গনিকে ১৪ ই আগস্টের মধ্যে শুদ্ধ হতে বললেন-সর্ব ইউরোপিয়ান আওয়ামী



ইউরো প্রতিনিধি : সর্ব-ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক এম এ গনির স্বেচ্ছাচারিতা,ব্যাক্তি আক্রোশ,দূর্নিতি,দলীয় গঠনতন্ত্র পরিপন্থি অবৈধ কার্যক্রম এবং গন বহিষ্কারের প্রতিবাদে,গত বুধবার গুলশানের একটি হোটেলে,সর্ব-ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগের সভাপতি অনিল দাশগুপ্তের অনুমতিক্রমে এক প্রতিবাদ সভার আয়োজন করে সর্ব-ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগ।উক্ত প্রতিবাদ সভায় সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন সংগঠনটির সাংগঠনিক সম্পাদক জি এম কিবরিয়া। 

প্রতিবাদ সভার মুল বক্তব্যে কিবরিয়া বলেন,জনাব গনি,সর্ব-ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগের সভাপতি শ্রী অনিল দাশগুপ্ত এমন কি কোন সদস্যের সাথেও আলোচনা না করে,সম্পুর্ন ব্যাক্তি স্বার্থ চরিত্রার্থ করার জন্য,গঠনতন্ত্রকে বৃদ্ধা আঙ্গুলি প্রদর্শন করে,সর্ব-ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগের যুগ্ন সম্পাদক,জনাব শামীম হককে অবৈধ উপায়ে বহিষ্কার করেন। শামীম হক প্রসঙ্গে,তিনি সর্ব-ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগের সভাপতি,বাবু অনিল দাশগুপ্তের করা মন্তব্যের সাথে একমত হয়ে বলেন,সংগঠনের কোন নেতাকে বহিষ্কার করার অধিকার কেবল মাত্র বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি জননেত্রী শেখ হাসিনার রয়েছে,জনাব গনি সম্পুর্নই অনধিকার চর্চা করেছেন এবং জনাব শামীম হককে অতীতের ন্যায় সর্ব-ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগ তথা শেখ হাসিনার অগ্রসৈনিক হিসাবে কাজ করার আহবান জানান। এম এ গনি যদি ১৪ ই আগস্টের মধ্যে,প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে করা সকল ভুল স্বীকার না করেন এবং সংগঠনের কাছে ক্ষমা না চান তবে সর্ব-ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগের সভাপতির অনুমতি নিয়ে তাকে সংগঠন বিরোধী কর্মকান্ডের জন্য বহিষ্কার করার জন্য,ইউরোপের সকল নেতাকে সংগে নিয়ে,জননেত্রী শেখ হাসিনার সাথে দেখা করে বহিষ্কার করার জোর দাবী জানাবেন এবং ইউরোপের সকল দেশে আনুষ্ঠানিক ভাবে অবাঞ্চিত ঘোষনা করা হবে,এ সময় সভায় উপস্থিত সকল প্রবাসী নেতা হাত উচিয়ে জি এম কিবরিয়ার সাথে একাত্মতা প্রকাশ করেন। বেলজিয়াম আওয়ামী লীগের সভাপতি বজলুর রশিদ বুলু বলেন,দেশে যখন বিএনপি-জামতের প্রত্যেক্ষ মদদে জঙ্গীবাদ মাথাচাড়া দিয়ে উঠছে,ঠিক তখনই আপনি জঙ্গীবাদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ না করে শামীম হকের মত ত্যাগী নেতাকে অবৈধ প্রক্রিয়ায় বহিষ্কার করলেন? কেনই বা টাকার বিনিময়ে ডেনমার্ক,সুইডেন,গ্রীস,স্পেনে দুই/তিনটা করে কমিটি দিলেন? আপনার উদ্দেশ্য আজ সবার কাছে পরিষ্কার।আবার যদি এসকল অবৈধ কাজ আবার করার চেষ্টা করেন তবে মনে রাখবেন,ঐক্যবদ্ধ ভাবে আপনাকে প্রতিহত করা হবে। তুরস্ক আওয়ামী লীগের সভাপতি এম এ ফারুক প্রিন্স তার বক্তব্যে বলেন,আজ যারা প্রবাসী আওয়ামী লীগের নেতা হয়েছেন,তারা প্রথমে বাংলাদেশে আওয়ামী লীগ করেই বর্তমান অবস্থানে আসতে পেরেছেন।তিনি আরো বলেন,আমার নেতা শামীম হকের রাজনৈতিক কর্মকান্ডের কারনে বিশ্ব ব্যাপি সর্ব-ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগ পরিচিতি পেয়েছে।গনি সাহেব কে বিএনপির এজেন্ট,নব্য মোস্তাক হিসাবে অবহিত করেন তিনি। উক্ত প্রতিবাদ সভায় উপস্থিত সকল প্রবাসী নেতৃবৃন্দ তাদের সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে জনাব গনির নানা অনিয়ম ও দুর্নীতি কথা তুলে ধরে শামীম হকের অবৈধ বহিষ্কারের তীব্র প্রতিবাদ জানান।অন্যান্যর মধ্যে বক্তব্য প্রদান করেন,জার্মান আওয়ামী লীগের সভাপতি বশিরুল আলম চৌধুরী সাবু,ডেনমার্ক আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহাবুবুর রহমান, দক্ষিন কোরিয়া আওয়ামী লীগের সভাপতি শিমুল হাসান, বেলজিয়াম আওয়ামী লীগ নেতা নুরুজ্জামান,সর্ব ইউরোপ আওয়ামী লীগ নেতা হাসনাত মিয়া, সুইডেন আওয়ামী লীগ নেতা সিরাজুল হক খান রানা,সুইজার‌্যান্ড আওয়ামী লীগ নেতা তাজুল ইসলাম,জার্মান আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ আহমেদ বাদল,স্পেন আওয়ামী লীগের নেতা জাকির হোসেন,বেলজিয়াম আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মনির হোসেন,নরওয়ে আওয়ামী লীগের নেতা আজগর আলী,বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপকমিটির সহ সম্পাদক নুরুল হাসান মিয়া প্রমূখ।

Post a Comment

Contact Form

Name

Email *

Message *

Powered by Blogger.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget