সর্ব ইউরোপ আওয়ামী লীগের সভাপতি অনিল দাশ গুপ্তের ভিজিটং কার্ড নিয়ে অপ প্রচার। ফ্রান্স আওয়ামী লীগের প্রতিবাদ

প্রেস বিজ্ঞপ্তি : সর্ব ইউরোপ আওয়ামী লীগের সভাপতি অনিল দাশ গুপ্তের ভিজিটিং কার্ড নিয়ে একটি অনলাইনে সংবাদ প্রকাশ হওয়ায় এর প্রতিবাদ জানিয়েছে ফ্রান্স আওয়ামী লীগ। 

ফ্রান্স আওয়ামী লীগের এক প্যাডে এই প্রতিবাদ পত্রে স্বাক্ষর করেন ফ্রান্স আওয়ামী লীগের সভাপতি মহসিন উদ্দিন খান, সিনিয়র সহ সভাপতি মঞ্জুরুল হাসান চৌধুরী সেলিম এবং দিলোওয়ার হোসেন কয়েছ।জনপ্রিয়২৪ এর পাঠকের জন্য হুবহু তুলে ধরা হল। প্রতিবাদ সম্প্রতি ইউরো বার্তা ২৪.কম নামে একটি অনলাইন পত্রিকায় সর্ব ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগের সভাপতি শ্রী অনিল দাশ গুপ্তের ভিজিটিং কার্ডে ভুল তথ্য শিরনামে একটি খবর প্রকাশিত হয়। এই খবরটি মিথ্যা,ভুল ও বানোয়াট। এই ধরনের তথ্য ছেপে কিছু মৌলবাদী গ্রুপ ইউরোপে তথা সারা বিশ্বে আওয়ামী পরিবারের মধ্যে বিভ্রান্তি ছড়ানোর পায়তারা করছে। অত্যন্ত কাঁচা হাতে লেখা এই মিথ্যা প্রকাশ করে এক দিকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিকদের জন্য ভালোই হয়েছে। আমরা আজ বুঝতে পারছি দলের ভেতর ঘাপটি মেরে থাকা মোস্তাকের প্রেতাত্মারা কি ভাবে যুগ যুগ ধরে আমাদের ক্ষতি করছে। সর্ব ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগের সভাপতি শ্রী অনিল দাস গুপ্ত অর্ধ শতকের কাছাকাছি ধরে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের একজন পরিক্ষিত সৈনিক। ফ্রান্সের তথাকথিত কতিপয় আওয়ামী লীগ নেতা এবং দীর্ঘ দিন ধরে দলে ঘাপটি মেরে বসে থাকা কিছু বি এন পির এজেন্ট ১৪ বছরের পুরনো একটি ভিজিটি কার্ড সরবরাহ করে।জাতির পিতার কন্যা জন নেত্রী শেখ হাসিনার পছন্দের একজন নেতাকে যদি হেয় প্রতিপন্ন করার বাসনায় লিপ্ত হয় তবে তারা বোকার সর্গে বাস করছে। দীর্ঘ দিন থেকে ফ্রান্স আওয়ামী লীগের কিছু নেতা বি এন পি জামাত এর মদদে দলকে নিজ স্বার্থে ব্যাবহার করে আসছিল।তাদের আসল মুখোশ গত কয়েক মাস থেকে উন্মোচিত হতে থাকে।তারই ধারাবাহিকতায় শ্রী অনিল দাস গুপ্তের ভিজিটিং কার্ড সরবরাহ করে এহেন নিন্দনীয় কর্মকান্ড চালাচ্ছে।ফ্রান্স আওয়ামী লীগের সাধারণ কর্মীরা এদের চরিত্র বুঝে ফেলে। সকলে এক মত হয়ে এদের দলের নেতৃত্ব থেকে ছুড়ে ফেলেছে, এটাই তাদের ব্যথা। ইউরো বার্তা ২৪.কম অনলাইন সংবাদদাতা নিজেই চেয়ারম্যান ও প্রেসিডেন্টের পার্থক্যটুকু বোঝেন কিনা তা আমাদের বোধগম্য নয়। প্রেসিডেন্ট,চেয়ারম্যান,কনভেনার এদের সাংগঠনিক দায়িত্ব যদি এক হয়, তবে এর মধ্যে কিসের ভুল সংবাদদাতা খুঁজে পেলেন তা ব্যাখ্যা দেওয়া উচিত ছিল। শ্রী অনিল দাশগুপ্ত ও যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সভাপতি সুলতান মোঃ শরীফ দুই যুগ আগে থেকে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের জাতীয় কমিটির সদস্য হয়েছেন, ভিজিটিং কার্ডটি সেই সময়ের । জাতীয় কমিটিকে সেন্ট্রাল কমিটি বলায় কি এমন মহাভারত অশুদ্ধ হয়েছে তাও সংবাদদাতা ব্যাখ্যা করেননি। শ্রী অনিল দাশ গুপ্তাকে জাতির পিতার কন্যা শেখ হাসিনা সম্মান প্রদর্শন করেন তা ফ্রান্স আওয়ামী লীগের সকল নেতা কর্মী অবগত আছেন। তারপরও যারা জেনেশুনে শ্রী অনিল দাশগুপ্তকে অসম্মান করে কথা বলেন বা তাকে বিভিন্ন ভাবে হেয় প্রতিপন্ন করতে চান তাদেরকে বলব বামন হয়ে চাঁদের দিকে হাত বাড়ানো থেকে বিরত থাকুন। পরিশেষে ফ্রান্স আওয়ামী লীগের সকল নেতা কর্মীদের পক্ষ থেকে এহেন বিভ্রান্তিমূলক খবর প্রচারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাচ্ছি। জয় বাংলা,জয় বঙ্গবন্ধু।

Post a Comment

Contact Form

Name

Email *

Message *

Powered by Blogger.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget