জঙ্গি বিরোধী অভিযানে সরকারের দেয়া তথ্য রহস্যজনক

জনপ্রিয় অনলাইন : নারায়নগঞ্জে জঙ্গি বিরোধী অভিযানের ঘটনা নিয়ে সরকারের দেয়া তথ্য রহস্যজনক বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আসম হান্নান শাহ। আজ রোববার দুপুরে এক আলোচনা সভায় তিনি এই অভিযোগ করেন।

হান্নান শাহ বলেন, জনগনকে বিভ্রান্ত করার জন্যে যেসব তথ্য দেয়া হচ্ছে, এটা নিয়ে আমরা সত্যিকার অর্থে বিভ্রান্ত হচ্ছি। এই যে যিনি নারায়নগঞ্জে নিহত হলেন, বলা হলো উনার সাথে আরো দুইজন। কয়েকদিন আগে পত্র-পত্রিকায় দেখেছিলাম যে উনি (তামীম চৌধুরী) ভারতে আছেন। তাহলে এটা তো আমি বুঝি না, ভারতের ওই লোক ওইখান থেকে নারায়নগঞ্জে চলে এলেন কিভাবে। এই রহস্য সৃষ্টির পেছনে গোয়েন্দাদের হাত রয়েছে দাবি করেন হান্নান শাহ। সেগুন বাগিচায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি কার্যালয়ের মিলনায়তনে জাতীয়তাবাদী প্রজন্ম ৭১ ফোরামের উদ্যোগে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে সন্ত্রাস ও জাতীয় ঐক্য শীর্ষক এই আলোচনা সভা হয়। কথিত জঙ্গিদের জীবিত না ধরে হত্যার ঘটনার প্রসঙ্গ টেনে আসম হান্নান শাহ বলেন, কয়েকদিন আগে যখন আমাদের পুলিশ ডিপার্টমেন্ট থেকে বলা হলো মেজর জিয়াউর রহমান এবং তামীম সাহেব কোথায় আছেন তারা জানেন। এখন ধরার অপেক্ষা মাত্র। আমি সিভিল ডিফেন্স করেছি, আর্মি ইন্টিলিজেন্স করেছি, অনেক কিছু করেছি জীবনে। মরা মানুষ তো কথা বলে না। মানুষকে আমরা জীবিত ধরি, যাতে তার কাছ থেকে কথা বের করতে পারি। যদি সরকার মনে করতো বা বাহিনী মনে করতো, তাদেরকে জীবিত ধরা উচিত আরো সংবাদের জন্য। তারা ইচ্ছা করলে পারতেন। জঙ্গিবাদ মোকাবিলায় জাতীয় ঐক্যের বিষয়ে হান্নান শাহ বলেন, আমরা সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে জাতীয় ঐক্য চাই, সরকার চায় না। কারণটা কি? আমরা চাই, এদেশে থেকে সন্ত্রাস নির্মূল হোক। তিনি বলেন, নারায়নগঞ্জে যে বাসায় জঙ্গি হত্যা হলো, সেই বাড়িটিও আওয়ামী লীগের নেতার। গুলশানের হলি আর্টিজেনের যে মারা গেলো, বেশ কয়েকজনের সাথে আওয়ামী লীগের সরকারি দলের সম্পৃক্ততার প্রমাণ আছে। তাই সরকারকে বলব, সর্বদলীয় মিটিং ডেকে জাতীয় ঐক্য প্রতিষ্ঠা করুন এবং যতদ্রুত সম্পূর্ণ নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন দিন। হান্নান শাহ বলেন, দেশের মানুষ ঐক্যবদ্ধ হয়ে গেছে রামপালের বিরুদ্ধে। আপনারা (সরকার) যত রাম-ধাম ঝপ করেন না কেনো, কিছুই হবে না। বাংলাদেশে মানুষ এই প্রকল্প হতে দেবে না। আপনারা বিশ্বাস করেন আর না করেন, যেদিন নেত্রী (বেগম খালেদা জিয়া) বা যে কেউ ডাক দেবে, রামপালকে বন্ধ করতে হবে, দেখেইন ঢাকা শহরে কত মানুষ নামে, মানুষ রাস্তায় নামবেই। জনগনের বিজয় হবেই হবে। সংগঠনের সভাপতি আমিনুল ইসলাম রিপনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় জাগপার সভাপতি শফিউল আলম প্রধান, লেবার পার্টির চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, জাতীয় পার্টি (কাজী জাফর) প্রেসিডিয়াম সদস্য আহসান হাবিব লিংকন, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান হাবিব, সহ সম্পাদক শাম্মী আখতার, কেন্দ্রীয় নেতা রফিক শিকদার প্রমূখ বক্তব্য রাখেন। 

Post a Comment

Contact Form

Name

Email *

Message *

Powered by Blogger.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget