বার্সেলোনায় বাংলা স্কুলের বার্ষিক ক্রীড়া ও সমাপনী পরীক্ষার ফল প্রকাশ

মিরন নাজমুল, বার্সেলোনা : স্পেনের বার্সেলোনায় বাংলা স্কুলের সমাপনী পরীক্ষার ফল প্রকাশ ও বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত ৪ জুন শনিবার পার্ক দে মনজুয়িকের মনোরম পরিবেশে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানের শুরুতে বনভোজনের আবহে সকল শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও আমন্ত্রিত অতিথিদের মধ্যাহ্নভোজের পর বিকেল ৩টা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের মাঝে ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও বিনোদনমূলক অনুষ্ঠান হয়। অনুষ্ঠানশেষে পুরষ্কার পর্বে ক্লাশের প্রতি ইউনিটের মেধা তালিকায় প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয়স্থান অধিকারীসহ ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরষ্কার বিতরণ করা হয়। বাংলা স্কুলের শিক্ষকদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মেধা ও পরিশ্রম দানের স্বীকৃতিস্বরুপ বিশেষ সম্মাননা পুরষ্কার দেয়া করা হয়।

স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি শাহ আলম স্বাধীন, সাধারণ সম্পাদক জুয়েল আহমেদসহ স্কুলের শিক্ষকবৃন্দের সার্বিক তত্ত্বাবধানে ও শিক্ষার্থী অভিবাবকের স্বতস্ফূর্ত অংশগ্রহনে অনুষ্ঠানটি সুন্দর ও সফলভাবে সম্পাদিত হয়। স্কুল পরিচালনা কমিটির গুরুত্বপূর্ণ সদস্য আলাউদ্দিন হক, আউয়াল ইসলাম, আরিফ রহমান বাবুসহ কমিউনিটির বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি শাহ আলম স্বাধীন প্রবাসে বাংলাদেশীদের স্কুলের গুণগত মান বৃদ্ধিতে সহযোগিতাসহ অভিভাবকদের তাদের সন্তানকে বাংলা স্কুলে শিক্ষার সুযোগ তৈরি করে দেয়ার অনুরোধ করেন। তিনি বলেন, এতে প্রবাসে আমাদের সন্তানদের মাতৃভাষা ও বাংলা সংস্কৃতিকে ধারণ করার শিক্ষা পাবে। উল্লেখ্য, বর্তমানে বাংলা স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির সদস্য সংগ্রহ অভিযান চলছে। তিনি সদস্য অন্তর্ভুক্তির নির্দিষ্ট ফরমে আবেদন করে আগ্রহীদের সদস্য হবার অনুরোধ করেন।


উল্লেখ্য, ২০১১ সালে প্রতিষ্ঠিত এই বাংলা স্কুলে শিক্ষার্থীর সংখ্যা প্রায় ৮০ জন। তাদের ক, , গ ও ঘ এই চারটি ইউনিটে ভাগ করে বাংলা, ইংরেজি, সামাজিক বিজ্ঞান, ধর্মীয় ও সাধারণ জ্ঞান শিক্ষা দেওয়া হয়। বিদেশে নানান প্রতিকূলতা সত্ত্বেও স্কুল কমিটি স্বেচ্ছাশ্রম দিয়ে বাংলাদেশের বংশোদ্ভূত ছেলেমেয়েদের মাতৃভাষা বাংলা শিক্ষাদানের নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন।

স্কুলটিতে বাংলাদেশের প্রাথমিক বিদ্যালয়ের জন্য নির্ধারিত পাঠ্যপুস্তকের সিলেবাস অনুযায়ী বাংলা ও ইংরেজি ভাষা শেখানো হয়। শিক্ষার্থীদের মেধার মান যাচাইয়ের জন্য বছরে তিনটি পরীক্ষা নেওয়া হয়। এ ছাড়া প্রতি ইউনিটে নিয়মিত ক্লাস টেস্ট নেওয়া হয়। সমাপনী পরীক্ষার লিখিত অংশে শতকরা পঞ্চাশ ও মৌখিক পরীক্ষায় মনোনীত হওয়া শিক্ষার্থীদের পরবর্তী ক্লাসে উত্তীর্ণ হওয়ার জন্য মনোনীত করা হয়। 

Post a Comment

Contact Form

Name

Email *

Message *

Powered by Blogger.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget