2016-11-20

সেলিম আলম,মাদ্রিদ : বাংলাদেশে নির্বাচন কমিশন গঠন ,সংখ্যালঘু নির্যাতন ও মানবতা লঙ্গন নিয়ে আলোচনা অনুষ্টিত হয়েছে । 

নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন গঠনের মাধ্যমে অতিদ্রুত সকল দলের অংশগ্রহণে সুষ্ট ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন আয়োজন করা এবং সংখ্যালগুদের উপর হামলা ও নির্যাতন বন্ধের আহব্বান জানিয়ে সভা করেছে ভয়েছ ফর বাংলাদেশ স্পেন শাখা ।সংগঠনের আহবায়ক সেলিম আলমের সভাপতিত্বে গত ২৩ নভেম্বর মাদ্রিদের বাংলা সেন্টারে এ আলোচনা সভা অনুষ্টিত হয়

আবু জাফর রাসেলের পরিচালনায় শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সদস্য সচিব খায়রুল আলম পলাশ  । মূল আ্লোচনায় অংশ গ্রহন করেন বিশিষ্ট কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব খুরশেদ আলম মজুমদার, সমাজ কর্মী মিনহাজুল আলম মামুন, বাংলাদেশ এসোসিয়েশনের সভাপতি জামাল উদ্দিন মনির ,সাধারন সম্পাদক কামরুজ্জামান  সুন্দর,আব্দুল কাইউম পংকি, মিজানুর রহমান বিপ্লব ,ইসলাম উদ্দিন পংকি ,হুমায়ুন কবির রিগ্যান ,সায়েদ মিয়া সহ সংগঠনের সদস্য বৃন্দ ।

 তারা বাংলাদেশের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন বর্তমান সরকার মানুষের অধিকার খর্ব করছে ,গনতন্ত্র বিলুপ্ত এবং মানবধিকার লঙ্গিত হচ্ছে, এই ভাবে যদি মানবাধিকার লঙ্গিত হতে থাকে তাহলে অচিরেই বাংলাদেশে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা তীব্র আকা্র ধারণ করতে পারে ।

দেশে শান্তি ফিরিয়ে আনতে সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন গঠনের মাধ্যমে জাতীয় নির্বাচনের বিকল্প নেই বলে তারা মতামত প্রকাশ করেন। এ সময় বার্মার আরাকান রাজ্যের মুসলমান নির্যাতন ও হত্যার তব্র নিন্দা জানান ।

এ সময় সাংবাদিক সাহাদুল সুহেদ, বকুল খান সহ অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সুহেল আহমেদ সামসু, সৈয়দ নাসিম, আব্দুল মোতাল্লিব বাবুল, দিদারুল কারিম, সিফার আহ্মেদ, ফজির আলী নাদিম , আসাদ খান প্রমুখ।

সেলিম উদ্দীন (লিসবন,পর্তুগাল): বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ এর মহা সম্মেলনে শরীয়তপুর জেলার কৃতিসন্তান এ,কে,এম এনামুল হক শামীম , বি এম মোজাম্মেল হককে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও ইকবাল হোসাইন অপুকে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য নির্বাচিত করায় পর্তুগালে বসবাসরত শরীয়তপুরবাসীগন আনন্দসভা করেছে।

গ্রীস আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শরীয়তপুরের কৃতিসন্তান মিজানুর রহমান মোল্লার সভাপতিত্বে ,বৃহওর ফরিদপুর এসোসিয়েশন পর্তুগালের সাধারন সম্পাদক এনামুল হক মিথুন ও পর্তুগাল প্রবাসী শরীয়তপুর জেলার এমদাত হোসেন বাবুর পরিচালনায় অনুষ্ঠান শুরু হয় পর্তুগালের স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৮টায়।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন পর্তুগাল আওয়ামী লীগের সভাপতি জহিরুল আলম জসিম, বৃহওর ফরিদপুর এসোসিয়েশন পর্তুগালের সভাপতিও পর্তুগাল আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা মাহাবুব আলম, পর্তুগাল আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শওকত ওসমান, 

পর্তুগাল আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক একে রাকিব,বৃহওর নোয়াখালী এসোসিয়েশন অব পর্তুগালের সিনিয়র সহ সভাপতি আবুল কালাম আজাদ,সাবেক সিলেট ছাত্রলীগের নেতা ও পর্তুগাল আওয়ামীলীগের সদস্য দেলোয়ার হোসেন বৃহওর ফরিদপুর এসোসিয়েশন পর্তুগালের রায়হান সরদার, পর্তুগাল আওয়ামীলীগ সদস্য নজরুল ইসলাম সুমন, আইয়ুব খাঁন, ফয়েজ আহম্মদ, ফাহিম।
বক্তারা তাদের বক্তব্যে অনুষ্ঠান চলাকালে স্কাইপে ভিডিও কনফারেন্স এর মাধ্যমে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক শামীম অনুষ্ঠানে আগত অতিথিবৃন্দ এবং পর্তুগাল প্রবাসী শরীয়তপুর জেলাবাসীদের এমন অনুষ্ঠান আয়োজন করার জন্য ধন্যবাদ জানান।এ সময় তিনি বলেন শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এখন বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল।

তার যোগ্য নেতৃত্বে দেখে বিশ্ব নেতৃবৃন্দরাও অবাক।এ সময় তিনি বঙ্গবন্ধুর সহ যোদ্ধা আব্দুর রাজ্জাক, প্রাক্তন পানি সম্পদ মন্ত্রীকে বিশেষ ভাবে স্মরণ করেন। 

অনুষ্ঠানে আরো উপস্তিত ছিলেন পর্তুগাল প্রবাসী কমিউনিটি ও রাজনৈতিক ব্যাক্তিত্য লেহাজ উদ্দিন, আব্দুর রাজ্জাক, পনির আজমল, শফিকুর ইসলাম, বিল্লাল হোসেন, ইমরান ভূঁইয়া, জামাল পকির, ফারুক, বাদল, সজিব, সালমান, ফায়েজ সহ পর্তুগাল আওয়ামীলীগের বিভিন্ন স্তরের নেতৃবৃন্দ।

জনপ্রিয় অনলাইন : মিয়ানমারের সংখ্যালঘু মুসলমান রোহিঙ্গাদের ওপর দেশটির সরকারের দমন-নিপীড়ন দীর্ঘদিনের। সরকার তাদের মৌলিক সব নাগরিক অধিকার থেকে বঞ্চিত করছে, তাদের বিয়ে করার অধিকার নেই, ধর্মকর্ম করার অধিকার নেই, শিক্ষার অধিকার নেই। ২০১২ সালে বৌদ্ধ চরমপন্থীদের সহিংসতার কারণে হাজার হাজার রোহিঙ্গাকে বাস্তুচ্যুত হতে হয়। অনেকে তখন জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চোরাকারবারিদের নৌকা করে পালিয়ে যায়। সে সময় এক লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা বিভিন্ন আশ্রয়কেন্দ্রে আশ্রয় নিতে বাধ্য হয়। এখন সেনাবাহিনীর অভিযানে রোহিঙ্গারা ফের তাদের গ্রাম ছাড়তে বাধ্য হচ্ছে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের খবর অনুযায়ী, সহিংসতা থেকে বাঁচতে গত রোববার ও সোমবার কয়েক শ রোহিঙ্গা মিয়ানমার থেকে সীমান্ত অতিক্রম করে বাংলাদেশে গিয়ে আশ্রয় প্রার্থনা করেছে। জাতিসংঘের একটি সংস্থা ইন্টারন্যাশনাল অর্গানাইজেশন ফর মাইগ্রেশনের একজন কর্মকর্তা রয়টার্সকে বলেছেন, তিনি দেখেছেন পাঁচ শয়েরও বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশ সীমান্তের কাছে তাদের আশ্রয় শিবিরগুলোতে প্রবেশ করেছে। রয়টার্স এ খবরও দিয়েছে যে চীনের সঙ্গে মিয়ানমারের সীমান্তে নিরাপত্তা বাহিনী ও বিদ্রোহীদের মধ্যে সংঘর্ষ চলছে।
গত ৯ অক্টোবর রাখাইন রাজ্যে মিয়ানমার সীমান্তের তিনটি চেকপোস্টে অস্ত্রধারীদের হামলায় দেশটির নয়জন পুলিশ সদস্য নিহত হওয়ার পর রোহিঙ্গাদের দমনে সেনাবাহিনীর এই অভিযান শুরু হয়। সীমান্তের তিনটি চেকপোস্টে কারা ওই হামলা চালিয়েছিল, এটা পরিষ্কার নয়। তবে মাদক চোরাচালান চক্র থেকে শুরু করে ইসলামপন্থী সন্ত্রাসীদের সবাইকে হামলাকারী বলা হচ্ছে। এ ঘটনার পর সেনাবাহিনীর অভিযানে শতাধিক মানুষ নিহত হয়েছে, যাদের বেশির ভাগই বেসামরিক লোক। আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস ওয়াচ প্রকাশিত স্যাটেলাইটে ধারণ করা ছবিতে দেখা গেছে, ২২ অক্টোবর থেকে ১০ নভেম্বর পর্যন্ত উত্তরাঞ্চলীয় রাখাইন রাজ্যের বিভিন্ন গ্রামের কমপক্ষে ৮৩০টি বাড়িঘর আগুনে পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।
অং সান সু চি রোহিঙ্গাদের বিদেশি হিসেবে বিবেচনা করছেন। তিনি বলছেন, রোহিঙ্গারা মিয়ানমারের নাগরিক নয়। তারা বাঙালি। তিনি আরও বলেছেন, পুলিশের ওপর হামলার জবাবে সেনাবাহিনীর এই অভিযান চলছে আইনের শাসনের ওপর ভিত্তি করে।
মিয়ানমারের সেনাদের বিরুদ্ধে লুটপাট চালানো, নিরস্ত্র লোকজনকে হত্যা এবং নারীদের ধর্ষণ করার অভিযোগ রয়েছে। তবে মিয়ানমারের সরকার এসব অভিযোগ অস্বীকার করছে। ৯ অক্টোবরের হামলা সম্পর্কে রাখাইন রাজ্যের সরকারি যে দলটি তদন্ত চালায়, সেই তদন্ত দলের চেয়ারম্যান উ অং উইন বলেছেন, মিয়ানমারের সেনারা কোনো রোহিঙ্গা নারীকে ধর্ষণ করবে না, কারণ তারা খুবই নোংরা
মিয়ানমারের সরকার সম্প্রতি ঘোষণা করেছিল যে তারা রাখাইন রাজ্যের সব অবৈধ স্থাপনা ভেঙে ফেলার পরিকল্পনা করেছে। এসব স্থাপনার মধ্যে রয়েছে ২৫ হাজার বাড়ি, ৬০০ দোকান, ১২টি মসজিদ এবং ৩০টিরও বেশি স্কুল। সরকারের এ ঘোষণার কারণেই হয়তো ৯ অক্টোবরের ওই হামলা হয়েছে।
এক বছর আগে মিয়ানমারে এক ঐতিহাসিক নির্বাচনের পর দেশটির গণতন্ত্রপন্থী নেত্রী ও শান্তিতে নোবেল পুরস্কার বিজয়ী অং সান সু চি নতুন একটি গণতান্ত্রিক সরকারের প্রধান হন। তাঁর এই বিজয়ে অনেকে আশা করেছিল যে তিনি হয়তো রোহিঙ্গাদের এই সংকট নিরসন করবেন। নতুন সরকারও মিয়ানমারের জনগণের মানবাধিকার ফিরিয়ে আনার ওপর গুরুত্ব আরোপ করেছিল। কিন্তু এখন মনে হচ্ছে, যা আশা করা হয়েছিল, তা ছিল ভুল। অং সান সু চি রোহিঙ্গাদের বিদেশি হিসেবে বিবেচনা করছেন। তিনি বলছেন, রোহিঙ্গারা মিয়ানমারের নাগরিক নয়। তারা বাঙালি। তিনি আরও বলেছেন, পুলিশের ওপর হামলার জবাবে সেনাবাহিনীর এই অভিযান চলছে আইনের শাসনের ওপর ভিত্তি করে।

এদিকে রাখাইন রাজ্যে বেশির ভাগ মানবিক সহায়তাই পৌঁছাচ্ছে না। জাতিসংঘ শিশু তহবিল (ইউনিসেফ) হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেছে, অপুষ্টির শিকার হাজার হাজার শিশু ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। তারা খাবার এবং স্বাস্থ্যসেবা কোনোটাই পাচ্ছে না। সরকারের উচিত অবিলম্বে ওই এলাকায় মানবিক সহায়তা পৌঁছাতে অনুমতি দেওয়া। জাতিসংঘ ও যুক্তরাষ্ট্র রাখাইন রাজ্যে চলমান এই সহিংসতার ব্যাপারে নিরপেক্ষ তদন্তের আহ্বান জানিয়েছে এবং হিউম্যান রাইটস ওয়াচ এ ব্যাপারে জাতিসংঘের সহায়তা নিতে মিয়ানমার সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে। যদি অং সান সু চি মানবাধিকারের ধ্বজাধারী হিসেবে তাঁর ভাবমূর্তি রক্ষা করতে চান, তাহলে তাঁকে এসব আহ্বানে এখনই সাড়া দিতে হবে।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিঃ ঐতিহ্যবাহী গোলাবশাহ কিশোর সংঘর ব্যবস্থাপনায় সামছুল-সাকিব-লিটন টি ২০ ক্রিকেট টুর্ণামেন্ট সফলভাবে আয়োজনের লক্ষ্যে এক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। খেলা পরিচালনা করার লক্ষ্যে গঠিত আহবায়ক কমিটির আহবায়ক শিব্বির আহমদের সভাপতিত্বে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় এসভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে উপস্থিত ছিলেন, যুগ্ম আহবায়ক আব্দুল আমিন, সদস্য সচিব মাসুদ আহমদ জনি, সদস্য আকবর হোসেন লাবলু, সুফিয়ান আহমদ, ছিদ্দিকুর রহমান, বদরুল ইসলাম, মোহাম্মদ সাব্বির হোসেন, জহিরুল  হক সুয়েব, কাওছার আহমদ, মাছুম আহমদ জনি, পায়েল আহমদ, তোফায়েল আহমদ,হেমায়েত উদ্দিন শুভ,নাদিম হোসেন।


উল্লেখ্য, বিয়ানীবাজার উপজেলার ঐতিহ্যবাহী  সামাজিক সংগঠন গোলাবশাহ কিশোর সংঘ এর ব্যবস্থাপনায় সংঘের সাবেক কর্মকর্তা সামছুল-সাকিব-লিটন টি ২০ ক্রিকেট টুর্ণামেন্টের উদ্বোধন হবে আগামী ২৫ শে ডিসেম্বর শুক্রবার বিকেল ৩ ঘটিকার সময়। পৌরশহরের পি.এইচ.জি মডেল হাই স্কুল মাঠে আয়োজিত উদ্বোধনী অনুষ্টানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন, বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) পরিচালক শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল। এছাড়াও  এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান খাঁন, উপজেলা  নির্বাহী  কর্মকর্তা মুহাম্মদ আসাদুজ্জামান, উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি আ্দুল হাছিব মনিয়া ও যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী কমিউনিটি নেতা নুরুল হক। উদ্বোধনী অনুষ্টানে বিকেল সাড়ে ৩ ঘটিকার সময় অনুষ্টিত হবে খেলায় অংশগ্রহণকারী দলদের নিয়ে মনোজ্ঞ ডিসপ্লে ও র‌্যালী। এরপর সন্ধ্যা ৬ ঘটিকার সময় অনুষ্টিত হবে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্টান। আর এর ঠিক পরদি শনিবার মাঠে গড়াবে সামছুল-সাকিব-লিটন টি ২০ ক্রিকেট টুর্ণামেন্টের উদ্বোধনী খেলা।

সফিউল সাফি,ডেনমার্কঃ বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ যুক্তরাজ্য  শাখার  সাধারণ সম্পাদক মিয়া আক্তার হোসেন ছানুর অকাল মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন ডেনমার্ক আওয়ামী লীগ, বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ ডেনমার্ক শাখা  সহ বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ ডেনমার্ক শাখা, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ ডেনমার্ক শাখার  সকল নেতৃবৃন্দ।

আক্তার হোসেন ছানু গত মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১ টায় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে রাজধানী ঢাকার বারডেম হাসপাতালে ইন্তেকাল করেছেন।আজ বুধবার বাদ আছর বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রিয় কার্যালয়ের সামনে তার নামাজের জানাজা অনুষ্ঠিত হয় ও সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার শ্রীরামসী গ্রামে দাফন করা হয়।  তিনি জীবিত অবস্থায় মিয়া ক্রীড়া ও যুব সংগঠক ছিলেন ও তার নেতৃত্বগুনে জননেত্রি শেখ হাসিনা সহ  প্রবাস এবং দেশের নেতৃবৃন্দের কাছে প্রিয় পাত্রে পরিনত হয়েছিলেন,সবসময় সংগঠনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল থেকে জননেত্রী শেখ হাসিনার কর্মসূচি বাস্তবায়নে নিজেকে উজার করে দিয়েছিলেন।
তার অকাল মৃততে ইউরোপ আওয়ামী পরিবারে শোকের ছায়া নেমে আসে।তার আত্মার মাগফিরাত কামনা করে শোকাহত পরিবারকে সমবেদনা জানান ডেনমার্ক আওয়ামী লীগের সভাপতি মোস্তফা মজুমদার বাচ্চু ও সাধারন সম্পাদক মাহবুবুর রহমান ও বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ ডেনমার্ক শাখার সভাপতি নাজিম উদ্দিন ও সাধারণ সম্পাদক বদরুল আলম রনি।   
শোক বার্তায় সম্মতি জানানঃ  ডেনমার্ক আওয়ামী লীগের   প্রধান  উপদেষ্টা  বাবু সুভাষ ঘোষ, মাহবুবুল হক, রাফায়েত হোসেন মিঠু, রিয়াজুল হাসনাত রুবেল,জাহিদুল ইসলাম কামরুল,সাইফুল আলম,  ইনসান ভইয়া।
ডেনমার্ক আওয়ামী লীগের সভাপতি  সহ-সভাপতিঃ নিজাম উদ্দিন, খোকন মজুমদার,নাসির উদ্দিন সরকার, জাহিদ চৌধুরী বাবু, মোহাম্মদ সহিদ, নাসরু হক,  যুগ্ম-সম্পাদকঃ নাঈম বাবু, নুরুল ইসলাম টিটু, সফিউল সাফি, সাংগঠনিক সম্পাদকঃ সরদার সাইদুর রহমান, মোহাম্মদ সেলিম,গোলাম কিবরিয়া শামীম।

আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদকঃ রাসেল, অভিবাসন বিষয়ক সম্পাদকঃ আরিফুল হক আরিফ,কৃষি বিষয়ক সম্পাদকঃ সাজ্জাদ হোসেন,তথ্য  ও গবেষনা বিষয়ক সম্পাদকঃ সম্্রাট,ত্রাণ ও সমাজ কল্যান বিষয়ক সম্পাদকঃ ইউসুফ আহম্মেদ,সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদকঃ কোহিনুর আক্তার মুকুল, ধর্ম-বিষয়ক সম্পাদকঃ কচি মিয়া,প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদকঃ  নীরু সুমন,বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদকঃ কামরুল ইসলাম, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদকঃ রেজাউল হক রেজা,মহিলা বিষয়ক সম্পাদকঃ তানিয়া সুলতানা চাপা,যুব ও ক্রিয়া বিষয়ক সম্পাদকঃ  মোহাম্মদ সেলিম,শিক্ষা ও মানব বিষয়ক সম্পাদকঃ নাজিম উদ্দিন খান,শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদকঃ মোতালেব হোসেন, শ্রম বিষয়ক সম্পাদকঃ গোলাম রাব্বি,সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদকঃ লায়লা আক্তার সীমা,স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদকঃ সামছু উদ্দিন,দপ্তর সম্পাদকঃ দেবাসীষ দাস,প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদকঃ নয়ন,কার্যকরী কমিটির সদস্য , মোসাদ্দিকুর রহমান রাসেল, রনি, ওমর,আমির জীবন , ফজলে রাব্বি  , সামসুল আলম, সোহেল আহমেদ, সাফায়েত অন্তর, শামীম খান ,তাসবির হোসেন,মাঞ্জুর আহমেদ মামুন, মনসর আহমেদ, মোহাম্মাদ ইউসুফ, মাসুম বিল্লাহ, শাওন রহমান , সাইদুর রহমান, নাজমুল ইসলাম, আরিফুল ইসলাম, হাসান শাহীন, তুহীন, আরিফুল হক আরিফ, আজাদুর রহমান, রাজ্জাক, নাজমুল হোসেন, দোলন,   সহ সকল নেতৃবৃন্দ। শোক বার্তায়  আরো বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ ডেনমার্ক শাখা ও বাংলাদেশ ছাত্রলীগ ডেনমার্ক শাখার  সকল নেতৃবৃন্দ।

এনায়েত হোসেন সোহেল,প্যারিস,ফ্রান্স : বর্ণ্যাঢ্য আয়োজন ও জাকজমক অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে ইউরোপের সর্ববৃহৎ সামাজিক সংগঠন ইউরোপিয়ন প্রবাসী বাংলাদেশ এসোসিয়েশন (ইপিবিএ) ফ্রান্স শাখার অভিষেক ও সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

গত ২০ নভেম্বর বিকেলে প্যারিসের এগলিস পান্তার এক অভিজাত হলে এ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। অভিষেক ও সাংস্কৃতিক সন্ধ্যার আনুষ্ঠানিক শুভ উদ্ভোধন করেন ইপিবিএ কেন্দ্রীয় পর্ষদের প্রধান উপদেষ্ঠা,চ্যানেল আই ইউরোপের ম্যানেজিং ডিরেক্টর রেজা আহমদ ফয়সল চৌধুরী শোয়েব।
বাংলাদেশের জাতীয় সংগীতের মধ্যে দিয়ে শুরু হওয়া অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ইপিবিএ ফ্রান্স শাখার সভাপতি ফারুক খান। তিন পর্বে সাজানো অনুষ্ঠানের প্রথম পর্ব পরিচালনা করেন সংগঠনের ফ্রান্স শাখার সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সালাম।

এ সময় চার ধর্মের ধর্ম যাজকরা তাদের সাম্প্রদায়িকতা ও মানবতা বিষয়ে নিজ নিজ ধর্মের শান্তির বাণী উপস্থিত সুধী জনের সম্মুখে তুলে ধরেন। অভিষেক অনুষ্ঠানে নবগঠিত ইপিবিএ ফ্রান্স শাখার সকল নেতৃবৃন্দেকে উত্তরীয় পরিয়ে পরিচয় করিয়ে দেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি শাহানুর খাঁন। পরে ইপিবিএ পরিচিতি, কার্যক্রম ও পরিকল্পনা তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন,সংগঠনের কেন্দ্রীয় প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক সাংবাদিক এনায়েত হোসেন সোহেল।ফ্রেঞ্চ ভাষায় শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন, কেন্দ্রীয় কর্মসংস্থান সম্পাদক শাহাদৎ হোসেইন সাইফুল। সংগঠনের কোষাধক্ষ মনির হোসেন ও মহিলা সম্পাদিকা শিল্পী সুমা দেশের পরিচালনায় দ্বিতীয় পর্বে আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন, অভিষেক অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ব্রিটেনের টাওয়ার হেমলেটসের স্পিকার কাউন্সিলর খালিছ উদ্দিন আহমদ,অনুষ্ঠানের প্রধান আলোচক ইপিবিএ কেন্দ্রীয় সভাপতি শাহানুর খাঁন,বাংলাদেশ সরকারের নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম-সচিব মোহাম্মদ হাসানুর রহমান,ইপিবিএ সিনিয়র সহসভাপতি শওকত হোসেন বিপু,উপদেষ্টা এইচ এস হায়দার,যোদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী, সম্মানিত সদস্য এম এ তাহের, কেন্দ্রীয় কমিটির সহসভাপতি কামরুল হাসান জনি,তারাউল ইসলাম,জিকু বাদল, আশরাফুল ইসলাম,মামুন মিয়া। এসময় ফ্রান্সের কমিউনিটির পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন, বিশিষ্ঠ সাহিত্যিক হাসনাত জাহান, এডভোকেট রমজিদ আলী,বিকশিত নারী সংঘের সভানেত্রী তৌফিকা সাহেদ,সাহিত্যিক শরীফ আহমদ সৈকত,ফিনল্যান্ড প্রবাসী মোহাম্মদ আব্দুর রশিদ প্রমুখ। বক্তারা দেশ গঠনে সকল প্রবাসীদের অবদানকে স্মরণীয় করে রাখতে প্রতিবছর একদিন প্রবাসী দিবস পালন,প্রবাসীদের মরদেহ রাষ্ট্রীয় খরচে দেশে প্রেরণ,দ্বৈত নাগরিকত্ব প্রদান,প্রবাসীদের আইডি কার্ড প্রদান,ভোটাধিকার প্রয়োগ,ঢাকাসহ বিভিন্ন বিমানবন্দরে ইমিগ্রেশন হয়রানির প্রতিকারসহ বেশ কয়েকটি বিষয়ে বাংলাদেশ সরকারের ইতিবাচক সহযোগিতার আবেদন জানান এবং ইপিবিএর জোরালো দাবির পরিপ্রেক্ষিতে- প্রবাস বন্ধু কল সেন্টার চালু করায় বাংলাদেশ সরকারকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান। এসময় অনুষ্ঠানে আগত প্রধান অতিথি স্পিকার খালেছ উদ্দিন ফ্রান্স প্রবাসী ও ইপিবিএ ফ্রান্সের নেতৃবৃন্দকে ফ্রান্সের মূলধারার রাজনীতিতে সম্পৃক্ত হওয়ার উদাত্ত আহবান জানান। পরে ইপিবিএ ফ্রান্স শাখার উদ্যোগে ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধে বিশেষ অবদান রাখার জন্য যোদ্ধাহত মুক্তিযুদ্ধা শেখ মুহাম্মদ আলী, ফ্রান্সের বাংলাদেশী কমিউনিটিতে বাংলায় ফ্রান্স ভাষা শিক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকার জন্য কৌশিক রাব্বানী, ইউরোপে বাংলা গানের প্রচার ও প্রসারের জন্য শিল্পী আরিফ রানা, ফ্রান্সে রন্ধন প্রতিযোগিতায় প্রথম হওয়ার জন্য রাবেলাইস ট্যাঁলেন্ট ইব্রাহিম খলিলকে বিশেষ সম্মাননা প্রদান করা হয়।সম্মাননা প্রদান করেন অনুষ্ঠানের অতিথিবৃন্দ।মঞ্চে এ সময় উপস্থিত ছিলেন,সভাপতি ফারুক খাঁন,সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সালাম,সাংগঠনিক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেইন। অনুষ্ঠানের তৃতীয় পর্বের প্রথমে সংগঠনের ফ্রান্স শাখার সাংস্কৃতিক সম্পাদক সুস্ময় শরীফের নির্মাণে ও এইচ এস হায়দারের পরিকল্পনায় প্রবাসীদের নানাবিদ সমস্যা নিয়ে ফিকশন মিসড দ্যা প্রমিজ অফ বাস প্রদর্শিত হয়।জাদু প্রদর্শন করেন ম্যাজিক রাজা জাহাঙ্গীর। এ সময় কবি রবিশঙ্কর মৈত্রীর কবিতার আসর দর্শকদের একটি চমৎকার সন্ধ্যা উপহার দেয়। নিত্য পরিবেশন করে মিষ্টি,বৃষ্টি ও স্বর্ণালী অনামিকা। অনুষ্ঠানের শেষ পর্বে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সুস্ময় শরীফ ও সুমা দাসের প্রাণবন্ত উপস্থাপনায় মনোজ্ঞ সংগীতানুষ্ঠানে গান পরিবেশন করেন লন্ডন থেকে আগত জনপ্রিয় শিল্পী গৌরী চৌধুরী, ফ্রান্সের জনপ্রিয় শিল্পী আরিফ রানা ও বাংলাদেশ থেকে আগত শিল্পী তানমিন ফুল।

জনপ্রিয় অনলাইন : ফিলিপাইনের প্রেসিডেন্ট রদ্রিগো দুতার্তে বলেছেন, রহিঙ্গা শরণার্থীদের আমাদের দেশে পাঠিয়ে দাও আমরা তাদের গ্রহণ করব। দেশ কানায় কানায় পূর্ণ না হওয়া পর্যন্ত শরণার্থীদের স্বাগত জানাবো।

বৃহস্পতিবার কাতারভিত্তিক টেলিভিশন চ্যানেল আল-জাজিরাকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এসব কথা বলেন দুতার্তে। যখন পশ্চিমা দেশগুলো তাদের সীমান্ত শরণার্থীদের জন্য বন্ধ করে দিচ্ছে সেসময় রদ্রিগো দুতার্তে বলেন, তাদের আমাদের কাছে পাঠিয়ে দাও। আমরা তাদের গ্রহণ করব।
২০১৫ সালে সারা বিশ্বে আনুমানিক ১৮ লাখ মানুষ শরণার্থী হয়েছে। প্রতিদিনের ভিত্তিতে ২০০৫ সাল থেকে গত বছর পর্যন্ত জোর করে লোকজনের বাস্তুচ্যুত হওয়ার পরিমাণ বৃদ্ধি পেয়েছে প্রায় ৩০০ শতাংশ।
১০০ মিলিয়ন জনসংখ্যার দেশ এবং দ্রুতই দরিদ্র লোকের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়া ফিলিপাইনে শরণার্থীদের স্বাগত জানিয়ে রদ্রিগো দুতার্তে বলেন, পশ্চিমা দেশগুলো সাহায্য করতে ব্যর্থ হওয়ায় তাদের (শরণার্থীদের) ফিলিপাইনে প্রবেশে স্বাগত জানানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছি
তিনি বলেন, আমি বলছি, তাদের আমাদের দেশে পাঠান। আমরা তাদের গ্রহণ করব। আমরা সব শরণার্থীকে গ্রহণ করব। তারা মানুষ, তারা (শরণার্থীরা) সব সময় এখানে আসতে পারে। যতক্ষণ না আমার দেশ কানায় কানায় পূর্ণ হবে, ততক্ষণ আমি তাদের স্বাগত জানাব।
পশ্চিমা দেশগুলোর উদ্দেশে রদ্রিগো দুতার্তে বলেন, আপনারা মানবাধিকারের ব্যাপারে খুব অমায়িক হতে পারেন। কিন্তু হঠাৎ করেই কোনো কারণ ছাড়াই আবার আপনারা এ অবস্থান পরিবর্তন করেন। আপনা সেখানেই থাকেন। শরণার্থীরা যেন আসতে না পারে এ জন্য আপনারা কাঁটাতারের প্রাচীর বা বেড়া নির্মাণ করেন। আমরা তাদের মতো ভণ্ড নই, আমরা যা করি সবার সামনেই করি।
সন্দেহভাজন মাদক বিক্রেতা ও ব্যবহারকারীদের হত্যার কারণে ইউরোপীয় ইউনিয়ন এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র রদ্রিগো দুতার্তের বিরুদ্ধে মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ করে আসছেন বারবার। 
অভিযোগ আছে, দুতার্তে দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকে এ বছরের ৩০ জুন পর্যন্ত তিন হাজার ছয় শ ৮০ জন মানুষ নিহত হয়েছেন। এরা পুলিশ ও অজ্ঞাত পরিচয়ের হামলাকারীদের হাতে নিহত হয়েছেন। কিন্তু দুতার্তে তার এই শক্ত অবস্থানের জন্য অনুতপ্ত নন।
প্রায়ই পশ্চিমা বিশ্বের উদ্দেশে কথা বলার সময় দুতার্তের অশ্লীল ভাষা ব্যবহার নিজ দেশে তার জনপ্রিয়তা বাড়িয়ে দিয়েছে। দুতার্তে বর্তমান মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামাকে অশ্লীল ভাষায় গালি দিয়েছেন। তিনি ইউরোপীয় ইউনিয়নকে ভণ্ড বলে উল্লেখ করেছেন। 
এ ছাড়া তিনি জাতিসংঘ থেকে বেরিয়ে যাওয়ার হুমকি দিয়েছেন। হিটলারের সঙ্গে তার তুলনা সমর্থন করে বলেছেন, তিনি সানন্দে ৩০ লাখ মাদকাসক্তকে মেরে ফেলতে পারবেন। তবে এসব কথাই দুতার্তে বলেন মাদকের বিরুদ্ধে তার রক্তাক্ত লড়াইয়ের সমালোচনার জবাবে।
সদ্য নির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন বেফাঁস কথাবার্তার জন্য তারই মতো সুপরিচিত রদ্রিগো দুতার্তে। 

তিনি বলেন, এখন আর আমি লড়াই করতে চাই না। কেননা, ইতোমধ্যে ট্রাম্প ক্ষমতায় চলে এসেছেন।আমরা দুজনই গালমন্দ করতে পছন্দ করি। আমরা দুজন একই রকম।

সুফিয়ান আহমদ,বিয়ানীবাজার প্রতিনিধিঃ বিয়ানীবাজারের ঐতিহ্যবাহী সামাজিক সংগঠন গোলাবশাহ কিশোর সংঘ এর ব্যবস্থাপনায় সামছুল-সাকিব-লিটন টি ২০ ক্রিকেট টুর্ণামেন্টে উপলক্ষ্যে স্থানীয় সাংবাদিক ও টুর্ণামেন্টে অংশগ্রহণকারীদল নিয়ে এক প্রেস কনফারেন্স অনুষ্টিত হয়েছে। সংগঠনের সভাপতি (ভারপ্রাপ্ত) আবিদ হোসেন জাবেদের সভাপতিত্বে সোমবার সন্ধ্যা ৬টায় উপজেলা কনফারেন্স হলে এই প্রেস কনফারেন্স অনুষ্টিত হয়।

সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আকবর হোসেন লাভুলর সঞ্চালনায় এতে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাম্মদ আসাদুজ্জামান,উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক ও সংঘের উপদেষ্টা ইসলাম উদ্দিন, গোলাবশাহ সমাজ কল্যাণ সংস্থার সাধারণ সম্পাদক ও সংঘের উপদেষ্টা নজরুল ইসলাম, সংঘের গভর্ণিং বডির চেয়ারম্যান আবু আহমেদ সাহেদ, বিয়ানীবাজার সরকারী কলেজের ভি.পি কামিল হোসেন, সংঘের উপদেষ্টা এনাম উদ্দিন, আক্তার উদ্দিন অনিক, আজিম উদ্দিন, গভর্ণিং বডির সদস্য সাইফুদ্দিন আহমদ নোমান, সাইফুল ইসলাম সুয়েল ও মারুফ আহমদ, সাংবাদিক আহমেদ ফয়সাল, সাদেক আহমদ আজাদ, শাহিন আলম হৃদয়, আবুল হাসান, ইমাম হাসনাত সাজু, শিপার আহমদ পলাশ ও তোফায়েল আহমদ,বিয়ানীবাজার ক্রিকেট এসোসিয়েশনের সাবেক সভাপতি জিয়াউর রহমান, বর্তমান সভাপতি সালেক আহমদ, ক্রীড়া সংগঠক জাবেদ হোসেন, জুনেদ খান, সালেহ আহমদ শাহিন, ওয়াহিদুর রহমান, শাহান আহমদ, জাকারিয়া আহমদসহ খেলায় অংশগ্রহণকারী ১৬ টি দলের ম্যানেজার, অধিনায়ক, খেলোয়াড়বৃন্দ ও সংগঠনের সকল নেতৃবৃন্দ।
সংঘের ক্রীড়া সম্পাদক মাসুদ আহমদ জনির শুভেচ্ছা বক্তব্যের মাধ্যমে শুরু হওয়া কনফারেন্সে জানানো হয়, আগামী ২৫ শে নভেম্বর শুক্রবার বিকেল ৪টায় পিএইচজি হাই স্কুল মাঠে সাংস্কৃতিক অনুষ্টানের মাধ্যমে খেলার অনুষ্টানিক উদ্বোধন ঘোষণা করা হবে। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন, বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালক শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল।

নক আউট পদ্ধতিতে ও আন্তর্জাতিক মান বজায় রেখে আয়োজিত এখেলায় অংশগ্রহণ করবেন, নর্থ সাউথ স্পোর্টিং ক্লাব, জলঢুপ ক্রিকেট ক্লাব, ঘুঙ্গাদিয়া ক্রিকেট ক্লাব, স্বাধীন বাংলা ক্রিকেট ক্লাব, বঙ্গবন্ধু স্মৃতি পরিষদ, বসুন্ধরা ক্রিকেট ক্লাব, এ্যারাইভেল্স ক্রিকেট ক্লাব, চলন্তিকা ক্রিকেট ক্লাব, নিদনপুর সুপাতলা ইয়ুথ এসোসিয়েশন, ফতেহপুর ক্রিকেট ক্লাব, খাসাড়ীপাড়া ক্রিকেট ক্লাব, ঘুঙ্গাদিয়া নবীন সংঘ, বড়দেশ ক্রিকেট ক্লাব, বিয়ানীবাজার ক্রিকেট একাডেমী, দ্যা লিজেন অব বিয়ানীবাজার,নিদনপুর চাষী ইয়ুথ ক্লাব।

আফাজ জনি : স্পেনের বার্সেলোনার বাংলা স্কুল আয়োজন করে বই বিতরণ উৎসব ও আলোচনা সভা। 

গত ১৯ নভেম্বর  স্থানীয় স্কুলা পিয়ায় অনুষ্ঠিত হওয়া এ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন স্কুল সভাপতি শাহ আলম স্বাধীন এবং পরিচালনা করেন শিক্ষক জাহাঙ্গীর আলম। এ সময় অন্যানের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ দূতাবাসের লেবার উইং এর কাউন্সিলর মোহাম্মদ শরিফুল ইসলাম, অনারারি কন্সুলার রামন পেদ্র, আউয়াল ইসলাম, জুয়েল আহমদ প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে প্রায় অর্ধ শতাধিক শিশু কিশোরকে বাংলা ভাষার প্রতি আগ্রহ স্মৃষ্টিতে দুতাবাসের সহযোগীতায় বই বিতরণ করা হয়। বাংলা আমাদের শেকড় উল্লেখ করে অতিথি এবং আয়োজকরা অভিবাকদেরকে আমন্ত্রন জানান, তাদের ছেলে মেয়ের বাংলা লিখা এবং পড়ার প্রতি আগ্রহ বাড়াতে।                                       

Contact Form

Name

Email *

Message *

Powered by Blogger.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget