ভুল পেশা...সমাধান কী?

পেশাজীবন একটি সম্পর্কের মতো। যে কোনো একটি সম্পর্কের মতোই এখানে উত্থান-পতন, আশা-হতাশা সবকিছুই আছে। তবে অধিকাংশ সময়ই চাকরিতে কঠিন সময় খুব দ্রুত স্বাভাবিক হয়ে যায়। কিন্তু এসব দুর্যোগ যদি দৈনন্দিন নিয়মে পরিণত হয়, তাহলে এর বিকল্প নিয়ে ভাবাটা আমাদের দায়িত্বের মধ্যেই পড়ে।
আপনি ভুল পেশায় আছে কিনা বোঝার ছয়টি উপায় আছে। মিলিয়ে দেখুন যদি এর প্রতিটির সঙ্গেই আপনার সমস্যা মিলে যায়, তাহলে আজ থেকেই নতুন কিছু করার কথা ভাবতে শুরু করুন।
১: আপনি কি আরও অর্থ উপার্জন করতে চান?
বড় আকারের একটি বেতনের আশা আপনি করতেই পারেন, এতে কোনো দোষ নেই। তবে বাস্তবতা হচ্ছে রাতারাতিই তা পাওয়ার ইচ্ছা আপনি করতে পারেন না। তবে যদি আপনি এ বিষয়ে নিশ্চিত থাকেন তাহলে নির্ধারিত লক্ষ্যে পৌঁছাতে আপনাকে নিচের কৌশলগুলো অনুসরণ করতে হবে:
*    সাধারণ নিয়মটি হচ্ছে শিক্ষাক্ষেত্রে আপনি যতগুলো ডিগ্রি অর্জন করতে পারবেন, স্বাভাবিতভাবেই তত ভালো বেতনের চাকরি আপনি পাবেন। তাই পড়াশোনার ক্ষেত্রে যতদূর সম্ভব যাওয়ার চেষ্টা করুন।
*    ব্যবস্থাপনা বিষয়ক চাকরি আপনাকে অনেক ভালো বেতনের সন্ধান দিতে পারবে। ফলে এমবিএ করার চেষ্টা করুন।
*    একইসঙ্গে ফিন্যান্স ও একাউন্টিং সম্পর্কিত চাকরি আপনার বেতনের পরিমাণ বাড়িয়ে দিতে সাহায্য করবে।
২: পেশা নিয়ে কি আপনি হতাশ?
আপনার কাজটি আপনার কাছে নিরানন্দ, একঘেয়ে, কান্তিকর মনে হলে তা আপনার প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে সঙ্গে আপনার জন্যও ভালো কোনো ফল বয়ে আনবে না। এ পরিস্থিতি কাটিয়ে ওঠার জন্য কিছু সমাধান:
*    যদি সম্ভব হয় তাহলে আপনার প্রতিষ্ঠানেরই অন্য কোনো পছন্দের শাখায় যাওয়ার চেষ্টা করুন। একান্তই সম্ভব না হলে আপনার পছন্দকে গুরুত্ব দিয়ে সে অনুযায়ী পেশা পরিবর্তনের চেষ্টা করুন।
*    সত্যিকার অর্থে কোন কাজটি আপনাকে আনন্দ দেয় এবং আপনার দক্ষতাকে সঠিকভাবে কাজে লাগাতে পারে, যথেষ্ট সময় নিয়ে তা চিন্তা করুন।
৩: পদোন্নতির সময়সীমা কি পার হয়ে গেছে?
পেশা বা পরিস্থিতি যেমনই হোক না কেন চোখের সামনে কারও পদোন্নতি কখনই আনন্দদায়ক কোনো বিষয় নয়, যখন সেটা আপনারও প্রাপ্য। এক্ষেত্রে সমাধান হচ্ছে:
* প্রাপ্য পদোন্নতির জন্য আপনার দক্ষতার উন্নতির জায়গাটি সম্পর্কে বসকে অভিহিত করুন।
*    নতুন করে ডিগ্রি নেওয়া ও এর স্বীকৃতির সনদ অর্জন করে আপনার গুণাবলীর তালিকায় আরেকটি তারকা যোগ করুন।
৪: কাজ হারানোর ঝুঁকির মধ্যে আছেন?
প্রায় সব দেশেই বেকারত্বের হার প্রচুর এবং এ নিয়ে কমবেশি সবাই উদ্বিগ্ন। তবে আপনি যে প্রতিষ্ঠানে কাজ করেন, সেখানে যদি আপনার কাজের নিরাপত্তা না থাকে তাহলে আপনার অবশ্যই দীর্ঘমেয়াদে স্থিতিশীল কাজের সন্ধান করা উচিত। 
এক্ষেত্রে:
*    আপনার বর্তমান কর্মরত প্রতিষ্ঠানে দীর্ঘমেয়াদে কাজের নিশ্চয়তা না থাকলে আপনার যোগ্যতা ও ব্যক্তিত্ব অনুযায়ী আজ থেকেই স্থিতিশীল এবং দীর্ঘস্থায়ী একটি চাকরি খোঁজার চেষ্টা করুন।
*    বিভিন্ন বিষয়ে ছোট ছোট কোর্স করুন। এগুলো আপনার অভিজ্ঞতা বাড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে স্থিতিশীল একটি কাজ পাওয়ার সুযোগ তৈরি করবে।  
*   এমন কাজের সন্ধান করুন যার ভবিষ্যৎ আছে। অনিশ্চিত পেশার দিকে পা বাড়াবেন না।
৫: প্রতিষ্ঠানে কর্মরত অবস্থায় অন্য কাজের সন্ধান করছেন?
এমন সময় নতুন কাজের সন্ধান করুন, যখন তা আপনার জন্য ক্ষতির কারণ হবে না। তাছাড়া অফিসে থাকা অবস্থায় যতটা সম্ভব এ কাজটি এড়িয়ে যাওয়াই ভালো। কারণ:
*    আপনার বস বা সহকর্মী বিষয়টি জানলে পরিস্থিতি আরও ঘোলাটে হবে।
*    আপনার অবসর সময়ে অন্য প্রতিষ্ঠানে আবেদন করার কাজটি সেরে ফেলুন।
*     কাজের ফাঁকে ফাঁকে আপনার পছন্দের বিষয়টিতে বাড়তি প্রশিক্ষণ নেওয়া ও পড়াশোনার চেষ্টা করুন।

৬: সকালে ঘুম থেকে ওঠা কি আপনার জন্য আতঙ্কের কারণ?
সকালে ঘড়ির অ্যালার্ম বন্ধ করে আবার ঘুমিয়ে পড়ার অর্থ এই নয় যে আপনি ভুল পেশায় আছেন। তবে যদি রাতের পর রাত আপনি আপনার পেশা নিয়ে দুঃস্বপ্ন দেখতে থাকেন, তাহলে বুঝে নিন যে পেশা পরিবর্তনের এখনই সময়। 

অতএব:
*    পেশার ক্ষেত্রে কোন বিষয়টি সমস্যা করছে এবং কেন তা খুঁজে বের করার চেষ্টা করুন বা পেশাবিষয়ক পরামর্শকের সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করুন। যদি আপনাকে পেশা পরিবর্তন করতেই হয় তাহলে এর আগে ভালোভাবে চিন্তা-ভাবনা করে নিন।
*    আজকাল অনেক বিষয়ে সান্ধ্যকালীন কোর্স, এমনকি অনলাইনেও কোর্স করার ব্যবস্থা আছে। বর্তমান কাজের পাশাপাশি ও পেশা পরিবর্তনের আগে এগুলো করার চেষ্টা করুন।

Post a Comment

Contact Form

Name

Email *

Message *

Powered by Blogger.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget