোসিয়েশনের উদ্যোগে আয়োজিত প্রথম কমিউনিটি কাপ টি টেন ক্রিকেট টুর্নামেন্ট শুরু হয়েছে । গত কাল মঙ্গলবার এই টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী খেলা মাদ্রিদের অদূরে খেতাফে এলাকার এল ক্যাসেল মাঠে অনুষ্ঠিত হয়।
খেলায় এস টি স্পোটিং ক্লাবকে ৭ উইকেটে হারিয়ে জয়ী হয় নবাগত কুমিল্লা ভিক্তোরিয়ান্স। টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে দ্বিতীয় ওভারেই হোঁচট খায় এস টি স্পোটিং ক্লাব। ৬ রান যোগ করতেই কুমিল্লার জনির প্রথম ওভারে হারায় মূলবান ১ উইকেট।
শুরুতে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়েও দলীয় ক্যাপ্টেন রিপনের ২৫ ও শান্তর ২০ রানে ভর করে নির্ধারিত ১০ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ৯৫ রান করে সংগ্রহ করে এস টি স্পোটিং ক্লাব। জবাবে কুমিল্লা ভিক্তোরিয়ান্স এর অধিনায়ক ফয়সাল হৃদয় এর ৩৫ ও সাদ্দামের ৩০ রানে ১৬ বল হাতে রেখেই লক্ষ্যে পৌঁছে যায় নবাগত কুমিল্লা ভিক্তোরিয়ান্স। খেলায় ম্যান অব দ্য ম্যাচ হন কুমিল্লা ভিক্তোরিয়ান্সের অধিনায়ক ফয়সাল হৃদয়। এ উপলক্ষে আয়োজিত উদ্বোধন অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন ক্রীয়া সংগঠক আবু তাহের ।
প্রধান অতিথি ছিলেন স্পেনে একমাত্র বাংলাদেশী মানবাধিকার সংগঠন ভালিয়েন্তে বাংলার সভাপতি মোহাম্মাদ ফজলে এলাহী। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন ব্যাবসায়ী ও সংগঠক নাহিদ আনোয়ারুল ,সাইফুল আলম মাসুম,সায়েক মিয়া ,শিপন আহমেদ রাহি ,কবির আল মাহমুদ ,তানিম মালিক ,শাহিনুর রাহমান ,আসলাম বক্সী পারেস ,ইকবাল আহমেদ ,আবু বক্কর তানিম ,খলিল আহমেদ প্রমুখ। আমন্ত্রিত অতিথিরা স্পেনে প্রবাসী বাংলাদেশিরা ক্রিকেটে যাতে আরো উন্নতি করতে পারে তার সব প্রকার সহযোগিতার আশ্বাস দেন। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন জাবেদ ওহী ,জিহাদ অলি ,আবেদ আহমেদ ,রাসেল আহমেদ সহ আরো অনেকে। স্পেনে বাংলাদেশি বিভিন্ন কমিউনিটিগুলো এগিয়ে আসলে ফুটবলের দেশ স্পেনে ক্রিকেট খেলার মাধ্যমে বাংলাদেশকে চিনবে নতুনভাবে এমনটাই প্রত্যাশা আয়োজক ও খেলোয়াড়দের।

জনপ্রিয় অনলাইন : বিশেষ সম্মাননা পাচ্ছেন শাকিব-অপু। আগামীকাল মঙ্গলবার এফডিসির আট নম্বর ফ্লোরে তাদের এই বিশেষ সম্মাননা দেয়া হবে।
শাকিব খান ও অপু বিশ্বাস জুটির মুক্তিপ্রাপ্ত ৭৩টি ছবির মধ্যে সিংহভাগই ব্যবসা সফল। সে কারণে শাকিব-অপুকে বিশেষ সম্মাননা দিতে যাচ্ছে বাংলাদেশ ফিল্ম ক্লাব। সংগঠনটি ২০ বছর পূর্তি উপলক্ষে কাল বিশেষ সম্মাননা দেয়া হবে। এ ছাড়া বিশেষ সম্মাননা দেয়া হবে চিত্রনায়ক ডি এ তায়েবকে। ঐতিহ্যবাহী সিনেমা হল লায়ন, প্রথম স্যাটালাইট টেলিভিশন চ্যানেল এটিএন বাংলা, সর্বাধিক চলচ্চিত্র প্রযোজনা সংস্থা ইমপ্রেস টেলিফিল্ম লি. এবং উইজার্ড মিডিয়া ডিরেক্টরিও চলচ্চিত্রে অবদানের জন্য সম্মাননা পাবে। ফিল্ম ক্লাবের দুই দশক পূর্তিতে আরও যাদের সম্মাননা দেয়া হচ্ছে তারা হলেন- নায়করাজ রাজ্জাক (মরণোত্তর), চিত্রপরিচালক আজিজুর রহমান, আমজাদ হোসেন, গীতিকার গাজী মাজহারুল আনোয়ার, সংগীত পরিচালক আলাউদ্দিন আলী, চলচ্চিত্র প্রযোজক এ কে এম জাহাঙ্গীর খান, অভিনেত্রী ববিতা, নায়ক আলমগীর, কণ্ঠশিল্পী রুনা লায়লা, খুরশীদ আলম, শিল্প নির্দেশক মহিউদ্দিন ফারুক, নায়ক ফারুক, নায়ক-প্রযোজক মাসুদ পারভেজ (সোহেল রানা), আশরাফ উদ্দিন আহম্মেদ উজ্জ্বল, চিত্রপরিচালক দেলোয়ার জাহান ঝন্টু ও চলচ্চিত্র গ্রাহক মাহফুজুর রহমান খান।

কবির আল মাহমুদ ,মাদ্রিদ : স্পেনে যথাযথ মর্যাদা ও আনুষ্ঠানিকতার মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের মহান বিজয় দিবস উদ্‌যাপিত হয়েছে।
দিবসটি পালন উপলক্ষে দেশটির রাজধানী মাদ্রিদে বাংলাদেশ হাইকমিশনের উদ্যোগে আজ শনিবার আধাবেলার কর্মসূচি ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। মাদ্রিদে বাংলাদেশি, বিভিন্ন সংগঠনের নেতাকর্মী ও দূতাবাসের কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং তাদের পরিবারের সদস্যরা অনুষ্ঠানে যোগ দেন। স্পেনে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত হাসান মাহমুদ খন্দকার কর্তৃক আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন এবং জাতীয় সংগীত পরিবেশনের মধ্য দিয়ে দিনব্যাপী কর্মসূচির সূচনা হয়।
এরপর মহান স্বাধীনতা সংগ্রামে নিহত শহীদদের আত্মার মাগফিরাত এবং জাতির সুখ
, শান্তি ও কল্যাণ কামনায় বিশেষ মোনাজাত পরিচালনা করা হয়। পরে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশে দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী কর্তৃক প্রেরিত বাণী পাঠ করেন যথাক্রমে বাণিজ্যিক কাউন্সিলর নাভিদ শফিউল্লাহ ও প্রথম সচিব (শ্রম) শরিফ উদ্দিন। শুরুতে কোরআন তিলাওয়াত করেন সাইফুল ইসলাম। অনুষ্ঠানমালার দ্বিতীয় পর্বে দূতাবাস মিলনায়তনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
সভায় বক্তারা দিবসটির তাৎপর্য তুলে ধরেন এবং বাংলাদেশের স্বাধীনতা অর্জনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অবদান সশ্রদ্ধচিত্তে স্মরণ করেন। রাষ্ট্রদূত হাসান মাহমুদ খন্দকার তার বক্তব্যে মহান মুক্তিযুদ্ধে জীবন উৎসর্গকারী বীর শহীদদের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা এবং হানাদার বাহিনীর হাতে নির্যাতিত মা-বোনদের আত্মত্যাগ ও অবদান কৃতজ্ঞচিত্তে স্মরণ করেন। আমাদের মুক্তিযুদ্ধের পটভূমি উল্লেখ করে তিনি বাঙালি জাতির অবিসংবাদিত নেতা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান অসামান্য অবদান শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করেন। তিনি এ প্রসঙ্গে সম্প্রতি বঙ্গবন্ধু প্রদত্ত ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ ইউনেসকো কর্তৃক ইন্টারন্যাশনাল মেমোরি অব দ্য ওয়ার্ল্ড রেজিস্টারে অন্তর্ভুক্তির মাধ্যমে বিশ্ব প্রামাণ্য ঐতিহ্য হিসেবে স্বীকৃতি প্রাপ্তিকে বাংলাদেশের স্বাধীনতা অর্জনে বঙ্গবন্ধুর অবদানকে বিশ্বদরবারে মহিমান্বিত করেছে বলে উল্লেখ করেন। হাসান মাহমুদ খন্দকার তার বক্তৃতায় প্রবাসী বাংলাদেশিদের দেশপ্রেম ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উজ্জীবিত হয়ে দেশগড়ার কাজে ও দেশের উন্নয়নে নিজ নিজ অবস্থান থেকে অবদান রাখার আহ্বান জানান। তিনি বলেন
, মহান মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস ও চেতনা পরবর্তী প্রজন্মের মধ্যে যাতে বিকশিত হয়, সে লক্ষ্যে আমাদের সবাইকে প্রচেষ্টা চালিয়ে যেতে হবে।আলোচনা অনুষ্ঠানে উল্লেখযোগ্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন ইন স্পেনের সাবেক সভাপতি এ এস আই রবিন ,স্পেন বাংলা প্রেস ক্লাব সভাপতি সাহাদুল সুহেদ ,আওয়মীলীগ নেতা বদরুল মাস্টার ,রিজভি আলম ,লুৎফুর রহমান ,দাবির তালুকদার প্রমুখ আলোচনা সভা শেষে প্রজেক্টরের মাধ্যমে স্বাধীনতা আমার স্বাধীনতা ছবি প্রদর্শন করা হয় । অনুষ্ঠান শেষে অভ্যাগত অতিথিদের বাংলাদেশি খাবার সহযোগে আপ্যায়ন করা হয়। 

কবির আল মাহমুদ,মাদ্রিদ : বাংলাদেশ স্পোর্টস এসোসিয়েশন অফ স্পেন আয়োজিত প্রথম টি ১০ কমিউনিটি কাপ ক্রিকেট টুর্নামেন্ট এর প্রথম আসর মাদ্রিদের এল ক্যাসেল মাঠে গড়াবে আগামী ১৯ ডিসেম্বর।
বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠিতব্য এ টুর্নামেন্টের উদ্বোধন পর্ব ১৯ ডিসেম্বর সকালে এল ক্যাসেল মাঠে অনুষ্ঠিত হবে।
এল ক্যাসেল ভেন্যূতে ৮টি দলের অংশ গ্রহণে মোট ৭টি খেলা অনুষ্ঠিত হবে। নক আউট ভিত্তিক এ টুর্নামেন্টের ফাইনাল অনুষ্ঠিত হবে আগামী বছরের ৩ জানুয়ারি।
গতকাল রবিবার সন্ধ্যায় মাদ্রিদের একটি অভিজাত রেস্টুরেন্টে স্থানীয় সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে বাংলাদেশ স্পোর্টস এসোসিয়েশন অফ স্পেনের দায়িত্বশীলরা এ তথ্য তুলে ধরেন।মাদ্রিদের ক্রীরা সংগঠক ও ব্যাবসায়ী নাহিদ আনোয়ারুল এর সভাপতিত্বে মত বিনিময় সভায় আয়োজকদের পক্ষে কথা বলেন টুর্নামেন্টের সমন্বয়ক কবির আল মাহমুদ।
টুর্নামেন্ট চ্যাম্পিয়ন দলকে নগদ ১০০ হাজার ইউরো ও একটি ট্রফি এবং রানার্সআপ দলের জন্য থাকছে নগদ ৫০০ইউরো ও ট্রফি। এছাড়া সেরা ব্যাটসম্যান, সেরা বোলার, ম্যান অব দ্য সিরিজ, উদীয়মান খেলোয়াড়সহ প্রত্যেক ম্যাচের সেরা খেলোয়াড়ের জন্য ক্রেস্ট ও অর্থ পুরস্কার রয়েছে। টুর্নামেন্টের সমন্বয়ক কবির আল মাহমুদ সাংবাদিকদের জানান, মাদ্রিদ সিটি কর্পোরেশন ও বাংলাদেশী মানবাধিকার সংগঠন ভালিয়েন্টে বাংলা এই টুর্নামেন্টে সহযুগিতা করছে। তিনি আরও জানান, সপ্তাহের প্রতি সোমবার অথবা মঙ্গলবার ২টি করে খেলা অনুষ্ঠিত হবে। সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন স্পেন বাংলা প্রেস ক্লাব সভাপতি সাংবাদিক সাহাদুল সুহেদ , ক্রিরা সংগঠক ও বাংলাদেশ এসোসিয়েশনের প্রচার সম্পাদক সায়েদ মিয়া ,তরুন সংগঠক ও ব্যাবসায়ী বদরুল কামলী ,তরুন রাজনীতিবীদ ও সংগঠক আবু জাফর রাসেল ,এনামুল আলী খান ,টুর্নামেন্ট পরিচালনা কমিটির অন্যতম সমন্বয়ক সিপন আহমেদ রাহি ,সায়েক মিয়া ,তরুণ সংগঠক সাইফুল আলম ,শিপন আহমেদ ,ইকবাল আহমেদ ,ব্রাম্মন বাড়িয়া মাদ্রিদ স্পোটিং ক্লাবের বাবুল আহমেদ ,কুমিল্লা ভিক্টরিয়ান্স ক্লাব এর হৃদয় আহমেদ ,সিলেট টাইগার এর তানিম মালিক ,মাদ্রিদ টাইগার এর শাহিনুর রহমান ,মাদ্রিদ ইয়ং ষ্টার এর জাবেদ ওহী ,এস টি স্পোটিং ক্লাব এর রিপন আহমেদ ,হবিগঞ্জ ইয়ং ষ্টার এর আবিদুর রহমান জসিম জাকির হোসাইন চোধুরী ও মহসিন আহমেদ লুৎফুর প্রমুখ।

ইউরোপ প্রতিনিধি : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্যারিস সফরের সময়ে সর্ব ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ডঃ বিদ্যুৎ বড়ুয়া সাথে জার্মান আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ইন্জিনিয়ার হাবিবুর রহমানের জার্মান এবং ইউরোপীয় আওয়ামী রাজনীতির বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা হয়।
ইউরোপীয় আওয়ামী লীগের দুই তরুণ রাজনীতিবিদের কথোপকথনে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব পায়, বর্তমান রাজনীতিতে ইউরোপের তরুণ ও শিক্ষিত রাজনীতিবিদ ও বঙ্গবন্ধুর আদর্শের অনুসারীদের করনীয় এবং কিভাবে তাদেরকে ঐক্যবদ্ধ করে আগামী নির্বাচনে নৌকার পক্ষে ও দেশ গঠনে তাদের মেধাকে কাজে লাগানো যায় এবং আগামী নির্বাচনে সোশ্যাল মিডিয়াকে কিভাবে আওয়ামী লীগের নির্বাচনী প্রচারণায় কার্যকরীভাবে ব্যবহার করা যায় এর গুরুত্ব নিয়ে আলোচনা হয়। উক্ত আলোচনায় শেষে পর্যায়ে ইন্জিনিয়ার হাবিবুর রহমান জননেত্রী শেখ হাসিনা ও সর্ব ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগের সংগ্রামী সাধারন সম্পাদক এম এ গনিকে বিশেষ ধন্যবাদ জানান, ডঃ বিদ্যুৎ বড়ুয়া মত একজন সাংগঠনিক ভাবে দক্ষ, তরুণ, উদ্যমী, সৎ ও শিক্ষিত নেতাকে সর্ব ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদেরকের দায়িত্ব প্রদান করার জন্য। ডঃ বিদ্যুৎ বড়ুয়া ও জার্মান আওয়ামী লীগের সভাপতি এ, কে, এম বসিরুল আলম চৌধুরী (সাবু) ও সাধারন সম্পাদক শেখ বাদল আহমেদকে ধন্যবাদ জানান, ইন্জিনিয়ার হাবিবুর রহমানকে মতো একজন পরিশ্রমী ও সাংগঠনিক ভাবে দক্ষ তরুণকে সাংগঠনিক সম্পাদক পদে দায়িত্ব প্রদান করার জন্য।

লায়েবুর খাঁন : বিএনপির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক মাহিদুর রহমানের সাথে কাতালোনিয়া বিএনপির মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
কাতালোনিয়া বিএনপির সভাপতি শফিউল আলম শফির সভাপতিত্বে ও কাতালোনিয়া বিএনপির সাধারন সম্পাদক আজমান আলী ও এ.আর লিটুর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত এ মতবিনিময় সভায় কাতালোনিয়া বিএনপি ও এর অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির তিব্র প্রতিবাদ জানিয়ে মতবিনিময় সভায় মাহিদুর রহমান বলেন, শুধু রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারনে এই মামলা এবং রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারনেই বিএনপির অসংখ্য নেতাকে  গুম, হত্যা ইত্যাদির মত জঘন্য ঘটনা ঘটানো হয়েছে। এ সরকারের আমলে  সাধারণ মানুষেরও কোনো নিরাপত্তা নেই। দেশের জনগণ সুষ্টু নির্বাচনের মাধ্যমে এ সরকারের পতন ঘঠাবে।


সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কাতালোনিয়া বিএনপির প্রধান উপদেষ্টা মুক্তার আহমেদ, স্পেন বিএনপি নেতা আবু জাফর রাসেল, সান্তাকলোমা বিএনপির সভাপতি হাবিবুল্লাহ আনিস, কাতালোনিয়া বিএনপির সহ-সাধারন সম্পাদক তোতিউর রাহমান, কাতালোনিয়া বিএনপির প্রচার সম্পাদক এম.লায়েকুর রাহমান,
কাতালোনিয়া যুবদলের সভাপতি শফিক খান, কাতালোনিয়া বিএনপির দপ্তর সম্পাদক আজমান আলী, বিএনপি নেতা রাসেল আহমেদ, কাতালোনিয়া স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি আক্কাস মিয়া, কাতালোনিয়া যুবদলের সাধারন সম্পাদক  ফয়সল আহমেদ, বিএনপি নেতা সুমন আহমেদ, ছাত্রনেতা ফয়সল আহমেদ, মেহেদী হাসান, ইমরান হোসেন, জামিলুর রহমান, আলম, আক্তার, সাঈম,জামিল আহমেদ, মঈনুল ইসলাম, ফখর উদ্দিন, জালেদ মিয়া, রাজু আহমদ, রিফাত আকরাম, জসীম উদ্দিন, আব্দুল হক প্রমুখ।
সুত্র : বাংলা কাগজ ।

জনপ্রিয় অনলাইন : পবিত্র ঈদে মিলাদুননবী (সা:) উপলক্ষে বার্সেলোনায় লতিফিয়া ফুলতলী জামে মসজিদে শানে মুস্তাফা ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কার্ডিফ ইউনিভার্সিটির প্রফেসর ড. মানসুর আলি। বিশেষ অতিথি হিসেবে  উপস্থিত ছিলেন বার্সেলোনা লতিফিয়া জামে মসজিদের খতিব মূফতী আবদুল জলিল।
দুই দিন ব্যাপি পবিত্র ঈদে মিলাদুননাবী (সা:) উপলক্ষে শানে মুস্তাফা ও মিলাদ মাহফিলে ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠিত অনুষ্ঠানে কোরআন তেলাওত,হামদ  ও নাতে রাসুল (সা:)এর  মাধ্যমে শুরু হয় মিলাদ ও দোয়ার মাধ্যমে শেষ হয়।ৱ
সুত্র : বাংলা কাগজ ।

মাম হিমু : ইউরোপের বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে থাকা নারায়ণগঞ্জ মহানগরের সিদ্ধিরগঞ্জের ঐতিহ্যবাহি বিদ্যাপীঠ আদমজী হাই স্কুল এবং গার্লস হাই স্কুলের সাবেক ছাত্র-ছাত্রীদের একত্রিত করার লক্ষ্যে গঠন করা হয়েছে অল ইউরোপিয়ান আদমজী বয়েজ এন্ড গার্লস স্কুল ষ্টুডেন্টস অ্যাসোসিয়েশন।
শুক্রবার প্যারিসের গার দু নর্দ এলাকায় ক্যাফে প্যারিজিয়াম রেষ্টুরেন্টে এক মতবিনিময় সভায় এ কমিটি গঠন করা হয়। ফরহাদ হোসেনের সভাপতিত্বে এবং নাজমুল হকের পরিচালনায় সভায় ভিডিও কনফান্সের মাধ্যমে ইউরোপের বিভিন্ন দেশে সাবেক আদমজী হাই স্কুল এবং গার্লস স্কুলের সাবেক ছাত্ররা অংশ নেন । সভায় নাজমুল হক (ফ্রান্স) কে আহ্বায়কে এবং ফরিদ আহমদ (লন্ডন) যুগ্ন আহ্বায়ক করে ২১ সদস্য বিশিষ্ঠ আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির অন্যান্য সদস্যরা হলেন যুগ্ন আহ্বায়ক দিদার আলম (স্পেন), কামরুন নাহার সীমা (আয়ারল্যান্ড), জাহাঙ্গীল আলম (আয়ারল্যান্ড), বাহাউদ্দিন মাহমুদ (লন্ডন), সুমন রানা শেখ (জার্মান), কাঞ্চন আহমদ (ইটালী), শেখ শাহ আলম (গ্রীস), জাফর হোসাইন খান (স্কটল্যান্ড) । সদস্য হাবিবা ইনসাফ শীলা (স্পেন), আশরাফী কনা (কোরিয়া), জাকির হোসাইন খান (সৌদীআবর), ইসলাম আনোয়ার (ইটালী), মিয়া মহিউদ্দিন (ফ্রান্স), রিয়াজ খান (ফ্রান্স), আমিরুল ইসলাম (লন্ডন), শহিদ আহমদ (ইটালী), ইমান হোসাইন (লন্ডন), মুকুল হোসাইন (স্পেন) , জামিল আহমদ (লন্ডন)।

সাইফুল আমিন,মাদ্রিদ : গত ১০ ডিসেম্বর রাত ৯ টায় মাদ্রিদের ঢাকা ক্যাফের হলরুমে,হাজী আজিজুল হক খালেক এর সভাপতিত্বে এবং এস এম আহমেদ মনির ও সাইফুল আলম আলমাসের যৌথ সঞ্চালনায় সভার শুরুতেই কোরআন তেলায়ত করেন নব নির্বাচিত সাংগঠনিক সম্পাদক আবুবকর।
এই প্রথম মাদ্রিদে অবস্থানরত সমগ্র বাংলাদেশ এর আঞ্চলিক কমিটির নেত্রীবৃন্দের উপস্থিতিতে সুন্দর সুশৃঙ্খল ভাবে শেষ হলো ঢাকা জেলা এসোসিয়েশন এর অভিষেক অনূষ্টান, সুন্দর শিক্ষিত সমাজ,ভ্রাতৃত্বপূর্ন সম্পর্ক,একে অন্যের সার্বিক সহযোগীতার অব কাঠামো প্রতিষ্টার লক্ষ নিয়ে উক্ত সংঘটন এর পথচলা।
সভায় নব নির্বাচিত সভাপতি শাহ আলম এবং সাধারণ সম্পাদক এস এম মাসুদুর রহমান সহ কার্যকরী কমিটির সকল সদস্যবৃন্দ কে ফুল দিয়ে বরন করেন প্রধান অতিথি বাংলাদেশ এসোসিয়েশন সভাপতি জামাল উদ্দিন মনির,বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ দূতাবাস এর কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম,
বক্তব্য রাখেন,বাংলাদেশ এসোসিয়েশন এর সাবেক সভাপতি এ এস আই এস রবিন,সিনিয়র সহ সভাপতি এনায়েতুল করিম তারেক, সাধারণ সম্পাদক কাম্রুজ্জামান সুন্দর,সাংবাদিক জহিরুল ইসলাম,গ্রেটার সিলেট এসোসিয়েশন এর সাধারণ সম্পাদক ইসলাম উদ্দিন পংখী,নারায়ণগঞ্জ জেলা সমিতির সভাপতি সুহেল ভুইয়া,নোয়াখালী এসোসিয়েশন এর সভাপতি সেলিম মিয়া,নরসিংদী ওয়েল ফেয়ার এর সভাপতি আলামিন,সাধারণ সম্পাদক আব্দুল গফুর মিলন,মহিলা সম্পাদিকা সাবানা রহমান,সহ নবনির্বাচিত কার্যকরী কমিটির সকল সদস্যবৃন্দ, পড়ে নৈশভোজের মাধ্যমে সভার সমাপ্তি হয়।

রিয়াদ : সাম্প্রতিক কালে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশকারী রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জরুরি স্বাস্থ্যসেবায় এগিয়ে আসার জন্য ওআইসি সদস্য দেশগুলোকে আহবান জানিয়েছে বাংলাদেশ।
জেদ্দায় ওআইসি স্বাস্থ্য মন্ত্রীদের ষষ্ঠ সম্মলনে বাংলাদেশ আজ এ আহবান জানায়। বাংলাদেশ থেকে স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়ের  একটি প্রতিনিধিদল ও বাংলাদেশ দূতাবাসের মিশন উপ-প্রধান ও ওআইসির Assistant Permanent Representative ডঃ এমডি নজরুল ইসলাম সম্মলনে অংশগ্রহন করেন। এ সম্মলনের থিম হল সব নীতিতে স্বাস্থ্য

সম্মেলনে বাংলাদেশ জানায় সাম্প্রতিককালে মায়ানমার থেকে বিতাড়িত প্রায় ছয় লক্ষ রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশকারীদের সাস্থসেবা প্রদান করা বাংলাদেশের জন্য বিরাট চ্যালেন্জের বিষয়। মিয়ানমার থেকে আসা শিশু, নারী ও বয়স্ক রোহিঙ্গা নাগরিকদের অধিকাংশই দুর্বল ও নানাবিধ রোগে আক্রান্ত। বাংলাদেশ সরকার জাতিসংঘ ও অন্যান্য দাতা সংস্থার সাথে সাধ্যমত তাদের দ্রুত স্বাস্থ্য সেবা ও ঔষধ প্রদান করে আসছে। তবে প্রয়োজনের তুলনায় তা যথেষ্ট নয়, তাই ওআইসি সদস্য রাষ্ট্রগুলোকে রোহিঙ্গাদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য বাংলাদেশ আহবান জানায়।

সম্মেলনে বাংলাদেশের প্রতিনিধি জানায়, ওআইসি সদস্য রাষ্ট্রগুলোর সাথে বাংলাদেশ স্বাস্থ্য খাতের চ্যালেঞ্জ গুলো অতিক্রম করে জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করতে চায়। বাংলাদেশ ইতোমধ্যে শিশুমৃত্যুর হার কমিয়ে সহস্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রার পুরস্কার পেয়েছে। উন্নয়নের এ ধারা বাংলাদেশ টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে ও ধরে রাখতে চায়।

২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ একটি মধ্যম আয়ের দেশে পরিনত হবে, এ লক্ষে সবার জন্য জ্ঞান-ভিত্তিক ডিজিটাল স্বাস্থ্য বাবস্থা গড়ে তোলার জন্য বাংলাদেশ কাজ করছে। জনগনের দোর গোঁড়ায় স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে দেয়ার লক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী নেতৃত্তে ইতিমধ্যে ১৩ হাজারের বেশি কমিউনিটি ক্লিনিক গড়ে তোলা হয়েছে।
বাংলাদেশের প্রতিনিধি জানান ইসলামিক দেশগুলির বেশিরভাগ মানুষ স্বাস্থ্যগত বিপর্যয়ের পাশাপাশি প্রাকৃতিক দুর্যোগের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ এবং এসকল ঝুঁকি মোকাবেলার অনেক অভিজ্ঞতা আমাদের আছে এবং ওআইসি সদস্য রাষ্ট্রগুলির সাথে বাংলাদেশ তার অভিজ্ঞতা সবসময় ভাগ করে থাকে।
সম্মেলনে বাংলদেশ স্বাস্থ্য খাতের অবস্থা উন্নত করার জন্য ও দুর্বল দেশগুলির জন্য টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করতে বরাদ্দ বাড়ানোর আহবান জানায়। সম্পদের সর্বোত্তম ব্যাবহার করে এবং বিজ্ঞান-ভিত্তিক জ্ঞান ব্যবহার করে স্বাস্থ্য খাতের চ্যালেঞ্জগুলিকে পরাজিত করবে বাংলাদেশ। সকলের জন্য সুস্থতা ও উন্নত স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করার জন্য ওআইসির সকল সদস্য রাষ্ট্রের সাথে কাজ করার জন্য প্রস্তুত বলে ও বাংলাদেশ জানায়।

স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়ের প্রতিনিধিদলের মধ্যে যুগ্ম সচিব জাকিয়া সুলতানা ও সিভিল সার্জন ডঃ জাকির হোসাইন খান সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন। গত ৫ ডিসেম্বর শুরু হয়েছে এ সম্মেলন যা শেষ হবে আগামী ৭ ডিসেম্বর।

 প্রেস রিলিজ :

কবির আল মাহমুদ,মাদ্রিদ : স্পেনে জাতিসংঘের শিক্ষা-সংস্কৃতি ও বিজ্ঞান বিষয়ক সংস্থা ইউনেস্কো কর্তৃক পৃথিবীর গুরুত্বপূর্ণ দালিলিক ঐতিহ্য হিসেবে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১৯৭১ সালের ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণের স্বীকৃতি অর্জন উদ্‌যাপন করা হয়েছে।
দেশটির রাজধানী মাদ্রিদে বাংলাদেশ দূতাবাসে গতকাল ৫ ডিসেম্বর প্রবাসী বাংলাদেশ কমিউনিটিকে সঙ্গে নিয়ে এই স্বীকৃতি যথাযথ মর্যাদা ও আনন্দঘন পরিবেশে উদ্‌যাপন করা হয়। অনুষ্ঠানে মাদ্রিদে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশি ও দূতাবাসের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন। এই স্বীকৃতি উপলক্ষেআলোচনা সভায় মিনিষ্টার এন্ড হেড অব চ্যানচারী হারুন আল রশীদের সঞ্চালনায় দিবসটি স্মরনে জাতির উদ্দেশ্যে দেয়া মহামান্য রাষ্টপতি ও মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর বানী পাঠ করে শুনান কমার্শিয়াল কাউন্সেলর মোহাম্মদ নাভিদ শফিউল্লাহ ও প্রথম সচিব লেবার উইং শরীফুল ইসলাম।এরপর বঙ্গবন্ধুর ১৯৭১ সালের ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণটির ভিডিও প্রজেক্টরের মাধ্যমে প্রদর্শন ও আনন্দ র‍্যালী বের করা হয়।
অনুষ্টানে প্রধান অতিথি স্পেনে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত হাসান মাহমুদ খন্দকার বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধে ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণকে মহাকাব্য হিসেবে অভিহিত করে এর তাৎপর্য তুলে ধরেন। এসময় তিনি বলেন,জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের ভাষন, ইউনেস্কো কর্তৃক বিশ্ব প্রামান্য ঐতিহ্য হিসেবে স্বীকৃতি লাভ করায় দিবসটি বাঙালী জাতির জন্য অত্যন্ত গর্বের ও গৌরবের।বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ঐতিহাসিক ভাষনটি বাংলাদেশের গন্ডি পেরিয়ে বিশ্ব দরবারে স্তান পেয়েছে। যা নতুন প্রজন্ম তথা বিশ্বের নিপিড়িত নির্যাতিত স্বাধীনতাকামী মানুষদের অধিকার আদায়ে উদ্বুদ্ধ করায় অনন্য ভুমিকা রাখবে। তিনি আরো বলেন, ইউনেসকো কর্তৃক প্রদত্ত এ স্বীকৃতি বিশ্ব দরবাররে আমাদের গোটা জাতিকে এক নতুন উচ্চতায় আসীন করেছে। এ স্বীকৃতিকে জাতীয় গৌরব ও বাঙালি জাতির এক নতুন পরিচয় হিসেবে আখ্যায়িত করে তিনি প্রবাসী বাংলাদেশিদের বাংলাদেশের চলমান উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় আরও সক্রিয়ভাবে অবদান রাখার আহ্বান জানান। সম্প্রতি ঢাকায় অনুষ্ঠিত দূত সম্মেলনের সূত্র ধরে রাষ্ট্রদূত হাসান মাহমুদ খন্দকার উপস্থিত বাংলাদেশ কমিউনিটিকে অবহিত করে বলেন আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশের উজ্জ্বল অবস্থান ও অর্জিত সুনামের জন্য প্রধানমন্ত্রী পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও বাংলাদেশ দূতাবাসসমূহের ভূয়সী প্রশংসা করেছেন।অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন স্পেন বাংলা প্রেস ক্লাবের উপদেষ্টা কবি মিনহাজুল আলম মামুন,সভাপতি সাহাদুল সোহেদ , দেশ কন্ঠ এর সম্পাদক সাংবাদিক এ,কে,এম জহিরুল ইসলাম,কবির আল মাহমুদ,সাইফুল আমিন,এইচ এম ইকবাল,আওয়ামীলীগ নেতা রিজভী আলম,এম আই আমিন,আইনজীবী তারেক হোসেন,মোহাম্মদ হাসান প্রমূখ, পরে ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণটি ইউনেসকো কর্তৃক স্বীকৃতি লাভ উপলক্ষে হিমেল শীতকে উপেক্ষা করে প্রবাসী বাংলাদেশি ও দূতাবাসের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আনন্দমুখর অংশগ্রহণে একটি আনন্দ শোভাযাত্রার মাধমে সমাপ্তি হয় ।

লায়েবুর খাঁন :: পর্তুগাল আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে সংবর্ধণা দেওয়া হলো গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সাবেক আইন মন্ত্রী,বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আব্দুল মতিন খসরু (কুমিল্লা ৫ আসনের এমপি )
পর্তুগাল আওয়ামী লীগের সভাপতি জনাব জহিরুল আলম জসিম এর সভাপতিত্বে এবং সাধারন সম্পাদক শওকত ওসমানের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন পর্তুগাল আওয়ামীলীগের সম্মানিত উপদেষ্টা জনাব মাহাবুব আলম ,সিনিয়র সহ সভাপতি মিয়া ফরহাদ,
যুব বিষয়ক সম্পাদক ইমরান হোসেন ভূইয়া, সহ আন্তর্জাতিক সম্পাদক সৌরভ সুমন ,সাবেক ছাত্র নেতা পর্তুগাল আওয়ামীলীগের সদস্য দেলোয়ার হোসাইন , পর্তুগাল আওয়ামীলীগ সমর্থক জাকির হোসাইন, পর্তুগালে নবগঠিত ছাত্রলীগ নেতা আনসার আলী ও বিতান বডুয়া।
সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে আর ও উপস্তিত ছিলেন পর্তুগাল আওয়ামী লীগ সহ সভাপতি পনির আজমল,বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি দেলোয়ার হোসেন,দপ্তর সম্পাদক শাফিউল আলম বাচচু,ইমরান হোসেন,জামাল ফকির,রেজাউল বাসিদ,তারেক হোসেন ,জাহাঙ্গীর আলম,আনন্দ
বডুয়া,মুকিতুর রহমান মুকিত,আলিম উদ্দিন,বদরুল আলম ,মাজেদুল,জিয়া,বাপপী ,৯০ দশকের সাবেক ছাত্র নেতা আওয়ামী লীগের সদস্য শফিউল আলম,পর্তুগালে অবস্থিত দূতাবাস প্রতিনিধি ,বাংলদেশ কমিনিউটির নেতৃবৃন্দ।
পর্তুগাল আওয়ামী লীগ ,যুবলীগ ,স্বেচ্ছাসেবক লীগ,বঙ্গবন্ধু পরিষদ,ও ছাত্রলীগের বিভিন্ন স্থরের নেতৃবৃন্দ।

সেলিম উদ্দিন,পর্তুগাল : দয়াময় আল্লাহতাআলার সম্পর্কের মূল এবং দুনিয়ার সব মানুষের জন্য সত্যের কেন্দ্র ও জীবনের সবদিকে সর্বকল্যাণের উৎস ও সকল বিণাশ থেকে সুরক্ষার উৎস প্রাণাধিক প্রিয়নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের মহান শুভাগমন ঈদে আজম উদযাপন উপলক্ষ্যে গত ২৮শে নভেম্বর বিশ্ব সুন্নী আন্দোলন পর্তুগাল শাখার উদ্যোগে লিসবন-এর রাধুনী রেস্টুরেন্ট হলে এক একাডেমীক কনফারেন্স ও সালাতুসালাম মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।
বিশ্ব সুন্নী আন্দোলনের প্রতিষ্ঠাতা এবং আহলে সুন্নাতের নির্দেশিত জীবন ব্যবস্থার মানবিক রূপরেখা খেলাফতে ইনসানিয়াত তথা সর্বজনীন মানবিক রাষ্ট্রব্যবস্থা ও মানবিক সাম্যের রূপরেখায় মুক্ত মানবতার অখন্ড বিশ্বব্যবস্থার দিকদর্শন বিশ্ব ইনসানিয়াত বিপ্লবের আহ্বায়ক আল্লামা ইমাম হায়াত-এর দিক নির্দেশনায়, সোহাগ মুন্সী-র সভাপতিত্বে নাজিম উদ্দিন-এর পরিচালনায় কনফারেন্স-এ বক্তব্য রাখেন কাজী জুলহাস মামুন, আল-মাহজাব, খাইরুল ইসলাম, আবু বাক্কার সিদ্দিক আবীর, শাহ্‌নূর আজাদ, আব্দুল্লাহ আল-মামুন ও আল-আমীন সহ আরও অনেকে। বক্তাগন বলেন, অস্তিত্বের প্রাণ প্রবাহ এ মহান শুভাগমনের দান ঈমান-দ্বীন-নাজাতের আলোকধারা প্রবাহিত রাখার জন্য দুনিয়ায় সত্য ও মানবতার মুক্ত রূপরেখা প্রতিষ্ঠায় এবং বাতিল জালিম অপশক্তির গ্রাস থেকে মুক্তির সাধনায় এ মহান শুভাগমনের লক্ষ্য বাস্তবায়নের একমাত্র পথ- প্রাণাধিক প্রিয়নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম প্রদত্ত সত্য ও জীবনের মুক্ত বিশ্বকাঠামো তথা ধর্ম-জাতি নির্বিশেষে সব মানুষের নিরাপত্তা-স্বাধীনতা- অধিকার-কল্যাণ ভিত্তিক সর্বজনীন মানবিক রাষ্ট্রব্যবস্থা ও মুক্ত মানবতার অবিভাজ্য বিশ্বব্যবস্থা বা একক গোষ্ঠির স্বৈরতামুক্ত শান্তিময় জীবন ও রহমতের দুনিয়া খেলাফতে ইনসানিয়াত। সত্য ও মানবতা এবং জীবনের জন্য প্রিয়নবীর শুভাগমনের চেয়ে বড় কিছু নেই উল্লেখ করে বক্তাগন ঈমান, দ্বীন ও নাজাতের মূল হিসাবে এ দুনিয়ায় প্রিয়নবীর শুভপ্রকাশ শুভাগমনের চির মহাউপলক্ষকে অন্য কোন সাধারন শব্দে নয়, আল্লাহতায়ালার পরম শুকরিয়া হিসেবে ঈদে আজম হিসেবে উদযাপন করার আহবান জানান।
কনফারেন্স-এ অন্যান্যদের মধ্যে বিশেষভাবে উপস্থিত ছিলেন রাজধানী লিসবনের সান্তা মারিয়া মাইওর -এর কাউন্সিলর রানা তসলিম উদ্দিন, ফ্রেন্ডশিপ এসোসিয়েশন-এর ভাইস-প্রেসিডেন্ট জনাব বাবুল সরকার, বিশিষ্ট সাংবাদিক সেলিম উদ্দিন সহ কমিউনিটির আরও অনেক বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ। সালাতুসালাম ও দোয়া-মোনাজাতের মাধ্যমে মাহফিলের সমাপ্তি হয়।

জনপ্রিয় অনলাইন : ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আনিসুল হকের দাফন সম্পন্ন হয়েছে। বনানী কবরস্থানে মা ও ছোট সন্তান শারাফের সঙ্গে চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন তিনি।

আজ শনিবার বিকেল ৫টা ১২ মিনিটে তাঁর দাফন সম্পন্ন হয়। এর আগে বিকেল সোয়া ৪টায় রাজধানীর আর্মি স্টেডিয়ামে তাঁর দ্বিতীয় জানাজা সম্পন্ন হয়। গতকাল শুক্রবার জুমার নামাজের পর লন্ডনের সেন্ট্রাল মসজিদে আনিসুল হকের প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।
জানাজার আগে আনিসুল হকের একমাত্র ছেলে নাভিদুল হক বলেন, ‘আমার বাবা ছিলেন একজন শৌখিন মানুষ। তিনি সুখী ও হাসি-খুশি মানুষ ছিলেন। দেশবাসীর কাছে বাবার জন্য দোয়া চাই। কাজের খাতিরে কেউ যদি আমার বাবার ব্যবহারে দুঃখ পেয়ে থাকেন, তাহলে আপনারা তাঁকে ক্ষমা করে দিয়েন।’ প্রয়াত এই মেয়রের কুলখানি ৬ ডিসেম্বর বুধবার। সেদিন গুলশানের আজাদ মসজিদে বাদ আসর তাঁর কুলখানি অনুষ্ঠিত হবে।

আজ শনিবার বেলা একটার দিকে আনিসুল হকের মরদেহ বহনকারী বাংলাদেশ বিমানের উড়োজাহাজটি (বিজি ০০২) হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে।
সেখানে পরিবারের পক্ষে ভাই সেনাবাহিনীর প্রধান জেনারেল আবু বেলাল মোহাম্মদ শফিউল হক মরদেহ গ্রহণ করেন।
 বিমানবন্দরে মেয়রের লাশ গ্রহণ করতে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর, বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন, ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি শফিউল আলম মহিউদ্দিন, বিজিএমইএর সভাপতি সিদ্দিকুর রহমানসহ ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সেখান থেকে বেলা ১টা ২০ মিনিটের দিকে মরদেহ বনানীর বাসায় নেওয়া হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আনিসুল হকের বনানীর বাসায় যান। তিনি মরহুমের পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানান এবং তাদের সঙ্গে কিছু সময় কাটান।
ওবায়দুল কাদেরসহ আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরীর নেতৃত্বে বিএনপির নেতৃবৃন্দ, ব্যবসায়ী, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্বসহ শত শত মানুষ আনিসুল হকের পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানাতে তাঁর বাসায় ছুটে যান।

সেখান থেকে আনিসুল হকের মরদেহ নিয়ে অ্যাম্বুলেন্সটি বেলা সাড়ে তিনটায় আর্মি স্টেডিয়ামে পৌঁছায়। সেখানকার চারটি ফটক দিয়ে হাজারো মানুষ সারিবদ্ধভাবে স্টেডিয়ামে ঢোকেন। ছিল উপচে পড়া ভিড়। বাইরেও ছিল সাধারণ মানুষের ঢল।
রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের পক্ষে সামরিক সচিব মেজর জেনারেল সরোয়ার হোসেন, প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে সামরিক সচিব মেজর জেনারেল মিয়া মোহাম্মদ জয়নুল আবেদিন, স্পিকার শিরীন শারমিনের পক্ষে ক্যাপ্টেন মোশতাক আহমেদ, আওয়ামী লীগের পক্ষে সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, ঢাকা দক্ষিণের মেয়র সাঈদ খোকন এবং সংসদ উপনেতা সাজেদা চৌধুরীর পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা জানানো হয়। এ ছাড়া বিজিএমইএ, এফবিসিসিআই, বিকেএমইএসহ সর্বস্তরের মানুষের ভালোবাসা ও শ্রদ্ধায় সিক্ত হন তিনি।

বাদ আসর জানাজায় রাজনীতিবিদ, ব্যবসায়ীসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার হাজারো মানুষের ঢল নামে। মেয়রের একান্ত সচিব আবরাউল হাসান প্রথম আলোকে বলেন, মেয়রের মরদেহের সঙ্গে দেশে এসেছেন তাঁর স্ত্রী রুবানা হক, ছেলে নাভিদুল হক, দুই মেয়ে ওয়ামিক উমায়রা ও তানিশা ফারিয়াম্যান হক।
গত ২৯ জুলাই ব্যক্তিগত সফরে সপরিবার যুক্তরাজ্যে যান মেয়র আনিসুল হক। অসুস্থ হয়ে পড়লে গত ১৩ আগস্ট তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর তাঁর শরীরে মস্তিষ্কের প্রদাহজনিত রোগ ‘সেরিব্রাল ভাস্কুলাইটিস’ শনাক্ত করেন চিকিৎসকেরা। এরপর তাঁকে দীর্ঘদিন আইসিইউতে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছিল। একপর্যায়ে মেয়রের শারীরিক পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হওয়ায় তাঁর কৃত্রিম শ্বাসযন্ত্র খুলে নেওয়া হয়। কিন্তু মঙ্গলবার মেয়রের পরিবারের একজন সদস্য বলেন, রক্তে সংক্রমণ ধরা পড়ায় তাঁকে আবার আইসিইউতে নেওয়া হয়। এরপর তাঁর ফুসফুসও আক্রান্ত হয়। বাংলাদেশ সময় বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে মারা যান মেয়র আনিসুল হক।
এফবিসিসিআই ও বিজিএমইএর সাবেক সভাপতি, ব্যবসায়ী ও একসময়কার জনপ্রিয় টেলিভিশন ব্যক্তিত্ব আনিসুল হক ২০১৫ সালে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী হিসেবে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র নির্বাচিত হন। ১৯৫২ সালে নোয়াখালী জেলার কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় জন্মগ্রহণ করেন তিনি। তবে তাঁর শৈশবের একটি বড় সময় কাটে ফেনীর সোনাগাজী উপজেলায় নানার বাড়িতে। আশি ও নব্বইয়ের দশকে টিভি উপস্থাপক হিসেবে ব্যাপক পরিচিতি পেয়েছিলেন আনিসুল হক। তাঁর উপস্থাপনায় ‘আনন্দমেলা’ ও ‘অন্তরালে’ অনুষ্ঠান দুটি জনপ্রিয়তা পায়। তবে পরে টেলিভিশনের পর্দায় মানুষ তাঁকে বেশি দেখেছিল ব্যবসায়ী নেতা হিসেবেই। ২০০৫-০৬ সালে বিজিএমইএর সভাপতির দায়িত্ব পালনের পর ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি হন তিনি। ২০১০ থেকে ২০১২ সাল মেয়াদে সার্ক চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতির দায়িত্বও পালন করেন আনিসুল হক।
সুত্র : দৈনিক প্রথম আলো ।

জনপ্রিয় অনলাইন : ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র, বিজিএমইএ ও এফবিসিসিআই'র সাবেক সভাপতি আনিসুল হকের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া।

বৃহস্পতিবার রাতে এক শোক বার্তায় সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী বলেন, 'একজন সজ্জন মানুষ হিসেবে মেয়র আনিসুল হকের মৃত্যু অত্যন্ত বেদনাদায়ক। আনিসুল হক তার জীবদ্দশায় নানামুখী কর্মকাণ্ডে যুক্ত রেখে সংশ্লিষ্ট সকলের নিকট নিজেকে ঘনিষ্ঠ করে তুলেছিলেন। সফল উদ্যোক্তা আনিসুল হকের সুনাম ছিলো সর্বজনবিদিত।'
তিনি আরো বলেন, 'আনিসুল হক তার উপর অর্পিত দায়িত্ব পালনে দক্ষতার পরিচয় দিয়েছেন। একজন কর্মনিষ্ঠ এবং বিনয়ী মানুষ হিসেবে তিনি ছিলেন সর্বমহলে সমাদৃত।'
'আনিসুল হক সমাজ সেবার নানা কর্মকাণ্ডের মধ্যেও নিজেকে যুক্ত রেখে ছিলেন' উল্লেখ করে বেগম জিয়া আরো বলেন, 'না ফেরার দেশে চলে গেলেও সামাজিক-অর্থনৈতিক- রাজনৈতিক ক্ষেত্রে তার ভূমিকা দেশবাসীর কাছে স্মরণীয় হয়ে থাকবে। তার পৃথিবী থেকে চলে যাওয়া দেশবাসীর মধ্যে শূন্যতার সৃষ্টি হয়েছে। আমি তার বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করছি এবং শোক সন্তপ্ত পরিবার-পরিজনের প্রতি জানাচ্ছি সমবেদনা।

সুত্র : দৈনিক ইত্তেফাক

Contact Form

Name

Email *

Message *

Powered by Blogger.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget