প্রবাসীদের উদ্যোগে রাস্তা এবং পল্লী উন্নয়ন বিষয়ক আলোচনা সভা

সেলিম আলম : বাংলাদেশের মানচিত্রে একটি মডেল গ্রাম তৈরি করতে উদ্যোগ নিলেন কিছু সংখক তরুন যুবক, বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা এই উদ্যমী প্রবাসীরা ডিজিটাল বাংলাদেশের উন্নয়নের ছোয়া থেকে বঞ্চিত তাদের জন্ম ভূমী বা স্থায়ী আবাস স্থলে শিক্ষার আলো প্রজ্বলিত এবং যোগাযোগ মাধ্যমকে উন্নত করার লক্ষে সম্পুর্ন ব্যক্তিগত উদ্যোগে তহবিল সংগ্রহ এবং পার্শ্ববর্তী এলাকার সাথে আলাফ আলোচনা চালিয়ে জাচ্ছেন ।

স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে বিভিন্ন ভাবে বাংলাদেশ এগিয়ে চলছে দ্রুত গতিতে ,বর্তমান সরকারের উন্নয়নের দ্বরাবাহিকতায় দেশ আজ ডিজিটাল বাংলাদেশে রুপান্তরিত হলেও এখন পর্যন্ত সিলেটের দক্ষিণ সুরমা উপজেলার দাউদপুর ইউনিয়নের ইনাতআলীপুর,মির্জানগর ও মানিকপুর এলাকার রাস্থাঘাট বা মাধ্যমিক স্কুল নির্মিত হয়নি।

তিন গ্রামে প্রায় পাঁচ শতাধিক প্রবাসীর রেমিটেন্সের মাধ্যমে প্রতি বছর বাংলাদেশ সরকার কয়েক কোঠি টাকা আয় করছেন, এ বিষয়ে স্থানীয় চেয়ারম্যান ও এম পি'র সাথে বারবার যোগাযোগ করলে আশ্বস্থ করা ছাড়া বাস্থবতায় কিছুই মিলেনি,এমন এক পরিস্থিতিতে এলাকার প্রবাসীরা দুটি গ্রুফে সঙ্ঘবদ্ব হয়ে তাদের পরিকল্পনা বাস্তবায়নে মাঠে নামেন, পরিকল্পিত মডেল গ্রাম তৈরি এবং বাইপাস রোড নির্মানের অঙ্গীকার নিয়ে প্রতিষ্টিত '' ইনাত আলীপুর ফরেন ফ্রেন্ডশিপ অর্গানাইজেশন ট্রাষ্ট '' ( EFFORT ) এবং হিলফুল ফুযুল সমাজ কল্যান সংস্থা ।

গ্রাম উন্নয়নে প্রতিজ্ঞাবধ্ব EFFORT এর প্রতিষ্টা খুব অল্প দিনের হলেও তাদের কর্ম কান্ডে এলাকার জনগনের মনে নতুন করে আশার সঞ্চার ঘঠিয়েছে ব্যপক, গ্রামের শিশু, কিশুর, যুবক, মহিলা থেকে মোরব্বীয়ান পর্যন্ত স্বপ্ন দেখছেন গ্রামের প্রবাসীদের এ মহতী ও কল্যান ধর্মী উদ্যোগে, দেশে অবস্থান রত গ্রামবাসী যুবকেরা নিচ্ছেন বিভিন্ন পদক্ষেপ, এরই মধ্যে প্রবাসী এই গ্রুফের তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি টিম * ছাইফুর রহমান দুদু (সৌদি আরব) সেলিম আলম (স্পেইন),কামরান আলী (যুক্তরাজ্য) * বাংলাদেশ শফরে যান এবং প্রবাসী গ্রুফের অন্যতম সদস্য জনাব রফিক মিয়া (সৌদিআরব )পুর্ব থেকেই দেশে অবস্থান করছিলেন, তাদের যৌথ প্রচেষ্টায় গ্রাম বাসী নিয়ে বেশ কয়েকটি মতবিনিময় ও আলোচনা সভার আয়োজন করেন।

গত ২৩ এপ্রিল ২০১৬ গ্রামের বিশিষ্ট মোরব্বী আব্দুছ ছালামের সভাপতিত্তে এবং ২৭ এপ্রিল জনাব হাজী আছাব আলীর সভাপতিত্তে এবং ১৭ মে জনাব ছাইফুর রহমান দুদুর সভাপতিত্ত্বে গ্রামের সর্বস্থরের জনতা নিয়ে উন্মোক্ত আলচনা সভা অনুষ্টিত হয়, পরবরতী সময়ে বিভিন্ন পর্যায়ে বেশ কয়েকটি মত বিনিময় সভা ও অনুষ্টিত হয়েছে , ইফফর্ট এর সদস্য সেলিম আলম (স্পেইন),কামরান আলী (যুক্তরাজ্য) ফেরৎ চলে আসলেও বর্তমানে দেশে অবস্থান করছেন ছাইফুর রহমান দুদু ও রফিক মিয়া তাদের সাথে নতুন করে যোগ দিয়েছেন দুবাই প্রবাসী সামছু, কবির ও লুকমান, এভাবে সব সময় গ্রামের উন্নয়নের জন্য প্রবাস থেকে পর্যাক্রমে দেশে যাবেন এ গ্রুফের সদস্যরা ,বলে জানালেন বক্তারা। পরিবার পরিজনদের সাথে ১/২ মাস কাঠানোর জন্য দেশে আসা ইনাত আলীপুরের প্রবাসীরা এলাকার জন্য শত ব্যস্থতার মোধ্যেও সময় বিলিয়ে দেয়ার উদাহরণ বাংলাদেশে খুবি কম পরিলক্ষিত হয়, তাদের এ পরিকল্পনা ও ঐক্যবধ্য প্রচেষ্টাকে বাস্থবায়ন করতে গ্রামের সর্ব স্থরের জনসাধারন শত স্পুর্ত ভাবে অংশ গ্রহন করেছেন , ফেরদৌছ আলী, বশির আহমেদ লিলু,ওলিউর রহমান, সিরাজুল ইসলাম(এড:), হিরা মিয়া (মেম্বার),সানর মিয়া, রুনু আলী লকুছ, তাজ উদ্দিন , আলী আহমেদ সহ গ্রামের যুবক ও মোরব্বীয়ান সন্মিলিতভাবে কাজ করে যাচ্ছেন,। নেতৃবৃন্দ জানান তাদের এই পরিকল্পনা বাস্থবায়ীত হলে সিলেট ফেঞ্চুগঞ্জ রোড থেকে রাখাল গঞ্জ পর্যন্ত বাইপাস রোড অথবা ইলাইগঞ্জ থেকে কঠাল পুর সনের বাজার বাইপাস রোড নির্মিত হবে , যার ফলে দক্ষিন সুরমা ও ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলার প্রায় এক লক্ষ জনগন উপকৃত হবে এবং ফেঞ্চুগঞ্জ রোড থেকে গোলাপগঞ্জ ঢাকা দক্ষিন রোডের যাত্রীরা কমপক্ষে ১ ঘন্টা সময় সঞ্চয় করতে পারবেন, প্রবাসীদের এই পরিকল্পনাকে বাস্থবায়নে প্রধান মন্ত্রী,উন্নয়নের মানষ কন্যা জননেতৃ শেখ হাসিনা এবং ডিজিটাল বাংলাদেশের রুপকার বঙ্গবন্দ্বুর সুযোগ্য উত্তরসূরী সজীব ওয়াজেদ জয়ের আস্থাভাজন ব্যক্তিত্ব সিলেট ৩ আসনের সন্মানিত সাংসদ মাহমোদ উস সামাদ কয়েছ সহ সংশ্লিষ্ট মন্ত্রনালয়ের সহযোগীতার যোর দাবী জানান এলাকাবাসী , সভা শেষে প্রবাসীদের হালাল রোজগার বৃদ্দ্বি ,ঐক্য,শান্তি, সূ স্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করে বিশেষ মোনাজাত পরিছালনা করেন মৌলানা আবুল কাশেম।

Post a Comment

Contact Form

Name

Email *

Message *

Powered by Blogger.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget