ঢাকা ০৬:৫২ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
স্পেনে ঐতিহাসিক মুজিব নগর দিবস উদযাপন মহিলা সমিতি বার্সেলোনার পহেলা বৈশাখ উদযাপন বাংলাদেশ কোলতোরাল এসোসিয়েশন এন কাতালোনিয়ার ৯ সদস্য বিশিষ্ট সমন্বয় কমিটি গঠন টেনেরিফে ঈদুল ফিতর উদযাপন ও ঈদ পূর্ণমিলনী অনুষ্ঠিত শান্তাকলমায় শরীয়তপুর জেলা সমিতির ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্টিত নোয়াখালী এসোসিয়েশনের ইফতার মাহফিল সম্পন্ন বার্সেলোনায় গোলাপগঞ্জ অ্যাসোসিয়েশনের ইফতার সম্পন্ন বিয়ানীবাজার পৌরসভা ওয়েলফেয়ার ট্রাষ্ট বার্সেলোনার ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্টিত বার্সেলোনায় বিয়ানীবাজার ইয়াং স্টারের ইফতার সম্পন্ন বার্সেলোনা কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে তাফসীরুল কুরআন ও ইফতার মাহফিল অনুষ্টিত

স্পেনে স্বামীকে ঘুমে রেখে পরকিয়ার টানে সর্বস্ব লুটে পালালেন স্ত্রী

লায়েবুর রহমান
  • আপডেট সময় : ০৮:০৩:০৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১ ১২৭৮ বার পড়া হয়েছে

স্পেনের বার্সেলোনার প্রবাসী মিনহাজুল ইসলাম মুক্তা (৩১) তার স্ত্রী ও একমাত্র সন্তানের জননী মুনিরা খানম মুন্নীর (২৫) বিরুদ্ধে ভয়াবহ প্রতারণার অভিযোগ এনে সংবাদ সম্মেলন করেছেন।   ১৮ই অক্টোবর সোমবার বার্সেলোনার স্থানীয় একটি হল রুমে এ সংবাদ সম্মেলন করেন স্বামী মিনহাজ। তিনি সংবাদ সম্মেলনে তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ পেশ করেন। এ সময় তিনি উল্লেখ করেন, তিনি গত ১০ অক্টোবর  ২০২১ এ ফ্যামিলি ভিসার মাধ্যমে স্ত্রী মুন্নী এবং ২ বছরের শিশু সন্তান আয়ানকে স্পেনের বার্সেলোনায় নিজের কাছে নিয়ে আসেন।  তার স্ত্রী বার্সেলোনায় আসার রাতেই দু’গ্লাস শরবত বানিয়ে একটিতে চেতনানাশক ঔষধ মিশিয়ে দেন। চেতনানাশক মেশানো শরবত মিনহাজকে দিয়ে নিজে ভালো শরবত পান করে। স্বামী অভিযোগ করেন, ঐ শরবত খেয়ে তিনি অচেতন হয়ে পড়লে পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী তার স্ত্রী একমাত্র ছেলে এবং দেশ থেকে নিয়ে আসা স্বর্ণালঙ্কার, নগদ অর্থসহ মূল্যবান জিনিসপত্র নিয়ে রাত ২টায় পালিয়ে যায়।  তিনি মুনিরা খানম মুন্নীকে ভয়ংকর প্রতারক হিসেবে উল্লেখ করে সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করেন, এ সমস্যা পারিবারিক নিস্পত্তির জন্য তিনি তাঁর শ্বশুর বিয়ানীবাজারের খাসা শহীদ টিলার ইকবাল খানের দ্বারস্থ হওয়ার পরও তিনি কোন সুষ্ঠ সমাধান পান নি। আর এ জন্যে তিনি এই সংবাদ সম্মেলন করে সংবাদের মাধ্যমে এবং কমিউনিটি নেতৃবৃন্দের শরণাপন্ন হয়ে এই প্রতারক মহিলাকে প্রবাসে সামাজিক ভাবে বয়কটের অনুরোধ জানান প্রবাসীদের প্রতি।

মিনহাজ বিয়ে থেকে শুরু করে, বিগত দিনের যাবতীয় ভরনপোষণ, ভিসা প্রোসেসিং থেকে এ পর্যন্ত প্রায় ৪০ হাজার ইউরো যা বাংলাদেশী টাকায় প্রায় ৪০ লক্ষ টাকা খরচ করেছেন এবং এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার জন্য   স্হানীয় থানায় অভিযোগ  সহ আইনী প্রক্রিয়া শুরু করেছেন ।

উপস্থিত সাংবাদিকের এক প্রশ্নের উত্তরে ভুক্তভোগী মিনহাজ বলেন, তিনি ধারণা করেছেন মুন্নী তার সাথে প্রতারণার আশ্রয় নিয়ে যে ছেলের পলায়ন করেছে সে ফ্রান্স প্রবাসী বিয়ানীবাজারের বাসিন্দা।  তিনি এ ধরণের লজ্জা ও প্রতারণার ঘটনা যাতে ভবিষ্যতে আর কারও সাথে না ঘটে সেজন্য সকলকে সচেতন থাকার অনুরোধ করেন। এ ছাড়া তাঁর ২ বছরের ছেলে সন্তান আয়ানকে তার কাছে ফিরিয়ে আনতে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

সংবাদ সম্মেলনে স্থানীয় সাংবাদিকবৃন্দ, মিনহাজের পারিবারিক সদস্য ও কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। ভুক্তভোগি মিনহাজ বিয়ানীবাজার থানার কুড়ার বাজার ইউনিয়নের আঙ্গুরা মোহাম্মদপুর গ্রামের নজরুল ইলামের ছেলে ।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

স্পেনে স্বামীকে ঘুমে রেখে পরকিয়ার টানে সর্বস্ব লুটে পালালেন স্ত্রী

আপডেট সময় : ০৮:০৩:০৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১

স্পেনের বার্সেলোনার প্রবাসী মিনহাজুল ইসলাম মুক্তা (৩১) তার স্ত্রী ও একমাত্র সন্তানের জননী মুনিরা খানম মুন্নীর (২৫) বিরুদ্ধে ভয়াবহ প্রতারণার অভিযোগ এনে সংবাদ সম্মেলন করেছেন।   ১৮ই অক্টোবর সোমবার বার্সেলোনার স্থানীয় একটি হল রুমে এ সংবাদ সম্মেলন করেন স্বামী মিনহাজ। তিনি সংবাদ সম্মেলনে তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ পেশ করেন। এ সময় তিনি উল্লেখ করেন, তিনি গত ১০ অক্টোবর  ২০২১ এ ফ্যামিলি ভিসার মাধ্যমে স্ত্রী মুন্নী এবং ২ বছরের শিশু সন্তান আয়ানকে স্পেনের বার্সেলোনায় নিজের কাছে নিয়ে আসেন।  তার স্ত্রী বার্সেলোনায় আসার রাতেই দু’গ্লাস শরবত বানিয়ে একটিতে চেতনানাশক ঔষধ মিশিয়ে দেন। চেতনানাশক মেশানো শরবত মিনহাজকে দিয়ে নিজে ভালো শরবত পান করে। স্বামী অভিযোগ করেন, ঐ শরবত খেয়ে তিনি অচেতন হয়ে পড়লে পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী তার স্ত্রী একমাত্র ছেলে এবং দেশ থেকে নিয়ে আসা স্বর্ণালঙ্কার, নগদ অর্থসহ মূল্যবান জিনিসপত্র নিয়ে রাত ২টায় পালিয়ে যায়।  তিনি মুনিরা খানম মুন্নীকে ভয়ংকর প্রতারক হিসেবে উল্লেখ করে সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করেন, এ সমস্যা পারিবারিক নিস্পত্তির জন্য তিনি তাঁর শ্বশুর বিয়ানীবাজারের খাসা শহীদ টিলার ইকবাল খানের দ্বারস্থ হওয়ার পরও তিনি কোন সুষ্ঠ সমাধান পান নি। আর এ জন্যে তিনি এই সংবাদ সম্মেলন করে সংবাদের মাধ্যমে এবং কমিউনিটি নেতৃবৃন্দের শরণাপন্ন হয়ে এই প্রতারক মহিলাকে প্রবাসে সামাজিক ভাবে বয়কটের অনুরোধ জানান প্রবাসীদের প্রতি।

মিনহাজ বিয়ে থেকে শুরু করে, বিগত দিনের যাবতীয় ভরনপোষণ, ভিসা প্রোসেসিং থেকে এ পর্যন্ত প্রায় ৪০ হাজার ইউরো যা বাংলাদেশী টাকায় প্রায় ৪০ লক্ষ টাকা খরচ করেছেন এবং এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার জন্য   স্হানীয় থানায় অভিযোগ  সহ আইনী প্রক্রিয়া শুরু করেছেন ।

উপস্থিত সাংবাদিকের এক প্রশ্নের উত্তরে ভুক্তভোগী মিনহাজ বলেন, তিনি ধারণা করেছেন মুন্নী তার সাথে প্রতারণার আশ্রয় নিয়ে যে ছেলের পলায়ন করেছে সে ফ্রান্স প্রবাসী বিয়ানীবাজারের বাসিন্দা।  তিনি এ ধরণের লজ্জা ও প্রতারণার ঘটনা যাতে ভবিষ্যতে আর কারও সাথে না ঘটে সেজন্য সকলকে সচেতন থাকার অনুরোধ করেন। এ ছাড়া তাঁর ২ বছরের ছেলে সন্তান আয়ানকে তার কাছে ফিরিয়ে আনতে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

সংবাদ সম্মেলনে স্থানীয় সাংবাদিকবৃন্দ, মিনহাজের পারিবারিক সদস্য ও কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। ভুক্তভোগি মিনহাজ বিয়ানীবাজার থানার কুড়ার বাজার ইউনিয়নের আঙ্গুরা মোহাম্মদপুর গ্রামের নজরুল ইলামের ছেলে ।