প্রতারণার অভিযোগে লন্ডনে বাংলাদেশী দম্পতি দণ্ডিত

জনপ্রিয় ডেস্ক : প্রবাসীদের জন্য সরকারি সুবিধার ১৬ লাখ পাউন্ড হাতিয়ে নিতে যুক্তরাজ্যে ঢোকার সুযোগ দিয়েছে বাংলাদেশী এক দম্পতি। এ অভিযোগে ওই দম্পতিকে ১২ বছরের জেল দিয়েছে দেশটির আদালত। বাংলাদেশী দম্পতির বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগে বলা হয়েছে, সরকারি সুবিধায় কয়েকশ ইতালিপ্রবাসীকে একদিনের জন্য যুক্তরাজ্যে ঢোকার সুযোগ করে এ দম্পতি। দণ্ডিতরা হলেন, চৌধুরী মুয়ীদ (৫১) এবং আসমা খানম (৪৭)। ভুয়া প্রতিষ্ঠান খুলে এই প্রতারণার আশ্রয় নিয়েছিলেন তারা। এই দম্পতি ছাড়াও একই ধরনের প্রতারণার মাধ্যমে যুক্তরাজ্য সরকারের আবাসন সুবিধা ও কাউন্সিল করসুবিধার আট লাখ পাউন্ড হাতিয়ে নেওয়ার দায়ে হাবিবুর রহমান নামের আরেকজনকেও কারাদ- দেওয়া হয়েছে। যুক্তরাজ্যে কাজের সুযোগ করে দিতে মুয়ীদ-আসমা দম্পতি ইতালির বাংলাদেশি বংশোদ্ভুতদের বেছে নিয়েছিলেন।ভুয়া ঠিকানা ব্যবহার করে স্ট্যানস্টিড বিমানবন্দর দিয়ে যুক্তরাজ্যে আনার পর তাদেরকে জাতীয় বীমা নম্বর সংগ্রহের জন্য জব সেন্টারে পাঠানো হয়। যুক্তরাজ্য সরকারের দেওয়া বিভিন্ন সুবিধা পাওয়ার পূর্বশর্ত হচ্ছে এই জাতীয় বীমা নম্বর থাকা। গত মে মাসে এমন একটি ভুয়া প্রতিষ্ঠানে হানা দিয়েছিল পুলিশ ও রেডব্রিজ কাউন্সিলের অনুসন্ধানকারীরা। টাওয়ার হ্যামলেটসের মাইল এন্ড রোডে একটি ইতালিয়ান রেস্তোরাঁর ওপরে ওই প্রতিষ্ঠানের সামনে তখন চাকরির নিয়োগপত্রের অপেক্ষায় ভিড় করেছিল অন্তত ৩০ বাংলাদেশি। এভাবে ইতালিয়ান বাংলাদেশিরা টাওয়ার হ্যামলেটসের ছয় লাখ পাউন্ড এবং লন্ডন বরো অফ রেডিব্রিজের ৫ লাখ ৭৮ হাজার পাউন্ড আবাসন সুবিধাপ্রাপ্ত হিসেবে অনুমোদন পান।এছাড়া ডিপার্টমেন্ট ফর ওয়ার্ক অ্যান্ড পেনশন্স (ডিডব্লিউপি) থেকে ৪ লাখ ২০ হাজার পাউন্ড নেওয়া হয়।এই অর্থ পরে তারা ভাগাভিাগি করে নিয়েছিলেন। আদালতে একজন জুরি জানান, চৌধুরী মুয়ীদ, আসমা খানম এবং হাবিবুর রহমান এই জালিয়াতির জন্য ভুয়া কাগজপত্র তৈরি করে তা ইতালিপ্রবাসীদের সরবরাহ করেছিলেন। 

Post a Comment

Contact Form

Name

Email *

Message *

Powered by Blogger.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget