“স্পর্শ সোস্যাল মিডিয়ার ইতিকথা”

সুফিয়ান আহমদঃ স্পর্শ সোস্যাল মিডিয়া বিয়ানীবাজার উপজেলার অতি পরিচিত একটি সংগঠন। সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন হিসেবে স্পর্শ সোস্যাল মিডিয়া ইতোমধ্যে তাঁর কার্যক্রমের মাধ্যমে ব্যাপক পরিচিতি লাভ করেছে।
শিক্ষা-সংস্কৃতি-সমাজসেবা এই মূলনীতিকে সামনে রেখে চলো বদলে যাই, বদলে দেই দেশটাকে এই স্লোগানে সংগঠনটির একঝাক তরুণ কাজ করে যাচ্ছেন নিরলসভাবে। আর তাদের সার্বক্ষণিকভাবে সহযোগীতা করে যাচ্ছেন উপজেলার বেশ কয়েকজন গুণী ব্যক্তিবর্গ। তাদের সার্বিক সহযোগীতায় ইতোমধ্যে বেশ কয়েকটি কার্যক্রম সফলভাবে সমাপ্ত করে ৩য় বৎসর অতিক্রম করে ৪র্থ বৎসরে পদার্পণ করেছে সংগঠনটি। সংগঠনের নেতৃত্বে থাকা তরুণদের কর্মস্পৃহা এবং সংগঠনের উপদেষ্টাদের সুচিন্তিত পরামর্শের ভিত্তিতে দুর্বার গতিতে এগিয়ে চলা স্পর্শ সোস্যাল মিডিয়া একদিন তাঁর অভিষ্ট লক্ষ্যে পৌছতে সক্ষম হবে, এমনটাই সকলের বিশ্বাস।

*প্রতিষ্ঠাকালঃ
বিয়ানীবাজার উপজেলার একঝাক তরুণ ও ছাত্রদের উদ্যোগে ২০১৩ সালের ১০ সেপ্টেম্বর স্পর্শ টেলিমিডিয়া নামে শুধুমাত্র সাংস্কৃতিক অঙ্গন নিয়ে কাজ করার লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠিত হয় এটি। পৌরশহরের দক্ষিণবাজারস্থ জনতা মার্কেটের ৩য় তলায় নিজস্ব কার্যালয় নিয়ে শুরু থেকে কার্যক্রম পরিচালনা করছে স্পর্শ। ধীরে ধীরে এর সদস্য সংখ্যা বৃদ্ধি পেঁতে থাকে। একপর্যায়ে সংগঠনের সকল সদস্যের মতামতের ভিত্তিতে একই বছরের ৭ই ডিসেম্বর এটিকে সাংস্কৃতিক সংগঠনের পাশাপাশি একটি সামাজিক সংগঠন হিসেবে রুপান্তরিত করে এর নতুন নাম রাখা হয় স্পর্শ সোস্যাল মিডিয়া।  এরপর থেকেই সংগঠনটি এই নামে কার্যক্রম পরিচালনা করছে এবং সর্বত্র পরিচিতি লাভ করেছে।

*প্রথম কমিটিঃ
স্পর্শ টেলিমিডিয়া থেকে স্পর্শ সোস্যাল মিডিয়া নামে রুপান্তরিত হওয়ার পর গঠন করা হয় সংগঠনের  প্রথম কমিটি। ১৫ সদস্য বিশিষ্ট প্রথম কমিটির সভাপতি হিসেবে আমাকে (সুফিয়ান আহমদ) মনোনীত করেন সংগঠনের সদস্যরা। এতে অন্যান্য পদে ছিলেন, সহ-সভাপতি পার্থ পাল দিপক, সাধারণ সম্পাদক সাইফুর রহমান সাইফ, সহ-সাধারণ সম্পাদক আমিনুল হক শাওন, সাংগঠনিক সম্পাদক মোমেন আহমদ, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক শুভ্র দেব, কোষাধ্যক্ষ ছিদ্দিকুর রহমান, শিক্ষা সম্পাদক সাইদুর রহমান, সহ-শিক্ষা সম্পাদক মোস্তফা আহমদ, সাংস্কৃতিক সম্পাদক হাছানুর রহমান,সহ- সাংস্কৃতিক সম্পাদক অলক কান্তি দেব জনি, সমাজসেবা সম্পাদক স্বপন মাহমুদ, সহ-সমাজসেবা সম্পাদক দিপু দাস, প্রচার সম্পাদক ছয়ফুল আলম ও দপ্তর সম্পাদক মিজানুর রহমান তুহিন।

*প্রথম উপদেষ্টা পরিষদ ঃ

নতুন যাত্রা করার পর স্পর্শ সোস্যাল মিডিয়া এর কার্যক্রমকে গতিশীল করার ও সুচিন্তিত পরামর্শ প্রদানের জন্য উপজেলার বেশ কয়েকজন জ্ঞানী-গুণী , সামাজিক ও সাংস্কৃতিক অঙ্গনের ব্যক্তিদের সমন্বয়ে গঠন করা হয় উপদেষ্টা পরিষদ। প্রথম থেকেই উপদেষ্টা পরিষদে থেকে যারা সংগঠনকে সুপরামর্শ দিয়ে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন তারা হলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা হাজী এম এ কাদির, লায়ন ছিদ্দিক আহমদ, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব আব্দুল ওয়াদুদ, সংগঠক এনাম উদ্দিন, আব্দুল হাছিব, এম এ গণি ও এমরান হোসেন দিপক।

কার্যক্রমঃ
শিক্ষা, সংস্কৃতি ও সমাজসেবা এই তিনটি বিষয় নিয়ে কাজ করছে স্পর্শ সোস্যাল মিডিয়া

# শিক্ষা বিভাগঃ
শিক্ষাই জাতির মেরুদন্ড। শিক্ষা ছাড়া একজন মানুষ যেমন আলোকিত হতে পারে না, তেমনি একটি জাতিও উন্নতি লাভ করতে পারে না। একটি জাতির উন্নয়নের মূল চাবিকাটি হচ্ছে শিক্ষা। তাই স্পর্শ সোস্যাল মিডিয়া উপজেলার শিক্ষার্থীদের উৎসাহ প্রদানের জন্য প্রতিষ্ঠার পর থেকে কৃতি শিক্ষার্থীদের সংর্বধনা প্রদান করে আসছে। যাতে শিক্ষার্থীরা লেখাপড়ায় আরো মনোযোগী হতে পারে এবং সুশিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে দেশ ও জাতি গঠনে ভুমিকা রাখতে পারে। এর পাশাপাশি সংগঠন থেকে পৌরশহরসহ আশপাশ এলাকার প্রতিটি বিদ্যালয়ের গরীব ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের বই, খাতা, কলম ও ব্যাগ বিতরণেরও পরিকল্পনা রয়েছে।


# সংস্কৃতি বিভাগঃ
ইতিহাস ঐতিহ্যেও গৌরবোজ্জল জনপদ ক্ষুদে নবদ্বীপ খ্যাত বিয়ানীবাজার উপজেলা। কিন্তু দিন দিন হারাতে বসেছি আমাদের ইতিহাস ও ঐতিহ্য। এগুলোকে প্রসারিত করার জন্য এবং নতুন প্রজন্মেও কাছে তুলে ধরার জন্য একটি সাংস্কৃতিক সংগঠন হিসেবে কয়েকটি কার্যক্রম হাতে নিয়েছে স্পর্শ সোস্যাল মিডিয়া। আর এজন্য উপজেলার সংস্কৃতিমনা ব্যক্তিবর্গের সহযোগীতা প্রয়োজন। আর তা না হলে একটি নতুন সংগঠন হিসেবে কাজগুলো করা অনেক কষ্টসাধ্য হয়ে দাড়াবে।

# সমাজসেবা বিভাগঃ
মুক্তিযোদ্ধারা হলেন জাতির শ্রেষ্ট সন্তান। তাদের বীরত্বপূর্ণ অবদানের জন্য আমরা স্বাধীন দেশ পেয়েছি। মাথাউচু করে বিশ্বের দরবারে কথা বলতে পারছি। জাতির এবীর সন্তানদের সম্মান জানানো আমাদের সকলের দায়িত্ব। এরই অংশ হিসেবে স্পর্শ সোস্যাল মিডিয়া মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনাও প্রদান করেছে। এছাড়াও পরিবেশ রক্ষায় বৃক্ষরোপন, স্বেচ্ছায় রক্তদান, শীত বস্ত্র বিতরণ, ঈদ সামগ্রী বিতরণ, অসহায় মানুষদের সহায়তা রয়েছে সংগঠনের কার্যক্রমের মধ্যে। সকলের সহযোগীতা পেলে আগামীতেও স্পর্শ সোস্যাল মিডিয়া ব্যতিক্রমী কার্যক্রম পরিচালনা করে বিয়ানীবাজারবাসীকে ভালো কিছু উপহার দিতে পারবে এমনটা হলো আমাদের অঙ্গীকার।


স্পর্শ সোস্যাল মিডিয়া এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাক।

#লেখকঃ- প্রতিষ্ঠাকালীন সভাপতি, স্পর্শ সোস্যাল মিডিয়া, বিয়ানীবাজার, সিলেট।

**ছবি প্রথম যুক্ত হবে- ০১. সুফিয়ান আহমদ ০২.সাইফুর রহমান সাইফ ০৩. মোমেন আহমদ ০৪. পার্থ পাল দিপক

**যৌথ ছবিটি মধ্যখানে দিলে ভালো হয়।

Post a Comment

Contact Form

Name

Email *

Message *

Powered by Blogger.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget