ঢাকা ০২:৩৯ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::

হবিগঞ্জে ঘরে ফিরে স্বামী দেখেন পড়ে আছে স্ত্রী-কন্যার লাশ

জনপ্রিয় অনলাইন
  • আপডেট সময় : ০৭:১০:৪৮ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ মার্চ ২০২১ ৬৮৮ বার পড়া হয়েছে

হবিগঞ্জের বাহুবল উপজেলায় নিজ ঘর থেকে মা ও মেয়ের গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ বৃহস্পতিবার ভোরে উপজেলার দ্বিগম্বর বাজার থেকে তাদের লাশ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় আরও একজন আহত হয়েছেন। নিহতরা হলেন- উপজেলার পুটিজুরী ইউনিয়নের লামাপুটিজুরী গ্রামের সন্দীপ দাসের স্ত্রী অঞ্জলী (৩৫) ও তার মেয়ে পূজা (৮)। আমির আলীকে বাহুবল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, লামাপুটিজুরী গ্রামের কাঁচামাল ব্যবসায়ী সন্দীপ দাস দ্বিগম্বর বাজার এলাকায় একটি বাসা ভাড়া করে স্ত্রী-সন্তান নিয়ে বসবাস করে আসছিলেন। ব্যবসার কাজে সম্প্রতি সুনামগঞ্জে অবস্থান করছিলেন তিনি। বৃহস্পতিবার ভোরে তিনি বাসায় এসে দেখেন তার স্ত্রী ও মেয়েকে হত্যা করা হয়েছে।

সন্দীপ দাস জানান, রাত তিনটার দিকে দ্বিতীয় তলার ভাড়াটিয়া আমির আলী তাকে ফোন দিয়ে বলেন তার ঘরে চুরি হয়েছে। ঘরে থাকা সেলাই মেশিনসহ সবকিছু চুরি করে নিয়ে গেছে। পরে তিনি বাসায় ফিরে তার স্ত্রী-সন্তানের লাশ পড়ে থাকা অবস্থায় দেখতে পান।

ঘটনার খবর পেয়ে সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার পারভেজ আলম চৌধুরীসহ পুলিশ কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে যান। নবীগঞ্জ বাহুবল সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার পারভেজ আলম চৌধুরী জানান, মা ও মেয়ে দুজনেরই গলায় কাটা দাগ রয়েছে। মরদেহ উদ্ধারের পর ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে।

সুত্র. দৈনিক আমাদের সময় ।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

হবিগঞ্জে ঘরে ফিরে স্বামী দেখেন পড়ে আছে স্ত্রী-কন্যার লাশ

আপডেট সময় : ০৭:১০:৪৮ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ মার্চ ২০২১

হবিগঞ্জের বাহুবল উপজেলায় নিজ ঘর থেকে মা ও মেয়ের গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ বৃহস্পতিবার ভোরে উপজেলার দ্বিগম্বর বাজার থেকে তাদের লাশ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় আরও একজন আহত হয়েছেন। নিহতরা হলেন- উপজেলার পুটিজুরী ইউনিয়নের লামাপুটিজুরী গ্রামের সন্দীপ দাসের স্ত্রী অঞ্জলী (৩৫) ও তার মেয়ে পূজা (৮)। আমির আলীকে বাহুবল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, লামাপুটিজুরী গ্রামের কাঁচামাল ব্যবসায়ী সন্দীপ দাস দ্বিগম্বর বাজার এলাকায় একটি বাসা ভাড়া করে স্ত্রী-সন্তান নিয়ে বসবাস করে আসছিলেন। ব্যবসার কাজে সম্প্রতি সুনামগঞ্জে অবস্থান করছিলেন তিনি। বৃহস্পতিবার ভোরে তিনি বাসায় এসে দেখেন তার স্ত্রী ও মেয়েকে হত্যা করা হয়েছে।

সন্দীপ দাস জানান, রাত তিনটার দিকে দ্বিতীয় তলার ভাড়াটিয়া আমির আলী তাকে ফোন দিয়ে বলেন তার ঘরে চুরি হয়েছে। ঘরে থাকা সেলাই মেশিনসহ সবকিছু চুরি করে নিয়ে গেছে। পরে তিনি বাসায় ফিরে তার স্ত্রী-সন্তানের লাশ পড়ে থাকা অবস্থায় দেখতে পান।

ঘটনার খবর পেয়ে সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার পারভেজ আলম চৌধুরীসহ পুলিশ কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে যান। নবীগঞ্জ বাহুবল সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার পারভেজ আলম চৌধুরী জানান, মা ও মেয়ে দুজনেরই গলায় কাটা দাগ রয়েছে। মরদেহ উদ্ধারের পর ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে।

সুত্র. দৈনিক আমাদের সময় ।