2016-07-24

বাংলাদেশ দুতাবাস,মাদ্রিদ
     Embassy Location
Embajada de Bangladesh
Calle Manuel Marañon 13
28043 Madrid, Spain
Tel: (+34) 91 402 3085
       (+34) 91 401 9932
Fax:(+34) 914 029 564

Horario de atención telefónica:
10:00h - 13:00h
15:00h - 17:00h

বি:দ্র : আপনি দুতাবাসের উভেব সাইট খুলে এমআরপি পাসপোর্ট ফরম সহ অনলাইনে আবেদন পত্র করতে পারবেন । অনলাইন আবেদনে ব্যতিত আপনার আবেদন গ্রহন যোগ্য হবে না ।
                          Consulate of Bangladesh in Barcelona, Spain
C/ Londres 35, 2º-4ª
08029 Barcelona
Spain

TELEPHONE
(+34) 93 410 83 89
 (+34) 93 322 06 70
HEAD OF MISSION
Mr Ramón Pedro Bernaus, Honorary Consul

অনলাইন ডেস্ক : লেবাননে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত নোয়াখলীর হাতেম আলী মারা গেছেন। গত দুই দিন লেবাননের কানাডিয়ান হাসপাতালের নিবির পরিচর্যা কেন্দ্রে থাকার পর আজ ভোরে তার মৃত্যু হয়।

গত শনিবার সকালে কাজে যাবার সময় রাস্তা পারাপারকালে প্রাইভেট কারের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে মাথায় আঘাত পান। লেবানন রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি তাকে কানাডিয়ান হাসপাতালে ভর্তি করেন।
জানা যায়, নোয়াখালীর সেনবাগ থানার বীরকোট গ্রামের আব্দুল হাসেমের ছেলে হাতেম আলী পরিবারের দারিদ্রতা ঘোচাতে লেবানন আসেন। শনিবার সকালে প্রত্যেক দিনের ন্যায় কাজে যাচ্ছিলেন, জিসর ভাসা সড়কে রাস্তা পার হতে যায়। এসময় একটি দ্রুতগামী গাড়ি তাকে ধাক্কা দেয়। মাথায় আঘাত পেয়ে প্রচুর রক্তক্ষরণ ঘটে। তখন লেবানন রেড ক্রস সোসাইটি তাকে হাসপাতালে নিয়ে যান।
ওয়াসিম আকরাম নামে নোয়াখালীর এক প্রবাসী জানায়, তার লাঁশ নিয়ে বিপাকে পরেছে স্বজনরা, কারণ গত দুই বছর আগে হাতেম লাইফ সার্ভিস নামে এক ক্লিনার কোম্পানিতে কাজ নিয়ে লেবানন আসেন। আসার পর প্রথম আকামা হলেও, কোম্পানির আইনি জটিলতায় দ্বিতীয় আকামটি হয়নি। তার নিজের কোম্পানিতে কাজ করে যাচ্ছিলেন। ভিসা জটিলতা কাটিয়ে তাকে দেশে ফেরত পাঠাতে বাংলাদেশ সরকার ও সরকারের সংশ্লিষ্ট দপ্তর এবং বৈরুত দূতাবাসের হস্তক্ষেপ কামনা করেন তিনি।


জনপ্রিয় অনলাইন ডেস্ক: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উদ্দেশ্য করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেছেন, বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ আমাদের মত কিছু নেতাকে সাজা দিয়ে আপনি (শেখ হাসিনা) নিস্তার পাবেন না। যা কিছু করেন স্বচ্ছভাবে করেন। যখন ক্ষমতায় থাকবেন না, তখন আপনারও ৩০২ দ্বারা মামলার আসামি হতে পারেন। গণতন্ত্রের পথে শত্রুকে চেনা যায়।  ঘায়েল করা যায়। তাই গণতন্ত্রের পথে আসুন। আপনিও বাঁচেন, দেশকেও বাচান।
বৃহস্পতিবার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে জাতীয়তাবাদী কৃষক দল আয়োজিত প্রতিবাদ সভায় তিনি এসব কথা বলেন।
সরকার কর্তৃক রাজনৈতিক প্রতিহিংসামূলক দায়েরকৃত মুদ্রা পাচার মামলায় জজ আদালতের দেয়া বেকসুর খালাসের রায় বাতিল করে বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে সাজা দেয়ার প্রতিবাদে এ প্রতিবাদ সভার আয়োজন করা হয়।  
সরকারের মনোভাব নগ্ন থেকে নগ্ন হচ্ছে বলে মন্তব্য করে গয়েশ্বর বলেন, উত্তরাধিকারীকে ধ্বংস করলেই সব কিছু ধ্বংস হয়ে যায় না। সরকার যে খেলায় মেতেছেন সে খেলা খুব ভাল নয়। কেউ যদি মনে করে কিছু লোককে জেলে দিয়ে সমম্যার সমাধান হয়ে যাবে। এটা ভুল। সমস্যা কিছু লোকের না। সমস্যা ১৬ কোটি মানুষের।  কিছু লোককে  জেলে দিয়ে ক্ষমতায় টিকে থাকা যায় না।
তিনি বলেন, তারেক রহমানকে সাজা দেয়া হয়েছে। খালেদা জিয়াও এই কাতারে আছেন। এর সংখ্যা কত হবে জানি না। তবে সাবেক সংসদ সদস্য, বিএনপির সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকসহ দুই হাজারের মত হবে। তাদের সাজা দিবেন দেন। তারপরেও বলবো জনগণের ভোট জনগণকে দিতে দিন। আপনাদের জামানত থাকবে না।
আওয়ামী লীগ নেতা শেখ সেলিমের বক্তব্যের সমালোচনা করে গয়েশ্বর বলেন, শেখ সেলিম বলেছেন, তারেক রহমান ৩ কোটি টাকা দিয়ে আদালতকে প্রভাবিত করে রায় নিয়েছেন। তারেক রহমান যদি বিদেশে বসে আদালতবে প্রভাবিত করে। তাহলে সরকার ও আইনমন্ত্রী কি উচ্চ আদালতকে বায়েষ্ট করে তারেক রহমানকে সাজা দিয়েছেন। আর আদালত সম্পর্কে আমরা কোন কথা বললেই আদালতে হাজির হতে হয়। আর সেলিম যে আদালত সম্পর্কে ৩ কোটি টাকার তথ্য দিল; তাহলে তাকে কেন আদালতে আনেননি। তাহলে আমরা কোথায় আছি।
জঙ্গিবাদের উত্থান হতে কোন সরকারই টিকসই হবে না বলে জানিয়ে তিনি বলেন, উগ্রবাদ- সন্ত্রাস- জঙ্গিবাদ শুধু সরকার বা বিএনপির সমস্যা নয়। এটা গোটা রাষ্ট্র তথা সমাজের জন্য হুমকি। জঙ্গিবাদ হলে দেশের উন্নয়নও হবে না। এজন্যই বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া দলমতের উর্দ্ধে উঠে জাতীয় ঐক্যের আহবান জানিয়েছেন।
বিএনপি নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্য করে বিএনপির এই নেতা বলেন, ঘরের মধ্যে প্রতিবাদ করলে হবে না। আমেরিকার মত দেশ হলে হত। আমাদের দেশে হবে না। আমাদের ঠিকানা রাস্তায়। রাস্তায় বসেই সমাধান করতে হবে। আমরা তারেক রহমানের জন্য প্রতিবাদ করছি না। আমরা প্রতিবাদ করছি গণতন্ত্রের ও মানুষের অধিকারের জন্য।

বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও কৃষক দলের সাধারণ সম্পাদক শামসুজ্জামান দুদুর সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য রাখেন, কৃষক দলের সহ সভাপতি আলহাজ্ব এম এ তাহের, আলহাজ্ব নাজিম উদ্দিন মাস্টার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তকদির হোসেন জসিম, ছাত্রদলের দফতর সম্পাদক আব্দুস সাত্তার পাটোয়ারী ও অ্যাডভোকেট নিপুন রায় চৌধুরী প্রমুখ।

জনপ্রিয় অনলাইন ডেস্ক :  সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপি ও জামায়াত একই মেরুর বাসিন্দা। আদর্শগতভাবে তারা খুব কাছাকাছি। বিএনপির জামায়াত ছাড়ার গুঞ্জন শোনা গেলেও আনুষ্ঠানিক কোনো ঘোষণা আসেনি। যদি বিচ্ছিন্ন হয়, তাহলে সেটা হবে লোক দেখানো।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে ফেনীর মহিপাল এলাকায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ছয় লেনের উড়ালসড়কের (ফ্লাইওভার) নির্মাণকাজের অগ্রগতি পরিদর্শনের সময় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে সেতুমন্ত্রী এ কথা বলেন।
কারা জঙ্গিবাদের ইন্ধন দিচ্ছেনএমন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীর নজরে আছে। তিনি (প্রধানমন্ত্রী) এরই মধ্যে এ বিষয়ে ইঙ্গিতও দিয়েছেন। শিগগিরই বিষয়টি উন্মোচিত হবে। অপর এক প্রশ্নের জবাবে সেতুমন্ত্রী বলেন, জাতীয় সংসদ নির্বাচন যথাসময়ে অনুষ্ঠিত হবে। বর্তমান সংসদের মেয়াদ পূর্তির (৫ বছর) তিন মাস আগে নির্বাচন করার সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা রয়েছে। বর্তমান সংসদের মেয়াদ আড়াই বছর শেষ। কাজেই এখন থেকেই নির্বাচনের প্রস্তুতি নিতে হবে। সে কারণেই প্রধানমন্ত্রী দলের সংসদীয় সভায় সাংসদদের নির্বাচনী প্রস্তুতি নিতে নির্দেশনা দিয়েছেন।
উড়ালসড়কের কাজের অগ্রগতিতে সন্তোষ প্রকাশ করে মন্ত্রী বলেন, ২০১৭ সালের ডিসেম্বরের মধ্যেই এ কাজ শেষ হবে।
সড়ক বিভাগের জমি বেদখল হওয়া প্রসঙ্গে সেতুমন্ত্রী বলেন, অবৈধ দখলকারীদের দখল ছাড়তে ৩১ জুলাই পর্যন্ত মাইকে প্রচার করা হবে। ১ আগস্ট থেকে উচ্ছেদ অভিযান শুরুর জন্য তিনি সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের নির্দেশ দেন।

এ সময় মহিপালে ছয় লেন উড়ালসড়ক কাজের দায়িত্বে থাকা সেনাবাহিনীর মেজর শিবলী সাদিক, ফেনীর পুলিশ সুপার মো. রেজাউল হক, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো. আবুল হাসেম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. সামছুল আলম সরকার উপস্থিত ছিলেন।

জনপ্রিয় অনলাইন ডেস্ক:  দেশের পুরোনো জঙ্গি সমস্যা নতুন করে মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আধুনিক তথ্যপ্রযুক্তির অপব্যবহার করে তারা ফায়দা লুটছে। এ বিষয়ে সবাইকে সচেতন থাকতে হবে। জনপ্রশাসনে আধুনিক তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার বৃদ্ধির প্রশংসা করে তিনি বলেন, আধুনিক, গতিশীল ও উদ্ভাবনীমূলক জনপ্রশাসনই দেশকে উন্নয়নের সর্বোচ্চ শিখরে নিয়ে যেতে পারে।

আজ বৃহস্পতিবার সকালে উন্নয়ন উদ্ভাবনে জনপ্রশাসন-২০১৬ শীর্ষক আন্তর্জাতিক সম্মেলনের উদ্বোধনকালে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এক্সেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) প্রকল্পের উদ্যোগে সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ ও রূপকল্প-২০২১ বাস্তবায়নের বিভিন্ন উদ্ভাবন দেশীয় ও আন্তর্জাতিক মহলে তুলে ধরতে এ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান নভোথিয়েটারে সম্মেলনটি অনুষ্ঠিত হয়।
শেখ হাসিনা বলেন, এ দেশটি আমাদের সকলের। আসুন, তথ্যপ্রযুক্তির সর্বোত্তম ব্যবহার করে আমরা দেশের উন্নয়নের জন্য আরও নতুন নতুন বিষয় উদ্ভাবন করি। আগামী প্রজন্মের জন্য আমাদের বর্তমানকে উৎসর্গ করি। তিনি আরও বলেন, বিশ্বের উন্নত দেশের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে দ্রুত, উন্নততর ও সহজলভ্য সেবা দিতে হলে আমাদের আরও বেশি দক্ষতা অর্জন করতে হবে।
শেখ হাসিনা বলেন, আমরা চাই জনগণ সেবার জন্য ঘুরবে না, সরকার জনগণের দোরগোড়ায় সেবা পৌঁছে দেবে।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের রয়েছে বিশাল মানবসম্পদ। তথ্যপ্রযুক্তির সঙ্গে এই মানবসম্পদকে সম্পৃক্ত করতে হবে। সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে নাগরিকদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে হবে। তবেই আমরা কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারব।
প্রধানমন্ত্রী অনুষ্ঠানের শেষে উন্নয়ন উদ্ভাবনে জনপ্রশাসন-২০১৬ শীর্ষক সামিট উপলক্ষে আয়োজিত বিভিন্ন স্টল ঘুরে দেখেন।
অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন জনপ্রশাসনমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিমন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান এবং ইউএনডিপির এদেশীয় প্রতিনিধি পলিন টেনাসিস। সভাপতিত্ব করেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব শফিউল আলম ভূঁইয়া।
অনুষ্ঠানে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত, শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদসহ মন্ত্রিপরিষদ সদস্য, প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা, সাংসদ, সরকারের উচ্চপর্যায়ের কর্মকর্তা, জেলা প্রশাসক ও বিভাগীয় কমিশনার, স্বায়ত্তশাসিত ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা, মালদ্বীপ ও ভুটানের মন্ত্রী, কূটনৈতিক মিশনের সদস্য, বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূত এবং উন্নয়ন সহযোগী দেশের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহারের ক্ষেত্রে দেশের ৬৪টি জেলার মধ্যে ব্রাহ্মণবাড়িয়া, যশোর ও চট্টগ্রামএই তিন জেলাকে শ্রেষ্ঠ জেলার এবং শ্রেষ্ঠ বিভাগ হিসেবে ঢাকাকে সম্মাননা প্রদান করেন। তিন জেলার জেলা প্রশাসক যথাক্রমে মোশাররফ হোসেন, হুমায়ুন কবির ও মেজবাহ উদ্দিন নিজ নিজ জেলার পক্ষে প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে সম্মাননা স্মারক গ্রহণ করেন। আর ঢাকা বিভাগের পক্ষে বিভাগীয় কমিশনার হেলাল উদ্দিন আহমদ প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে সম্মাননা স্মারক নেন।

প্রতিনিধি: বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে ৭ বছরের কারাদণ্ড, ২০ কোটি টাকা জরিমানা ও গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির প্রতিবাদে বিশ্বনাথ ডিগ্রি কলেজ ছাত্রদলের উদ্দ্যেগে বুধবার দুপুর ২ঘটিকার সময় বিশ্বনাথ উপজেলা বিএনপির' কার্যালয়ে কলেজ ছাত্রদল নেতা আলম খাঁনের সভাপতিত্বে ও ছাত্রদল নেতা আব্দুস সালাম জুনেদ এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় নেতৃবৃন্দ বলেন, সাবেক রাষ্ট্রপতি ও বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের পরিবারকে ধ্বংস করতেই ও তারেক রহমানের আকাশচুম্বী জনপ্রিয়তায় শংকিত হয়ে বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে ৭ বছরের সাজার রায় দিয়েছে! তাকে রাজনৈতিক ভাবে মোকাবেলায় ব্যর্থ হয়ে অবৈধ সেনা সমর্থিত সরকার এবং শেখ হাসিনার মহাজোট সরকার তাঁর বিরুদ্ধে সীমাহীন অপপ্রচারের পাশাপাশি কয়েকটি মিথ্যা মামলা দিয়েছে। অনেক চেষ্টা করেও তারেক রহমানের বিরুদ্ধে এখনও পর্যন্ত কোন মামলায় তাকে দোষী সাব্যস্ত করতে পারেনি সরকার। একটিতেও তার বিরুদ্ধে প্রমান হাজির করতে না পেরে হীন উদ্দেশ্যমূলক ভাবে এই মামলায় তাকে দন্ডাদেশ দেওয়া হয়েছে। অভিলম্ভে এই আদেশ প্রত্যাহারের দাবি এবং বিএনপির কেন্দ্রীয় সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এম ইলিয়াস আলী সহ সকল গুমকৃত নেতাকর্মীকে অভিলম্ভে নিজ নিজ পরিবারের মাঝে ফিরিয়ে দেওয়ার জোরদাবি জানান নেতৃবৃন্দ। প্রতিবাদ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বিশ্বনাথ উপজেলা ছাত্রদলের যুগ্ম-আহ্বায়ক জসিম আহমদ। এছাড়া সভায় নেতৃবৃন্দ, বিশ্বনাথ উপজেলা ছাত্রদলের প্রাক্তন আহ্বায়ক, বিএনপির নেতা শামছুল ইসলাম, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক কাওছার খান, উপজেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক শাহ আমির উদ্দিন ও কলেজ ছাত্রদল নেতা শাহ নিজাম সহ নেতা কর্মীর উপর সদ্য দায়কৃত মামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। উক্ত প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন, কলেজ ছাত্রদল নেতা জুবেল আহমদ, শাহ টিপু, দিলোয়ার আহমদ, সাজ্জাদুর রহমান, দিলাল আহমদ, আজাদ মিয়া, এমরান আহমদ, রাসেল শাহ, আনহার মিয়া, গোলাম কামরান, নাজিম উদ্দিন, মন্জুর আলম, পপলু , রাসেল আলী, আব্দুল্লাহ, জায়েদ মিয়া, ফয়সল আহমদ, ইসমাইল, হোসেন আহমদ প্রমূখ।

মোহা: আব্দুল মালেক হিমু ,ফ্রান্সের  তুলুজ থেকে : প্যারিস শহরের পরেই বাংলাদেশী অধ্যুষিত ২য় শহর পিঙ্ক সিটি খ্যাত তুলুজে শহর । সেখানে প্রায় দুহাজার বাংলাদেশীর বসবাস।

তারা একে অপরের সাথে সৌহার্দপূর্ণ, ভাতৃত্ববোধ ও বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক বজায় রেখে বসবাস করে আসতেছেন প্রায় ১৫ বছরের ধরে । ঈদের দিন একত্রে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করতে না পারলেও ২৫ শে জুলাই রোববার ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি এবং নতুন প্রজন্মের কাছে ঈদের আমেজ বোঝানোর জন্যই ঈদ পূর্নমিলনীর আয়োজন করে বাংলাদেশী কমিউনিটি এসোসিয়েশন তুলুজ । রোববার ছুটির দিন সেই সাথে যোগ সামার ভেকেশন আর রোদ্র উজ্জল দিন সব মিলিয়ে ভিন্ন এক আমেজ ।  বাসা থেকে নারীরা নিয়ে এসেছেন ফিন্নি আর সেমাই ।

তুলুজের প্রানকেন্দ্রে অবস্থিত একটি হলে বিকেল ৩টায় জড় হয়েছেন তুলুজ প্রবাসী বাংলাদেশীরা । অনুষ্ঠান স্থলে অতিথিরা পৌছালে তুলুসবাসী ফুলেল শুভেচ্ছায় বরন করে নেন অথিতিদের । প্রথম পর্বে  শুরু হয় ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় ও বক্তব্য পর্ব। সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি ফখরুল আকম সেলিম এবং পরিচালনা করেন সাকের চৌধুরী । অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন ফ্রান্সস্থ বাংলাদেশ দুতাবাসের কমার্সিয়াল কাউন্সিলর ফিরোজ উদ্দিন, বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন অল ইউরোপিয়ান বাংলাদেশ এসোসিয়েশনের মহাসচিব কাজি এনায়েত উল্লাহ, বাংলাদেশ সমিতি বার্সোলনার সভাপতি মাজহারুল ইসলাম মিন্টু, কমিউনিটি ব্যাক্তিত্ব জাহাঙ্গীর হোসেন, তাজিম উদ্দিন খোকন, ফারুখ হোসেন, অনু রোজারীও, ফেরদৌস খান, ইফতেকার মাহমুদ রাজু, নাজির হোসেন লিটন, ফিরোজ আলম মামুন, আহসান মোল্লা সহ আরো অনেকে। বক্তরা বলেন, এরকম আয়োজন বাংলাদেশী সংস্কৃতিকে ইউরোপে বিকশিত করবে এবং একে অপরের সাথে ভ্রাত্রিত্ব ভাড়াতে সহায়ক হবে । 

অনুষ্ঠানে বিপুল সংখ্যাক তুলুস প্রবাসী বাংলাদেশীদের পাশাপাশি মহিলা ও শিশুদের উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মত । অনুষ্ঠানের ২য় পর্বে মেহদী হাসান স্বপনের পরিচালনায় ইটালী থেকে আগত এবং স্থানীয় শিল্পীদের নৃত্য ও গানে মুগ্ধ  উপস্থিত দর্শকদের ।

সফিউল সাফি, কোপেনহেগেনঃ গত ২৫শে জুলাই ২০১৬ রাত ১০ঃ৩০ ঘটিকায় কনিয়া কাবাব (নরেব্র)  রেস্তোরাঁয়  ডেনমার্ক আওয়ামী লীগের সভাপতি মোস্তফা মজুমদার বাচ্চু কে কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে কার্যনির্বাহী সদস্য করায় ডেনমার্ক আওয়ামী লীগের সকল নেতা কর্মীর পক্ষ থেকে তাকে প্রানডালা  অভিনন্দন সহ ফুলেল শুভেচ্ছা দেওয়া হয়।

উক্ত অনুষ্ঠানে ডেনমার্ক আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মণ্ডলীর চেয়ারম্যান  বাবু সুভাষ ঘোষ সহ  ডেনমার্ক ও ইউরোপের বিভিন্ন দেশ থেকে অনেক নেতৃবৃন্দ মুঠোফোনের মাধ্যমে তাকে  অভিনন্দন জানান।
সভাপতি মোস্তফা মজুমদার বাচ্চু তাকে কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে নির্বাহী সদস্য করায় কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সংগ্রামী সভাপতি প্রিয় নেতা পরিকল্পনা মন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল ও সাধারণ সম্পাদক প্রিয় নেতা রেলপথ মন্ত্রী মুজিবুল হক মুজিবকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান  সাথে সাথে বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রি ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।  তিনি বলেন প্রবাসে রাজনীতির পাশাপাশি মাতৃভূমিতে  জনগণের কণ্যানে কাজ করতে হবে সবাই একত্র হয়ে জননেত্রি ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে কাজ করে যেতে হবে। 
ডেনমার্ক আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহবুবর রহমান  ডেনমার্ক আওয়ামী লীগের সকল নেতৃবৃন্দের পক্ষ থেকে তাকে শুভেচ্ছা সহ অভিন্দন্দন জানান ও পরে সকলে মিলে তাকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান।     
অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন  ডেনমার্ক আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মণ্ডলীর সদস্য  রাফায়েত হোসেন মিঠু, হাসনাত রুবেল, সহ সভাপতি নিজাম উদ্দিন, জাহিদ চৌধুরী বাবু, মোহাম্মদ শহীদ,নাসির উদ্দিন সরকার,  যুগ্ম-সম্পাদক সফিউল সাফি , কার্যকরী কমিটির সদস্য রাসেল আহমেদ , শামিম খান , সাফায়েত অন্তর,সুজন হুসাইন, মঞ্জুর মামুন, মনসর আহমেদ,  ইবনে রাবি, মুস্তাক আহমেদ, শাহ আলম, সহ বাংলাদেশ   আওয়ামী যুব লীগ ডেনমার্ক শাখা , বাংলাদেশ  আওয়ামী  স্বেচ্ছাসেবক লীগ ডেনমার্ক শাখা ও  বাংলাদেশ ছাত্রলীগ ডেনমার্ক শাখার অনেক  নেতৃবৃন্দ। অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত বৃহত্তর কুমিল্লা সমিতির, ডেনমার্ক এর  সাবেক সভাপতি ও বর্তমান  উপদেষ্টা হাসান তরফদার ও  সহ সভাপতি  সালাউদ্দিন আহমেদ এবং নির্বাহী সদস্য  ও ডেনমার্ক আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সফিউল সাফি  সহ আরো অনেকে ।    
গত ২৩শে জুলাই  রাতে  কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের ৭১ সদস্য বিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটি  অনুমোদন করা হয়েছে । কুমিল্লার সদর দক্ষিণ উপজেলার লালমাই কলেজ মাঠে গত ৬ ফেব্রুয়ারি সম্মেলন অনুষ্ঠানের সাড়ে ৪ মাসের মাথায় এ পূর্ণাঙ্গ কমিটি অনুমোদন করা হয়েছে। ঐ সম্মেলনে সভাপতি পদে পরিকল্পনা মন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালকে সভাপতি এবং রেলপথ মন্ত্রী মুজিবুল হক মুজিবকে সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচিত ঘোষণা করে সম্মেলনের প্রধান অতিথি আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী শেখ ফজলুল করিম সেলিম। এরপর প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিমের মাধ্যমে ৭১ সদস্য বিশিষ্ট একটি পূর্ণাঙ্গ কমিটি অনুমোদনের জন্য কেন্দ্রীয় কমিটিতে প্রেরণ করেন।

অনলাইন ডেস্ক:  বড়লেখার চান্দ গ্রামের আলোচিত আব্দুল মজিদ (সাদ) হত্যার বিচারের দাবীতে আজ ২৬ জুলাই রোজ মঙ্গলবার দুপুর ২ ঘটিকার সময় চান্দ গ্রাম বাজারে এক প্রতিবাদ সভা ও মৌন মিছিল করা হয়েছে। প্রতিবাদ সভায় চান্দ-গ্রামের সামাজিক সংগঠন তরুণ প্রজন্ম চান্দ-গ্রাম , চান্দ-গ্রামের বাজারের পরিচালনা কমিটি ও ব্যবসায়ীবৃন্দ, ,চান্দ-গ্রাম বাজার সি এন জি শ্রমিকবৃন্দ,রহমানিয়া ছাএ সংসদ চান্দগ্রাম মাদ্রাসা,চান্দগ্রাম উচ্চ বিদ্যালয়, চান্দগ্রাম ক্রিকেট ক্লাব,ইউনিটি ক্রিকেট ক্লাব চান্দ-গ্রাম, মুক্তিযােদ্ধা সোলায়মান মিয়া একাডেমি চান্দ-গ্রাম ,চান্দগ্রাম এ ইউ ফাজিল ডিগ্রি মাদরাসা ,চান্দ-গ্রাম যুব সংঘ ,সানরাইজ কিন্ডার গার্ডেন ,লিটল বার্ডস কিন্ডার গার্ডেন সহ চান্দ-গ্রামের আরও বিভিন্ন সংগঠন যোগদান।

বেলা ২ঘঠিকা হতে চান্দ গ্রাম বাজারে প্রায় ২হাজার গ্রামবাসী রাস্থা বন্ধ করে কালো ব্যাজ বুকে লাগিয়ে মানব-বন্ধন করে।এর পর বাজার থেকে গ্রামের প্রতিটি রাস্থা মৌন মিছিল নিয়ে প্রদক্ষিণ করে। এসময় ব্যবসায়ী সাদ মিয়া হত্যার সঠিক তদন্ত সাপেক্ষে আসামিদের গ্রেপ্তার ও বিচারের দাবী জানানো হয়।

এর পর চান্দ গ্রাম বাজার ব্যবসায়ী সমিতির ব্যানারে প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। চান্দ গ্রাম বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সহ সভাপতি নজমুল ইসলামের সভাপতিত্বে এবং খাইরুল আলম নুনুর পরিচালনায় এসময় সন্ত্রাস বিরুদ্ধই ও সাদ মিয়ার বিচার দাবী করে বক্তব্য রাখেন বড়লেখা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মনিরুজ্জামান,বড়লেখা উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান বিবেকানন্দ দাশ নান্টু, নিজ বাহদুরপুর ইউ পি চেয়ারম্যান ময়নুল হক,ব্যবসায়ী আব্দুস সালাম, আলহাজ্ব হেলাল উদ্দিন, আব্দুল মুতাল্লিব, প্রবীণ মুরব্বি আব্দুল খালিক,সাবেক ইউ পি সদস্য আব্দুল খালিক,তরুন প্রজন্ম চান্দ গ্রামের প্রধান উপদেষ্টা জহুরুল ইসলাম,তরুন প্রজন্ম চান্দ গ্রামের সভাপতি ও নিহতের ভাতিজা বাবলু হুসেন,সাধারন সম্পাদক আবু সুফিয়ান। মৌলভীবাজারের বড়লেখার চান্দগ্রাম থেকে ১৮ই জুলাই সোমবার রাতে নিখোঁজের দু'দিন পর বাড়ির অদূরে ছাদ উদ্দিনের অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ।

এলাকাবাসী ও থানা পুলিশ সূত্র জানায়, নিজবাহাদুরপুর ইউপির উত্তর চান্দগ্রাম গ্রামের মৃত সুরুজ আলীর ছেলে ও স্থানীয় চান্দ্রগাম বাজারের ব্যবসায়ী আব্দুল মজিদ দোকান থেকে বাড়ি যাওয়ার পথে গত শুক্রবার রাত থেকে নিখোঁজ হন। এরপর পরিবারের সদস্যরা বিভিন্ন স্থানে খোঁজ নিয়েও তার কোনো সন্ধান পায়নি। তাকে না পেয়ে শনিবার জিডি করা হয় পরিবারের পক্ষ থেকে। সোমবার রাত আনুমানিক ১১টায় বাড়ির অদূরে আব্দুল মজিদের লাশ পাওয়া যায়। খবর পেয়ে রাতেই লাশটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মৌলভীবাজার মর্গে পাঠায় পুলিশ। এলাকাবাসীর ধারণা, ব্যবসায়িক লেনদেন সংক্রান্ত কারণে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ওই ব্যবসায়ীকে হত্যা করা হয়েছে। লাশের সুরতহাল রিপোর্ট প্রদানকারী থানা পুলিশের এসআই আনোয়ার হোসেন সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, লাশটি প্রায় পঁচে গিয়েছিল।

মোঃ কামরুজ্জামান,ফ্রান্স : ফ্রান্সের উত্তরাঞ্চলের নরম্যান্ডি অঞ্চলের সেইন্ট ইথিনি-দু-রোউভারি নামে একটি গির্জায় হামলা চালিয়েছে দুই জন অস্ত্রধারী। 

এ সময় গির্জাতে একজন যাজক, দুইজন নারী ধর্মপ্রচারক ছাড়াও জিম্মিদের মধ্যে গির্জা যাতায়াতকারী আরো কয়েকজন রয়েছেন। জিম্মি করার পর দুই অস্ত্রধারী এবং এক জিম্মি মারা গেছে বলে জানিয়েছে পুলিশ এবং স্থানীয় গণমাধ্যম। পুলিশের গুলিতে নিহত হওয়ার আগেই এক জিম্মিকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে হত্যা করে জিম্মিকারীরা। ফ্রান্সের থ্রি টেলিভিশন জানিয়েছে, গির্জার ভেতরে গুলির শব্দ শোনা গেছে। খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে দেশটির নিরাপত্তা বাহিনী ও জরুরি সেবা বিভাগের সদস্যরা । ঘটনাস্থলের গোটা এলাকা ঘিরে রেখেছে পুলিশ এবং আশপাশে কাউকে যেতে দেওয়া হচ্ছে না। তবে কি কারণে তাদের জিম্মি করা হয়েছিল, সে ব্যাপারে এখনও নিশ্চিত নয় পুলিশ। ঘটনার পরেই গোটা ফ্রান্স জুড়ে নিরাপত্তা ব্যবস্থা বাড়ানো হয়েছে । ঘটনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে ঘটনাস্থলে যাচ্ছেন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ফ্রাঁসোয়া ওলাঁদ এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বারনার্দ ক্যাজেনভ।

ইতালী প্রতিনিধি : বৃহত্তর ঢাকা সমিতি, ইতালীর এই বার্ষিক বনভোজনে বোলসেনা শহরের মেয়র, পুলিশ সুপার ও ক্যারাবিনিয়ারী সহ প্রশাসনের কর্মকর্তার উপস্থিতিতে সম্প্রতি ঢাকায় সন্ত্রাসী হামলায় বিশেষ করে ৯জন ইতালীয় নাগরিক হত্যার প্রতিবাদ এবং নিহতদের সম্মানের এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। 

এসময় সম্মানীত অতিথিবৃন্দ ইতালীতে বাংলাদেশীদের কর্মকান্ডের প্রশংসা করেন। আয়োজকরা মনে করেন ইতালীয়দের এমন অংশগ্রহনে এ আয়োজন আনন্দ বিনোদনের পাশাপাশি প্রাতিষ্ঠানিক ভাবে বাংলাদেশীদের সম্মান এনে দিয়েছে। ইউরোপ অভিবাসীদের জীবনে প্রশান্তির সময়ই হচ্ছে গ্রীষ্মকালীন সময়। যান্ত্রিক জীবনের একঘেয়ামী দূর করতে বৃহত্তর ঢাকা সমিতি, ইতালীর আয়োজিত বার্ষিক বনভোজন বরাবরই ইতালী অভিবাসীদের একটু প্রশান্তির পরশ সুযোগ করে দেয়। ইউরোপে গ্রীষ্মকাল মানেই হচ্ছে সারা বছরের ক্লান্তি দূর করতে অভিবাসী ছুটে যান নিজেদের পছন্দমত স্থানে, তেমনি বৃহত্তর ঢাকা সমিতি, ইতালী অভিবাসীদের যান্ত্রিক জীবন থেকে বের করে বার্ষিক বনভোজনের আয়োজন করেছে লাগো দি বোলসেনা। ইউরোপের বৃহত্তর আগ্নেয় হ্রদ এবং ইতালীর বৃহত্তম পঞ্চম হ্রদ বোলসেনা। যা রাজধানী রোম থেকে ১২৫ কিলোমিটার দূরে উত্তরাঞ্চলের লাজিও আগ্নেয়গিরি প্রধান ক্যালডেয়ায় অবস্থিত। 

এই উপবৃত্তকার আকৃতির ১১৩,৫ বর্গ কিলোমিটার বোলসেনা লেক এ নির্মল আনন্দ দেওয়ার ব্যবস্থা রাখে। রয়েছে পর্যটকদের মুগ্ধ করতে নয়নাভিরাম এই লেকটির চারপাশ সৌন্দর্য বিস্তৃত। সংগঠনেরর সকল কর্মকর্তার অক্লান্ত পরিশ্রমের ফলে গোছালো পরিবেশ এবং অপার অফুরন্ত সৌন্দর্য্য প্রবাসীদের ক্লান্তি দূর করে দেয়। বনভোজনে যাত্রাকালীন নানান আনন্দ কিংবা ফিরে আসার সময় আনন্দ, হাসি-তামাশা ইত্যাদি বিষয়াবলি সত্যিই অন্তরঙ্গ মূহুত্ব স্মৃতির মনিকোঠায় রয়ে যাবে। আয়োজনের মধ্যবর্তী সময়কালে ভোজন পর্ব এবং পরবর্তী সময়ে খেলাধুলার আয়োজন করা হয়। এসময় সকল বয়সীদের নিয়ে সাজানো হয় নানান ধারার আনন্দ। প্রকৃতিবাদী অভিবাসীদের মত লেক তীরে অসংখ্য পর্যটক ভীর জমায় এই সামার মৌসুমে। 

অসংখ্য পর্যটকের মাঝে কিছুটা সময় হলেও রোমস্থ বাংলাদেশ কমিউনিটি যেন হারিয়েছিল আন্দের ভুবনে। বৃহত্তর ঢাকা সমিতি ইতালীর সভাপতি কাজী মনসুর আহমেদ শিপু ও সাধারন সম্পাদক মঞ্জুর আহমেদ মঞ্জুর স্বার্বিক তত্ত্বাবধানে বনভোজনে অংশগ্রহন করে ধূমকেতু স্যোশাল অর্গানাইজেশন এর প্রতিষ্ঠাতা নূরে আলম সিদ্দিকী বাচ্চু , বৃহত্তর ঢাকা সমিতি ইতালীর উপদেষ্ঠা হাবিব চৌধুরী, বাংলাদেশ জাতীয় ক্রীড়া সংস্থা ইতালীর সাধারন সম্পাদক আব্দুর রশীদ, বাংলা প্রেস ক্লাব, ইতালীর সভাপতি মনিরুজ্জামান মনির, এনআরবিজাই এর সভাপতি মোহাম্মদ আল আমিন, কমিউনিটি নেতা কীটন সিকদার, জালালাবাদ কল্যান সংঘ বৃহত্তর সিলেট এর সভাপতি অলি উদ্দিন শামীম, মুন্সিগঞ্জ বিক্রমপুর সমিতির সভাপতি এমদাদুল হক মৃধা, সাধারন সম্পাদক শাহাদাত হোসেন রনি মহিলা সমাজ কল্যান সমিতি ইতালীর সভাপতি লায়লা শাহ, মহিলা সংস্থা ইতালীর সভাপতি শান্তা সিকদার, চ্যানেল এস দর্শক ফোরাম এর সাধারন সম্পাদক ইউসুফ আলী পলাশ পলাশ, প্লাস পয়েন্ট ট্রাভেল এন্ড টুরস এর কর্ণধার জসিম উদ্দিন, সার্ভিস ইতালীয়ার স্বত্তাধিকারী হৃদয় মনির প্রমূখ।

সুফিয়ান আহমদ,বিয়ানীবাজার প্রতিনিধিঃ আন্তর্জাতিক সামাজিক সংগঠন রোটারেক্ট ক্লাব অব বিয়ানীবাজার এর উদ্যোগে অভিভাবক সংগঠন রোটারী ক্লাব অব বিয়ানীবাজারের চাটার্ড প্রেসিডেন্ট যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী রোটারিয়ান আব্দুন নূরকে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়েছে। এর সাথে অনুষ্টিত হয় ক্লাবের ১৬১ তম রেগুলার মিটিং। রোববার সন্ধ্যায় স্থানীয় একটি অভিজাত রেষ্টুরেন্টে এ সংবর্ধনা ও রেগুলার মিটিং অনুষ্টিত হয়।

রোটারেক্ট ক্লাব অব বিয়ানীবাজারের প্রেসিডেন্ট রোঃ সিদ্দিক আহমদের সঞ্চালনায় আয়োজিত সংবর্ধনা অনুষ্টানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, রোটারী ক্লাব অব বিয়ানীবাজারের পিপি ও পাষ্ট ডিস্ট্রিক্ট  গভর্ণর রোটারিয়ান সাব্বির আহমদ, বর্তমান প্রেসিডেন্ট রোটারিয়ান সালেহ আহমদ,রোটারিয়ান লোকমান হোসেন, রোটারেক্ট ক্লাব অব বিয়ানীবাজারের পিপি রোঃ আতাউর রহমান ও রোটারেক্ট জোনাল রিপ্রেজেন্টেটিভ পিপি রোঃ জুবায়ের আহমদ।
ক্লাব ডাইরেক্টর রোঃ জাকারিয়া আহমদের ক্বোরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে শুরু হওয়া অনুষ্টানে  অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, পিপি আজহার হোসেন রিফাত, রোঃ সালেক আহমদ, রোঃ সুফিয়ান আহমদ, রোঃ শাহনুর আলম রেজা, রোঃ তানভীর আহমদ, রোঃ আরিফুল ইসলাম মিজান,জাকারিয়া হোসেন রনি প্রমুখ।

আয়োজিত অনুষ্টানে সংবর্ধিত ও প্রধান অতিথির বক্তব্যে রোটারিয়ান আব্দুন নূর বলেন, আর্তমানবতার  সেবায় বিশ্বময় কাজ করে যাচ্ছে রোটারী ক্লাব। রোটারী ক্লাব তাদের কার্যক্রমের মাধ্যমে বিশ্বব্যাপী একটি জনপ্রিয় প্রতিষ্টানে মর্যাদা লাভ করেছে। তিনি বলেন, রোটারী ক্লাব যেভাবে বিশ্বময় অসহায়,অবহেলিত মানুষ ও সমাজের জন্য কাজ করে যাচ্ছে, তেমনি বিয়ানীবাজারের রোটারী ক্লাব ও রোটারেক্ট ক্লাবকেও সেভাবে কাজ করতে হবে। সেজন্য আমাদের সহযোগীতা সবসময় অব্যাহত থাকবে।

সুফিয়ান আহমদ,বিয়ানীবাজার প্রতিনিধিঃ জঙ্গীবাদ রুখে দাড়াও বাংলাদেশ এই স্লোগানকে সামনে রেখে বিয়ানীবাজার পৌরশহরে এক মানববন্ধন ও পথসভা করেছে বিয়ানীবাজার উপজেলা ও পৌরসভা মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড। রোববার দুপুরে পৌরশহরের নিউ মার্কেট মোড়ে আয়োজিত এই মানববন্ধন ও পথসভায় সকল শ্রেণির পেশার মানুষ অংশগ্রহণ করে দেশ থেকে জঙ্গিবাদ দূর করার অঙ্গীকার করেন। এসময় বক্তারা বলেন, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ ইসলাম সমর্থন করে না। সন্ত্রাসী ও জঙ্গিরা বিভিন্ন লেবাসে মানুষ হত্যা করছে, এরা ইসলাম ও মানবতার শত্রু। এদের বিরুদ্ধে সকলকে ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে।


বিয়ানীবাজার মুক্তিযোদ্ধা সন্তান সংসদ কমান্ড আয়োজিত এমানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন বিয়ানীবাজার উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আতাউর রহমান খান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মু: আসাদুজ্জামান, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ডার আব্দুল কাদির, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাকির হোসেন, শিক্ষামন্ত্রীর এপিএস মাকসুদুল ইসলাম আউয়াল, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবাদ আহমদ  প্রমুখ।

রনি মোহাম্মদ(লিসবন,পর্তুগাল): পর্তুগাল আওয়ামীলীগ সহ সভাপতি এবং বরিশাল কমিউনিটি অব পর্তুগালের সিনিয়ার নেতা এমএ খালেকের আরোগ্য কামনায় গত ২৩শে জুলাই পর্তুগালের রাজধানী লিসবনের বাঙ্গালি অধ্যুষিত রুয়া দা বেনফোরমোসর শাহজালাল রেস্টুরেন্টে বাদ আসর এক দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

দেলোয়ার হোসেনের পরিচালনায় দোয়া মাহফিলে উপস্থিত ছিলেন পর্তুগাল আওয়ামীলীগের সভাপতি জহিরুল আলম জসিম, সাধারণ সম্পাদক শওকত ওসমান, উপদেষ্ঠামন্ডলীর সদস্য লেহাজ উদ্দিন,
মিয়া মাহবুব, বাদশা মিয়া, সহসভাপতি রেজাউল করিম, সিনিয়ার নেতা আবুল কালাম আজাদ, যুগ্মু সম্পাদক রফিকুল ইসলাম বাবলু, সাংগঠনিক সম্পাদক শফিকুল ইসলাস ,পারভেজ খান, প্রচার সম্পাদক মজিবুর রহমান মোল্লা, বিল্লাল রেজা, নজরুল ইসলাম সুমন, আইয়ুব আলী খান, রনী হোসাইন, মোঃ স্বপন সহ সর্বস্তরের প্রবাসী বাংলাদেশীগন।


গত ১৯শে জুলাই নিজ বাস ভবনে পর্তুগাল আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি এম এ খালেক ব্রেইন ষ্ট্রোকে আক্রান্ত হয়ে বর্তমানে লিসবনের শান্তা মারতা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
এমএ খালেকের আশু রোগ মুক্তি কামনায়, দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন লিসবন বায়তুল মোকারম জামে মসজিদের খতিব হাফেজ মুফতি আবু সাইদ।

Contact Form

Name

Email *

Message *

Powered by Blogger.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget