সমুদ্র সমাধী : দ্বিতীয় পর্ব

এখলাছ মিয়া :  
হ্যালো ! মা কেমন ? হ্যালো...হ্যালো...হ্যালো মা মি তোমার বাবু
হ্যাঁ বাবা বল, মি শোনতে পাচ্ছি,
তুই কোথায় ছিস...কেমন ছিস...তুই কি পৌঁছে গেছিস?
তোর কথা শোনা যাচ্ছেনা কেন বাবা?
তুই কথা বল বাবা, তর কথা শোনার জন্য মার বুকটা ফেঁটে যাচ্ছে?
মা ,মি তোমার কথা শোনতে পাচ্ছি তুমি দুঃশ্চিন্তা করনাতো,আমি ঠিক-ঠাক মত পৌঁছেছি ৷
বাবা,তুলি ওরা কেমন ছে মা? ওরা ভাল ছে ,তর বাবাকে ঐ লোকগুলো টাকার জন্য খুব চাপ দিচ্ছে, তুই নাকি পৌঁছে গেছিস,তাই ওরা টাকা চায় !
হ্যাঁ মা, বাবাকে বল,টাকাগুলো দিয়ে দিতে ,জীবনে অনেক টাকা রোজগার করব মা, তুমি দেখ,মাদের বাড়ি-গাড়ী সব হবে মা ,তুলির বিয়েটা কত ধুম ধাম করে দিই,তুমি দেখে নিও মা !
জান মা, তুর্কী র গ্রীসের মাঝখানে শুধু ছোট্ট একটা নদী,ঐ নদীটা পার হলেই মি ইউরোপে চলে যাব ৷ র জানইতো ইউরোপের টাকার মান? এক ইউরো সমান ১০০ টাকা
মা! তুমি কোন চিন্তা করনা...বাবা,তুলি ওরা কোথায়?
তোর বাবা বাড়ি নেই র তুলিটা কলেজে,তুই চিন্তা করবি না,আমি সলে বলে দেব, তুই ঠিক মত খাওয়া -দাওয়া করবি ,নিজের দিকে খেয়াল রাখবি ৷
ঠিক ছে মা,দোয়া কর,ভাল থেক...
বাবু'রও অনেক কথা বলার ছিল,মা দুঃশ্চিন্তা করবে ভেবে মনের কথা ,মনের মাঝেই রেখে দেয় ৷ বাবু'রা ১৫ জনের একটা দল ইস্তামবুল থেকে রওয়ানা হয় তুর্কীর শেষ সীমান্তের দিকে... 
                  (চলবে..)
১ম পর্ব পড়তে ক্লিক করুন : সমুদ্র সমাধী ১ম পর্ব

Post a Comment

Contact Form

Name

Email *

Message *

Powered by Blogger.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget