ইউরোপ ভ্রমণে ভিসা-ফি লাগবে ব্রিটিশদের

জনপ্রিয় অনলাইন : ব্রেক্সিট পরবর্তী সময়ে ইউরোপ ভ্রমণে ব্রিটিশ নাগরিকদের ভিসার জন্য নির্দিষ্ট পরিমাণ ফিস দিয়ে আবেদন করে ভিসা সংগ্রহ করতে হবে।

বর্তমানে যা আমেরিকার ক্ষেত্রে প্রযোজ্য।২৭ জাতির ইউরোপীয় জোট থেকে ২৩ জুন গণভোটের মাধ্যমে  বের হয়ে এসেছে  ব্রিটেন। ইউরোপীয় কমিশন ২৬ দেশের জন্য নতুন সেনজেইনের খসরা আইন প্রস্তুত করেছে। যার মধ্যে ব্রিটেন অন্তর্ভুক্ত নয়। আমেরিকার আদলে ইউনাইটেড স্টেইটস (ইসটা) স্কিম চালু করবে। ইসটা স্কিম অনুযায়ী ভ্রমণকারীকে অনলাইনে ভিসার জন্য আবেদন  করতে হয়। ২০১০ সাল থেকে শুরু হওয়া নিয়মে আবেদনকারীকে ১৪ ডলার যা ১০ পাউন্ড ফিস দিতে হয়। ইইউ এই নিয়ম চালু করতে চাইছে। বিশেষ করে ফ্রান্স, জার্মান  ইউরোপে সন্ত্রাসী হামলার কারণে নিরাপত্তার জন্য এই নিয়ম চালু করতে চাইছে। ইউরোপীয় ইউনিয়ন ২৬ দেশে সমন্বিতভাবে তাদের সীমান্ত নিয়ন্ত্রণ করবে।
ব্রিটিশ নাগরিকরা পাসপোর্ট দেখিয়ে ইইউ জোনের সব দেশে ভ্রমণ করতে পারতেন। কোন ধরণের ভিসা বা অনুমতির বাধ্যবাধকতা ছিল না। কিন্তু ব্রেক্সিট কার্যকর হবার পর ব্রিটিশ নাগরিকদের ইউরোপ ভ্রমণে ভিসার জন্য আবেদন করতে হবে এবং ফিস পরিশোধ করতে হবে।
অন্যদিকে ইউরোপীয় ইউনিয়নের নাগরিকদের ব্রিটেন ভ্রমণের ক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে পয়েন্ট বেইজড সিস্টেম প্রত্যাখ্যান করেছেন।

সুত্র :মানব কন্ঠ ।
Labels:

Post a Comment

Contact Form

Name

Email *

Message *

Powered by Blogger.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget